লাইফস্টাইল

হাড়হিম করা এই বাংলা Classic সিনেমাগুলি দেখেছেন কি?

Debapriya BhattacharyyaDebapriya Bhattacharyya  |  Jan 30, 2019
হাড়হিম করা এই বাংলা Classic সিনেমাগুলি দেখেছেন কি?

ভূতের (ghost) গল্প (story) পড়তে ভালবাসেনা বা ভয়ের (horror) সিনেমা (movie) দেখতে ভালবাসেনা, এরকম লোকজন বোধ করি কমই আছে।  বেশ হাড় হিম করা (spine chilling) ভূতের (horror) সিনেমা (movie) দেখার পর যদিও একা একা বাথরুমে যেতেও ভয় লাগে, তবুও হরর ফিল্ম দেখার মজাটাই কিন্তু একেবারে অন্যরকম। হলিউডে এবং বলিউডে অসংখ্য ভূতের সিনেমা তৈরি হয়েছে। তার মধ্যে কোনটা দেখে হয়ত আপনি চারদিন ঘুমোতে পারেননি, আবার কোনটা দেখে হয়ত মনে মনে ভেবেছেন, ‘এটা ভূতের সিনেমা?’ সে যাই হোক, আমাদের বাংলা ফিল্ম ইন্ডাস্ট্রিতেও (Bengali film industry) কিন্তু ভূতের সিনেমা নয় নয় করে কম নেই! সেই পঞ্চাশের দশক থেকে আরম্ভ করে ২০১৮ পর্যন্ত অনেক সিনেমা তৈরি হয়েছে যা দর্শকের মনরঞ্জন করেছে এবং কখনো কখনো কিন্তু শিরদাঁড়ার মধ্যে দিয়ে ঠাণ্ডা স্রোতও (spine chilling) বইয়েছে। যাই হোক, আপনিও যদি ভূতের (horror) সিনেমা দেখতে ভালবাসেন তাহলে এই ৩টে ক্লাসিক (classic) সিনেমা (movie) না হয় আরেকবার দেখুন।

দেখে নিনঃ ইউটিউবে এই ৩০টা শর্ট ফিল্ম

#০১ কঙ্কাল

these-are-the-must-watch-bengali-classic-horror-films 01খুব সম্ভবত এটি বাংলা ফিল্ম ইন্ডাস্ট্রিতে (bengali film industry) তৈরি প্রথম হরর ফিল্ম। বাংলা সিনেমার স্বর্ণযুগে পরিচালক নরেশ মিত্রের এই ছবিটি সেই সময়ে যথেষ্ট সাড়া ফেলেছিল। ছবির গল্পে (story) দেখানো হয় যে তরলা নামের এক যুবতী টাকার লোভে রতন নামের এক বড়লোককে বিয়ে করে, কিন্তু তার প্রাক্তন প্রেমিক অভয়ের সাথেও সে সম্পর্কে লিপ্ত ছিল। একদিন অভয় নেশায় মাতাল হয়ে তরলাকে খুন করে এবং তারপর থেকেই তরলার ভূত (ghost) সবার জীবন অতিষ্ঠ করে তোলে। গল্পটি সাধারন হলেও সেই সময়ের জন্য যথেষ্ট আধুনিক এবং সাদাকালো পর্দায় ভয় (horror) পাওয়ানোর জন্যেও যথেষ্ট মশলা রয়েছে সিনেমাটিতে (movie)।

#০২ মনিহারা

these-are-the-must-watch-bengali-classic-horror-films 02সিনেমাটি শুরু হয় একজন স্কুল টিচারের বলা একটি গল্প দিয়ে। একজন জমিদারের স্ত্রী, মনিমালিকা গয়না পরতে খুব ভালবাসে। তার স্বামী তাকে অনেক গয়না দিলেও কিছুতেই তার মন ভরে না, তার আরও গয়না চাই। মনিমালিকার স্বামীর টাকাপয়সার টানাটানি চললে সে তার গয়নার বাক্স দিয়ে দেয় তার স্বামীকে, এবং আশ্চর্যজনকভাবে নিরুদ্দেশ হয়ে যায়। এরপরে একদিন সেই জমিদার তার স্ত্রীয়ের গয়নার বাক্সটি নেড়েচেড়ে দেখার সময় হারহিম করা (spine chilling) হাসি শুনতে পান, সেই হাসি আর কারও নয়, তার মৃত স্ত্রী মনিমালিকার। এরপরে আবার আমরা দেখতে পাই সেই স্কুল টিচারকে, যিনি এতক্ষন গল্পটি (story) শোনাচ্ছিলেন, এবং তিনি আর কেউ নন, মনিমালিকার স্বামী। আশ্চর্যজনকভাবে তিনিও হারিয়ে যান সিনেমার (movie) শেষে। সত্যজিৎ রায়ের পরিচালনার দক্ষতায় এবং ছবির কলাকুশলীদের অসামান্য অভিনয়ে এই ক্লাসিক (classic) সিনেমটি যেন পর্দায় জীবন্ত হয়ে ওঠে!

আরো পড়ুনঃ বাংলা ও হিন্দিতে তৈরি দেশপ্রেমের ছবি (Patriotic Movies)

#০৩ ক্ষুধিত পাষাণ

these-are-the-must-watch-bengali-classic-horror-films 03হ্যাঁ, ঠিকই ধরেছেন, রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরের গল্পের অনুপ্রেরণাতেই তৈরি হয়েছিল সিনেমাটি। তবে সিনেমার গল্পে ভয় যতটা না লাগে, তার থেকে কষ্ট বেশি হয়। কারণ সিনেমাটি হরর (horror) স্টোরি ঠিকই, তবে প্রেম যেন একটু বেশিই রয়েছে গল্পে। সৌমিত্র চট্টোপাধ্যায় এবং অরুন্ধতি দেবীর অসামান্য অভিনয় দক্ষতা এবং স্বানামধন্য পরিচালক তপন সিনহার পরিচালনায় এই ক্লাসিক (classic) সিনেমাটি দর্শকের মনে বেশ গভীর ছাপ ফেলেছে, আজও!

ছবি সৌজন্যে – YouTube এবং Pexels

POPxo এখন ৬টা ভাষায়! ইংরেজি, হিন্দিতামিল, তেলুগু, মারাঠি আর বাংলাতেও!

এগুলোও আপনি পড়তে পারেন

দেখে নিন ২০১৯ এর সেরা বাংলা সিনেমা

জনপ্রিয় গায়কের কণ্ঠে কয়েকটি সেরা বাংলা গান