লাইফস্টাইল

শরীর সুস্থ রাখতে এবং ওজন না বাড়াতে চিনি বা মিষ্টির বিকল্প হিসেবে এই খাবারগুলি খেতেই পারেন

popadminpopadmin  |  Sep 11, 2019
শরীর সুস্থ রাখতে এবং ওজন না বাড়াতে চিনি বা মিষ্টির বিকল্প হিসেবে এই খাবারগুলি খেতেই পারেন

অবাঙালিদের মধ্যে কেউ-কেউ মিষ্টি খেতে খুব ভালবাসেন, আবার কেউ শুধু ঝাল বা টক। কিন্তু আমরা, মানে বাঙালি হলাম গিয়ে একেবারে অন্য ধাতুর। আমরা মাছ-মাংস দিয়ে তৈরি ঝাল-ঝাল নানা পদ যেমন পাত পেড়ে খাই, তেমনই মিষ্টি খেতেও আমাদের জুড়ি মেলা ভার। কেউ কেউ তো এতটাই মিষ্টি পাগল হয় যে শুধু শুধু চিনিও খেয়ে নেয়। কিন্তু এখন থেকে এমনটা করা আর চলবে না। বরং আজই নিজেকে একটা কথা দিতে হবে। কী কথা? যে কোনও ধরনের মিষ্টি জাতীয় খাবার এড়িয়ে চলতে হবে। এমন শাস্তি কেন, তাই ভাবছেন? আসলে কি জানেন, চিনি হোক কী চমচম, মিষ্টি জাতীয় খাবার মানেই তাতে রয়েছে প্রচুর পরিমাণে ক্যালরি, যা ওজন তো বাড়াবেই, সঙ্গে হার্টেরও মারাত্মক ক্ষতি হয়ে যেতে পারে। লেজুড় হতে পারে ব্রণ, স্কিন এজিং, ডিপ্রেশন এবং ফ্যাটি লিভারের মতো সমস্যাও। তাই যদি অসুস্থতাকে নিজের বন্ধু বানিয়ে ফেলতে না চান, তা হলে মিষ্টির সঙ্গে দূরত্ব বাড়াতে হবে। মিষ্টি খাওয়ার ইচ্ছে হলে বরং এই খাবারগুলি (foods) চিনির বদলে (sugar substitutes) খেতে পারেন। দেখবেন, মিষ্টি বা চিনি খাওয়ার ইচ্ছেটাই (sugar craving) নিমেষে কমে যাবে!

১. এক বাটি ফল

এবার থেকে মিষ্টি খেতে মন চাইলেই এক বাটি ফল কেটে নিয়ে খেয়ে নিন। ফলে উপস্থিত প্রাকৃতিক চিনির কারণে sugar craving তো কমবেই, সঙ্গে ফলে উপস্থিত নানা ভিটামিন, মিনারেল এবং অন্যান্য সব উপকারী উপাদানের গুণে শরীরও সুস্থ থাকবে।

২. জাম

মিষ্টি খেতে মন চাইলে এবার থেকে গোলাপ জামুনের পরিবর্তে জাম খান। এক বাটি জাম খেলেই সুগার কার্ভিং কমবে। সঙ্গে শরীরে ফাইবার এবং অ্যান্টি-ইনফ্লেমেটরি উপাদানের মাত্রা বাড়ার কারণে হার্টের রোগ তো দূরে থাকতে বাধ্য হবেই, পাশাপাশি ডায়াবেটিস এবং পেটের রোগের মতো সমস্যাও ধারে কাছে ঘেঁষতে পারবে না। জামে উপস্থিত অ্যান্টিঅক্সিডেন্টের কারণে দেহের রোগ প্রতিরোধ ব্যবস্থাও আরও শক্তিশালী হয়ে উঠবে। ফলে ছোট-বড় কোনও রোগেরই খপ্পরে পড়ার আশঙ্কা আর থাকবে না।

৩. গুড় নয়তো মধু

চিনি বা মিষ্টি খেতে মন চাইলেই এক চামচ মধু অথবা অল্প করে গুড় খেতে পারেন। গুড় এবং মধু, দুটোই স্বাদে মিষ্টি, একই সঙ্গে স্বাস্থ্যকরও। বিশেষ করে, মধুতে উপস্থিন নানা ভিটামিন-মিনারেলের গুণে অনিদ্রার সমস্যা তো দূরে পালাবেই, সেই সঙ্গে ব্রেন পাওয়ার বৃদ্ধি পেতেও দেখবেন সময় লাগবে না। তাই এবার থেকে চিনির পরিবর্তে খাবার বা পানীয়তে অল্প করে মধু ব্যবহার করতে পারেন। আর যদি সুগার কার্ভিং মাত্রা ছাড়ায়, তা হলে মধুর সঙ্গে গুড় তো রইলই।

৪. চুইংগাম

এক্কেবারে ঠিক শুনেছেন! চিনি নেই, এমন চুইং গাম খেলেও sugar craving কমতে সময় লাগে না। শুধু তাই নয়, এরই সঙ্গে আরও কিছু উপকারও পাওয়া যায়। সুগার ফ্রি চুইংগাম খাওয়ার সময় মুখগহ্বরে থুতুর পরিমাণ বেড়ে যায়, যে কারণে দাঁতের ফাঁকে ক্ষতিকারক ব্যাকটেরিয়াগুলি আর জমে থাকতে পারে না। ফলে ক্যাভিটির মতো সমস্যা যেমন দূরে থাকে, তেমনই মুখের দুর্গন্ধও দূর হয়।

৫. খেজুর

চিনি আর মিষ্টি জাতীয় খাবারের বিকল্প হিসেবে খেজুরকে উপেক্ষা করা সম্ভব নয়। কারণ, এই ফলটি স্বাদে মিষ্টি, সেই সঙ্গে ডায়াটারি ফাইবার, প্রোটিন, আয়রন সহ একাধিক উপকারী উপাদানে ঠাসা। তাই তো সুগার কার্ভিং-এর টোটকা হিসেবে খেজুর খাওয়া শুরু করলে নানা দিক দিয়ে শরীরের উপকার হবেই হবে!

আরও পড়ুন – 

Causes of Sugar Cravings in Hindi

POPxo এখন ৬টা ভাষায়! ইংরেজি, হিন্দি, তামিল, তেলুগু, মারাঠি আর বাংলাতেও!

আপনি যদি রংচঙে, মিষ্টি জিনিস কিনতে পছন্দ করেন, তা হলে POPxo Shop-এর কালেকশনে ঢুঁ মারুন। এখানে পাবেন মজার-মজার সব কফি মগ, মোবাইল কভার, কুশন, ল্যাপটপ স্লিভ ও আরও অনেক কিছু!