Advertisement

Family

প্রেমিকের মায়ের সঙ্গে সুসম্পর্ক বজায় রাখুন এই টিপসগুলি মেনে

Doyel BanerjeeDoyel Banerjee  |  Dec 18, 2019
প্রেমিকের মায়ের সঙ্গে সুসম্পর্ক বজায় রাখুন এই টিপসগুলি মেনে

সবার জীবনে এরকম হয় তা নয়, আবার বেশিরভাগ ক্ষেত্রে এমনটাই হয় বলে মেয়েরা জানাচ্ছেন। তাঁদের প্রেমিকদের (boyfriends) মায়েরা (mother) নাকি তাঁদের খুব একটা পছন্দ করেন না? কেন বলুন তো? সম্পর্ক আদৌ বিয়েতে গিয়ে পৌঁছবে কিনা জানা নেই। তবে প্রেম করতে তো আর বাধা নেই। কিন্তু মাম্মি ডিয়ার নিশ্চিন্তে প্রেম করতে দিলে তো? যেদিন আপনাদের দেখা করার কথা সেদিনই তাঁর পায়ে খুব ব্যথা বা দেখা হলেও বারংবার কল করে তিনি বেশ ভালই ব্যাগড়া দেন। আবারও বলছি সব মায়েরা এরকম হয়না। অনেকেই আছেন, যাঁরা ‘তোমার পছন্দের ঠেলা তুমিই সামলাও’ গোছের ভাব করে মুখে কুলুপ এঁটে থাকেন। তা হলে উপায় কী? শান্তিপূর্ণ সহাবস্থানের কোনও তুলনা হয় না। তাই প্রেমিকের মায়ের সঙ্গে সুসম্পর্ক (relation) বজায় রাখুন এই চারটি সহজ টিপস (tips) মেনে।

instagram

১) প্রেমিক ও তাঁর মায়ের সম্পর্ক যেন মসৃণ থাকে, সব সময় সেই চেষ্টা করুন। এমন হতে পারে যে তিনি আদতে আপনাকে পছন্দ করেন কিন্তু নিজের ছেলের সঙ্গেই তাঁর সম্পর্ক ভাল নয়। আর সেই জন্যই তিনি আপনাকেও দেখতে পারেন না। সুতরাং সর্বপ্রথম আপনাকে এটা দেখতে হবে যে, তাঁরা দু’জনেই যেন খুশি থাকেন। 

২) যেদিন দেখা করবেন, সেদিন বাড়িতে কোনও কাজ না থাকলেও প্রেমিককে বেশিক্ষণ আটকে রাখবেন না। তাঁকে বলবেন যে, কিছুটা সময় তাঁর মায়ের সঙ্গেও কাটানো উচিত। কারণ, তিনিও দিনের শেষে ছেলের জন্য অপেক্ষা করে থাকেন। আপনার এই কথা যদি মায়ের কানে পৌঁছয় তাহলে তিনি আপনার দায়িত্বশীল আচরণ ও রুচিশীল ব্যবহারে খুশি হবেন। 

hungryboo

৩) মাঝে মধ্যে প্রেমিক নয়, তাঁর মায়ের সঙ্গে সিনেমা দেখতে যান বা লাঞ্চ খেতে যান। হয়তো দেখবেন আপনাদের সম্পর্কের শীতলতা অনেকটাই কেটে গেছে। যে কথা সবার সামনে বলা যায় না, সেটা একান্তে আপনাকে তিনি বলতেও পারেন। 

৪) অনেক মেয়েই বলেন তাঁরা প্রেমিকের মাকে খুশি করতে প্রায়শই নানা উপহার পাঠান। কিন্তু তাতে সব সময় কাজ হয় না। না হওয়ারই কথা। আপনি যদি রোজগেরে হন তা হলে অন্য কথা। কিন্তু যদি তা না হয়, তাহলে প্রেমিকের মা ভাবতে পারেন যে এগুলো তাঁর ছেলেই কিনে দিয়েছে। আবার অনেক মা এটা ভাবতে পারেন যে এগুলো আসলে উপঢৌকন বা ঘুষ। আর এতে যে তিনি বেশ চটে যাবেন সেটা আলাদা করে বলার দরকার নেই। উপহার এমন হবে যা মন ছুঁয়ে যাবে। ধরুন আপনি নিজে হাতে কিছু রান্না করে নিয়ে এলেন। বা উনি যদি গান শুনতে ভালবাসেন, তা হলে আপনি কোনও গান নিজের গলায় রেকর্ড করে তাঁকে শোনাতে পারেন। শাড়ির সঙ্গে ম্যাচ করে নিজে হাতে কোনও বটুয়া তৈরি করে দিতে পারেন। অর্থাৎ যেখানে আপনার নিজস্বতার ছোঁওয়া থাকবে, সেটাই তিনি ভাল মনে নেবেন।

এই দশকটি আমরা শেষ করতে চলেছি #POPxoLucky2020-র মাধ্যমে। যেখানে আপনারা প্রতিদিন পাবেন নতুন-নতুন সারপ্রাইজ। আমাদের এক্কেবারে নতুন POPxo Zodiac Collection মিস করবেন না যেন! এতে আছে নতুন সব নোটবুক, ফোন কভার এবং কফি মাগ, যেগুলো দারুণ ঝকঝকে তো বটেই, আর একেবারে আপনার কথা ভেবেই তৈরি করা হয়েছে। হুমম…আরও একটা এক্সাইটিং ব্যাপার হল, এখন আপনি পাবেন ২০% বাড়তি ছাড়ও। দেরি কীসের, এখনই POPxo.com/shopzodiac-এ যান আর আপনার আগামী বছরটা POPup করে ফেলুন!