home / Fitness
পিলাটিস করার আগে এই পাঁচটি বিষয় মনে রাখুন

পিলাটিস করার আগে এই পাঁচটি বিষয় মনে রাখুন

ওজন কমাতে চান? জিমে যান, ঘাম ঝরান, সঙ্গে ডায়েটিংটাও ধরে ফেলুন! তবেই না ওজন কমবে! কিন্তু আমরা বলছি যে, অত সব দরকার নেই। স্রেফ একখানা যোগা ম্য়াট কিনুন আর শুরু করুন পিলাটিস (things to keep in mind before starting pilates), হালফিলের সবচেয়ে হ্য়াপেনিং এক্সারসাইজ ফর্ম। বিশেষজ্ঞদের মতে, নিয়মিত যদি এই বিশেষ ধরনের শরীরচর্চা করা যায়, তা হলে মেদ তো ঝরেই, সেই সঙ্গে শরীরের প্রতিটি পেশির ক্ষমতা এতটাই বেড়ে যায় যে ছোট-বড় কোনও রোগই ধারেকাছে ঘেঁষতে পারে না 

পিলাটিস কী?

জার্মানির বিখ্যাত জিমন্যাস্ট জোসেফ পিলাটিস এই বিশেষ ধরনের শরীরচর্চাটির উদ্ভাবক। তাই তাঁর নাম অনুসারে এই এক্সারসাইজ ফর্মটির নাম রাখা হয়েছে পিলাটিস। এই ধরনের শরীরচর্চার মূল লক্ষ্য হল শরীরের কোর স্ট্রেংথ বাড়িয়ে তোলা। সেই সঙ্গে শরীরের গঠন ঠিক রাখতে এবং ক্ষমতা বাড়াতেও এই এক্সারসাইজের জবাব নেই। যোগাসনের মতো পিলাটিসের ক্ষেত্রেও শরীর এবং মন একই সঙ্গে কাজ করে। এই এক্সারসাইজ অনেকটা যোগাসনেরই মতো, তাই একবার শিখে নিলে যে-কারও পক্ষে বাড়িতেই নিয়মিত এই শরীরচর্চা করা সম্ভব।

কাদের জন্য এই এক্সারসাইজ?

আট থেকে আশি, যে কোনও বয়সের মানুষই পিলাটিস করতে পারেন। তবে, যদি আপনার শরীরে কোনও চোট থাকে অথবা চিকিৎসক যদি কোনও বিশেষ ধরনের শরীরচর্চা করতে আপনাকে বারণ করে থাকেন, তা হলে পিলাটিস না করাই ভাল। গর্ভবতী মহিলারাও নির্দ্বিধায় পিলাটিস করতে পারেন। রিসার্চ বলছে, গর্ভবতী মহিলারা যদি নিয়মিত এই শরীরচর্চা করেন, তা হলে প্রসবের সময় অনেক ধরনের জটিলতার হাত থেকে নাকি রেহাই পাওয়া সম্ভব। এই সময় যাঁরা নিতম্ব এবং লোয়ার ব্যাক মাসলের জোর বাড়াতে চান, তাঁরা পিলাটিসে মন দিন। তবে গর্ভাবস্থায় যে-কোনও নতুন শরীরচর্চা শুরু করার আগে একবার অবশ্য়ই চিকিৎসকের সঙ্গে আলোচনা করে নেবেন।

পিলাটিস কেন করবেন

১। শরীরের কোনও বিশেষ অংশের নয়, নিয়মিত পিলাটিস করলে শরীরের প্রতিটি পেশির ক্ষমতা বাড়তে শুরু করে। আর পিলাটিস করার সময় যেহেতু শরীর এবং মস্তিষ্ক এক সঙ্গে কাজ করে, ফলে শরীরের প্রতিটি অংশ চনমনে হয়ে ওঠে।

২। বয়স বাড়লেও শরীরের নমনীয়তা যাতে না কমে, তা সুনিশ্চিত করতে নিয়মিত এই এক্সারসাইজ করুন। আসলে পিলাটিস রুটিনে এমন কিছু আসন আছে, যা হাত, পা, কোমরসহ শরীরের বিশেষ কিছু পেশির ক্ষমতা অনেকটা বাড়িয়ে দেয়। ফলে স্বাভাবিকভাবেই ফ্লেক্সিবিলিটি বাড়তে বেশি সময় লাগে না।

৩। একটু ভেবে দেখুন, আমাদের সকলেরই কিন্তু শরীরের গঠন এবং নিজেকে ক্য়ারি করার ধরনে কিছু না-কিছু খামতি আছে। আমরা কেউ কোলকুঁজো, কেউ সোজা হয়ে হাঁটতে পারি না, কারও ঘাড় বেশিক্ষণ সোজা রাখা যায় না ইত্য়াদি ইত্য়াদি। পিলাটিস (things to keep in mind before starting pilates) এই সব রকমের দোষ কাটিয়ে দেওয়ার ক্ষমতা রাখে

৪। ক্যালরি মেপে খাবার খাওয়ার পাশাপাশি নিয়মিত যদি পিলাটিস করা যায়, তা হলে পেটের মেদ তো ঝরেই, সেই সঙ্গে শরীরের ইতি-উতি জমে থাকা সব চর্বিও ঝরে যায়। শুধু তাই নয়, হজম ক্ষমতার উন্নতি ঘটার কারণে মেদ জমার আশঙ্কাও আর থাকে না।

৫। যোগাসনের মতই পিলাটিস করার সময় শ্বাস-প্রশ্বাসের উপর বিশেষ নজর দিতে হয়। ফলে স্বাভাবিকভাবেই প্রচুর মাত্রায় অক্সিজেনের প্রবেশ ঘটে শরীরে, যার প্রভাবে এনার্জির ঘাটতি দূর হতে সময় লাগে না। সেই সঙ্গে স্ট্রেস এবং অ্যাংজাইটির প্রকোপও কমে।

সাবধানতা

যারা আগে কোনওদিন কোনওরকম এক্সারসাইজ করেননি, তাঁরা প্রথমেই অনেকক্ষণ ধরে পিলাটিস করবেন না। বরং প্রথম কয়েকদিন এক-একটা ব্যায়াম ৩০ সেকেন্ড করে করুন। যত দিন যাবে, আস্তে-আস্তে সময় বাড়িয়ে প্রতিটি আসন এক মিনিট পর্যন্ত করতে পারেন। আর হ্য়াঁ, পিলাটিস শুরু করার আগে কিছুক্ষণ ওয়র্ম আপ করে নিতে ভুলবেন না যেন!

POPxo এখন চারটে ভাষায়! ইংরেজি, হিন্দি, মারাঠি আর বাংলাতেও!        

বাড়িতে থেকেই অনায়াসে নতুন নতুন বিষয় শিখে ফেলুন। শেখার জন্য জয়েন করুন #POPxoLive, যেখানে আপনি সরাসরি আমাদের অনেক ট্যালেন্ডেট হোস্টের থেকে নতুন নতুন বিষয় চট করে শিখে ফেলতে পারবেন। POPxo App আজই ডাউনলোড করুন আর জীবনকে আরও একটু পপ আপ করে ফেলুন!

23 May 2022

Read More

read more articles like this
good points logo

good points text