Advertisement

লাইফস্টাইল

এখন থেকে খালি পায়ে (barefoot) হাঁটা অভ্যেস করুন

Debapriya BhattacharyyaDebapriya Bhattacharyya  |  Feb 26, 2019
এখন থেকে খালি পায়ে (barefoot) হাঁটা অভ্যেস করুন

Advertisement

“সকাল সকাল উঠে খালিপায়ে ঘাসের ওপরে হাঁটবি, দেখবি শরীর মন সব ভালো থাকবে” – এই কথাটা আমার দাদু আমাকে বলতেন। এমনকি ছোটবেলাতে দাদু আমাকে সঙ্গে করে বাড়ির লাগোয়া পার্কেও নিয়ে যেতেন ভোর ভোর, তারপরে জুতো খুলে খালি পায়ে বেশ কিছুক্ষন ঘাসের ওপরে হাঁটাহাঁটি করে বাড়ি ফেরা হত। কিন্তু এখন সেই পার্কও নেই আর সত্যি কথা বলতে কি সময়ও নেই। তবুও মাঝেমাঝেই যখনি সুযোগ পাই ঘরের মধ্যেই খালি পায়ে হেঁটে নিই। আসলে খালি পায়ে হাঁটার অনেকগুলো উপকারিতা আছে, আপাতত ৫টা উপকারিতা জানাচ্ছি –

১। অনিদ্রারোগ সারে

top-10-health-benefits-of-walking-barefoot 01অনেকেই মনে করেন যে সকাল সকাল খালি পায়ে ঘাসের ওপর হাঁটলে অনিদ্রারোগ অর্থাৎ ইন্সম্নিয়া কমে যাবার সম্ভাবনা থাকে। যেহেতু খালি পায়ে হাঁটলে পায়ের ঠিকঠাক প্রেশার পয়েন্টে ঠিকঠাক চাপ পড়ে ফলে স্ট্রেস অনেকটাই কমে যায় এবং ফলস্বরূপ অনিদ্রারোগ সেরে যাবার সম্ভাবনা অনেকটাই বৃদ্ধি পায়।

২। চোখের দৃষ্টি ভালো হয়

পায়ের পাতায় একটা প্রেশার পয়েন্ট রয়েছে যা অপটিক্যাল নার্ভের সাথে যুক্ত। খালিপায়ে হাঁটলে এই পয়েন্টে একটা চাপ পড়ে যা চোখের নার্ভকে স্ট্রং করে।

৩। শরীরের রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বৃদ্ধি পায় 

বাচ্চারা খালি পায়ে ঘুরে বেড়াতে এবং খেলতে ভালোবাসে। যেহেতু খালি পায়ে হাঁটলে বা দৌড়লে নার্ভের ওপরে চাপ পড়ে এবং নার্ভের সমস্যা দেখা দেয়না, কাজেই ছোটবেলা থেকেই শরীরে কোনরকম রোগও বাসা বাধতে পারে না।

৪। নার্ভের সমস্যা দেখা দেয় না

আমাদের সারা শরীরেই প্রচুর অ্যাকুপ্রেশার পয়েন্ট থাকে এবং খালি পায়ে হাঁটাকালীন সেই সব পয়েন্টগুলোতে যে প্রেশার পড়ে তাতে আমাদের শরীরের নানা নার্ভ এবং শিরা-উপশিরা স্টিম্যুলেট হয়ে যায় ফলে নার্ভের সমস্যা প্রতিহত হয় এবং ব্লাড প্রেশার নিয়ন্ত্রনে থাকে।

৫। হরমোনাল সমস্যা এবং মেন্সট্রুয়েশন সমস্যা থেকে মুক্তি পাওয়া যায়

যখন শরীরে হরমোনের ভারসাম্য ঠিক থাকেনা, তখন নানারকম শারীরিক সমস্যা দেখা দেয়, তার সাথে মুড স্যুইং-এর সমস্যাও দেখা দেয়। পিরিয়ড আরম্ভ হবার আগে কিম্বা পিরিয়ড চলাকালীন আমাদের মধ্যে অনেক মহিলারই মাথায় যন্ত্রণা, পেট ব্যাথা, অ্যাকনে, কোষ্ঠকাঠিন্য, সোয়েলিং-এর মতো সমস্যা দেখা দেয়। সেইসময়ে নরম জায়গায় খালিপায়ে হাঁটলে এই সমস্যাগুলি প্রশমিত হয়।

খালি পায়ে (barefoot) হাঁটা – কয়েকটা সাধারণ প্রশ্ন ও তার উত্তর

প্রশ্ন : খালি পায়ে হাঁটলে কি কোন রোগ হতে পারে?

উত্তর : আপনি যে জায়গাতে খালি পায়ে হাঁটছেন, সেই জায়গাটি যদি পরিস্কার হয় এবং কোনরকম রাসায়নিক পদার্থ কিম্বা অন্য কোন ময়লা সেখানে যদি না থাকে তাহলে কোনরকম সংক্রামণ হবার কোন আশঙ্কাই নেই। যদি আপনার পায়ে কোনরকম চোট বা কাটা থাকে, তাহলে যতক্ষণ পর্যন্ত না সেই ক্ষতস্থান ঠিক হচ্ছে ততক্ষন খালি পায়ে হাঁটবেন না।

প্রশ্ন : সমুদ্রের পাড়ে খালি পায়ে হাঁটা কি সেফ?

top-10-health-benefits-of-walking-barefoot 02উত্তর : অনেককেই বলতে শোনা যায় যে সমুদ্রের পাড়ে নাকি খালিপায়ে হাঁটলে শরীর ভালো থাকে। তবে আপনি যদি একটু সতর্কভাবে সমুদ্রের পাড়ে খালি পায়ে হাঁটেন, তাহলে তো সেটা সেফই। আসলে অনেকেই বিচ নোংরা করেন, যেমন কাঁচের বোতল কিম্বা অন্যান্য আবর্জনা ফেলেন; একটু খেয়াল করে চলবেন, তাহলেই আর কোন সমস্যা হবে না।

প্রশ্ন : খালি পায়ে ঘাসের ওপরে হাঁটলে কি চোখ ভালো থাকে?  

উত্তর : পায়ের নিচের অংশে একটা প্রেশার পয়েন্ট আছে যা সরাসরি আমাদের অপটিক্যাল নার্ভের সাথে যুক্ত। খালিপায়ে হাঁটলে এই পয়েন্টে একটা চাপ পড়ে যা চোখের নার্ভকে স্ট্রং করে।

প্রশ্ন : খালি পায়ে হাঁটলে কি পিঠে ব্যাথা হবার সম্ভাবনা আছে?

উত্তর : এটা সম্পূর্ণ ভুল ধারনা। খালি পায়ে হাঁটলে পিঠে আর কোমরে ব্যাথা তো হয়না, উল্টে এই ব্যাথাগুলো সারার সম্ভাবনা অনেক বেড়ে যায়। যেহেতু খালি পায়ে হাঁটলে পায়ের নার্ভে চাপ পড়ে তাতে শরীরের ফ্রি-র‍্যাডিক্যালস কমে এবং স্টিফ মাংসপেশি ল্যুজ হতে সাহায্য করে।

POPxo এখন ৬টা ভাষায়! ইংরেজি, হিন্দি, তামিল, তেলুগু, মারাঠি আর বাংলাতেও!