Festive

চিনে নিন ভারতের বিভিন্ন রাজ্যের এই ১০টি সাবেকি শাড়ি

Parama SenParama Sen  |  Jun 24, 2019
চিনে নিন ভারতের বিভিন্ন রাজ্যের এই ১০টি সাবেকি শাড়ি

যে যাই বলুক, যতই আমরা আজকাল সালওয়ার-কুর্তায় মন দিই না কেন, শাড়িই হল সেই সনাতনী ভারতীয় পোশাক, যা পরলে মনটাই ভাল হয়ে যায়! সত্যি করে বলুন তো, শাড়ি (saree) ছাড়া পুজোর কেনাকাটা ভাবতে পারবেন? কিংবা সরস্বতী পুজোর সকালে শাড়ি ছাড়া অন্য কিছু পরলে আদৌ মানাবে? আর বিয়ের তত্ত্বে যতই কনেকে সালওয়ার-নাইটি সাজিয়ে দিন না কেন, শাড়িটাই কিন্তু মুখ্য পোশাক হয়ে দাঁড়ায়! তা সে কনের জন্যই বলুন বা প্রণামী হিসেবে। আমরা, বাঙালিরা শাড়ির প্রেমে মজে ছিলাম, আছি এবং থাকব! আমরা ছাড়া শাড়ি নিয়ে এত এক্সপেরিমেন্টও বোধ হয় কেউ করে না! আর ভারতবর্ষের (India) বিভিন্ন প্রদেশের শাড়ি কিনতে তো আমরা খুবই ভালবাসি। তাই আমাদের আলমারিতে ঢাকাইয়ের পাশাপাশি থাকে বোমকাই, পৈঠাণী ও বেনারসি থাকে হাত ধরাধরি করে, থাকে কাঞ্জিভরম, চান্দেরি, বাঁধনি ও আরও অনেক কিছুই। কিন্তু এই শাড়িগুলির কোনটি কোন প্রদেশের এবং তাদের বিশেষত্বই বা কী, তা আমরা অনেকেই ঠিক করে জানি না। ফলে পোচমপল্লী কিনতে গিয়ে আমরা ইক্কত কিনে ফেলি, লহরিয়া আর বাঁধনির তফাত বুঝি না! তাই এই প্রতিবেদনে ভারতবর্ষের কয়েকটি রাজ্যের (states) শাড়ি ও তার বিশেষত্ব নিয়ে আমরা আলোচনা করব, যাতে ভবিষ্যতে আমরা না ঠকি!

আরও পড়ুনঃ বাঙালি শাড়ি পরার নানা স্টাইল

১. ঢাকাই

ইনস্টাগ্রাম

ভাবছেন তো, আমরা কেন এটি দিয়ে শুরু করলাম? আসলে ঢাকাইয়ের মূলত দুটি শ্রেণি হয়। এক, যেটি বাংলাদেশের ঢাকায় তৈরি হয়। অন্যটি তৈরি হয় পশ্চিমবঙ্গে, যেটির নাম টাঙ্গাইল ঢাকাই। কাজেই, এবার থেকে যখন ঢাকাই কিনতে যাবেন, তখন সেটি কোন শৈলীতে বোনা হয়েছে, তা জিজ্ঞেস করে নিতে ভুলবেন না যেন!

২. বেনারসি

ইনস্টাগ্রাম

বেনারসের এই শাড়িটি প্রতিটি বাঙালির আলমারিতে থাকবেই থাকবে। সিল্কের জমির উপরে ভারী সুতোর কাজ, এটিই হচ্ছে বেনারসির বৈশিষ্ট্য। এই কাজের যেমন নানা ধরন আছে, ঠিক তেমনই  নানা ধরনের জমিও আজকাল ব্যবহার হচ্ছে। তাই বাজারে আপনি জর্জেট, শিফন, সাটিন, তসর ইত্যাদি নানা ধরনের জমির বেনারসি পাবেন আজকাল। তবে সিল্কের জমির বেনারসিই হল আসল। তাই কিনতে হলে, সেটিই কিনুন।

৩. বোমকাই

ইনস্টাগ্রাম

উড়িষ্যার এই শাড়িটিও বাঙালিদের মধ্যে খুবই জনপ্রিয়। এটির সিল্ক ও সুতি, দুটি ভার্শনই আছে। পাড়ের কাজে মন্দির ডিজাইন, সারা শাড়িতে ছোট-ছোট ফুল ও আঁচলে ঠাস বুনোটের কাজ, এই শাড়ির বৈশিষ্ট্যগুলি অনেকটা এরকম। তবে আজকাল অনেক আধুনিক ডিজাইনের বোমকাইও বাজারে পাওয়া যায়। তবে খেয়াল রাখবেন, বোমকাই ও ইক্কত, দুটি একই রাজ্যের শাড়ি হলেও, গঠনশৈলী কিন্তু সম্পূর্ণ আলাদা। ইক্কতে জমিতে কোনও কাজ থাকে না। দুটো শাড়ি আলাদা করার এটাই সবচেয়ে ভাল উপায়।

৪. পোচমপল্লী

ইনস্টাগ্রাম

এটি তেলেঙ্গানার শাড়ি। রং ঝলমলে, পাড়ে ঠাস জরির কাজই এই শাড়ির বৈশিষ্ট্য। সেই সঙ্গে সারা শাড়ির জমিতে থাকবে জিওমেট্রিক প্যাটার্নের নকশা। রংচঙে ব্যাপারটা যাঁদের পছন্দ, তাঁরা এই শাড়ি বেছে নিন।

৫. কাঞ্জিভরম

ইনস্টাগ্রাম

যাঁরা রং পছন্দ করেন, কিন্তু সেই সঙ্গে জমাটি কাজও পছন্দ, তাঁদের জন্য সবচেয়ে ভাল অপশন হল কাঞ্জিভরম। এখন শাড়িটির নাম কাঞ্জিভরম নাকি কাঞ্চিপুরম, তা নিয়ে একটু মতানৈক্য আছে। তবে নাম যা-ই হোক, বেনারসির পর সবচেয়ে জমকালো শাড়ি হল এটি। তাই অনেক বাঙালি কনেই বিয়ের সাজে আজকাল কাঞ্জিভরম শাড়ি বেছে নেন।

৬. কাসাভু

ইনস্টাগ্রাম

যাকে আমরা গোদা বাংলায় কেরালা কটন বলি, সেটির আসল নাম হল কাসাভু। এই শাড়িটি পরেই কেরালায় বিয়ের কনে পিঁড়িতে বসেন! সাদা শাড়ির সঙ্গে জরির পাড়, এটিই হল কাসাভু শাড়ি। সিল্ক এবং সুতি, দুটি ভ্যারাইটি পাওয়া যায়। তবে সাদা ছাড়া অন্য রংয়ের কাসাভু পাওয়া যায় না! ওটি আমরা তৈরি করি! 

৭. চান্দেরি

ইনস্টাগ্রাম

যাঁদের হালকা, মার্জিত সাজ পছন্দ, তাঁদের জন্য এই শাড়িটি আদর্শ! মধ্যপ্রদেশের এই শাড়িটি বোনার সময় সিল্ক, সুতি ও জরি একসঙ্গে নেওয়া হয়। কিন্তু এই শাড়ি এত সূক্ষ্ম হয় যে, পরলে মনেই হবে না যে, শাড়ি পরেছেন!

৮. বাঁধনি

ইনস্টাগ্রাম

এটিও বাঙালিদের মধ্যে অত্যন্ত জনপ্রিয় একটি শাড়ি। গুজরাতের বন্ধেজ কাজের তৈরি শাড়িই হল বাঁধনি। সুতি, সিল্ক, জর্জেট, শিফন, যে-কোনও মেটেরিয়ালেই তৈরি হতে পারে এই শাড়ি। পরেও আরাম, আবার আধুনিকও।

৯. লহরিয়া

ইনস্টাগ্রাম

এই শাড়িটি গুজরাতের প্রতিবেশী রাজস্থানের তৈরি। এই শাড়িতে টাই অ্যান্ড ডাই মেথড ব্যবহার করা হয়, কিন্তু তা হয় ডায়াগোনালি ভাবে। হালকা জমির কালারফুল এই শাড়ি পরেও আরাম, আবার তা বেশ স্টাইলিশও।

১০. পৈঠাণী

ইনস্টাগ্রাম

এটি মহারাষ্ট্রের শাড়ি। পাকাপাকি ট্র্যাডিশনাল বলতে যদি কিছু বোঝানো যায়, পৈঠাণী হল সেরকম। জমকালো কাজ এবং ততোধিক জমকালো রং, আঁচলে বড়-বড় ময়ূর, এটাই হল সাবেকি পৈঠাণী শাড়ি। তবে কলকাতায় যেসব পৈঠাণী পাওয়া যায়, সেগুলি আদৌ সনাতনী পৈঠাণী নয়। তার রংও হালকা এবং কাজও অন্যরকম!

POPxo এখন ৬টা ভাষায়! ইংরেজি, হিন্দি, তামিল, তেলুগু, মারাঠি আর বাংলাতেও!

এগুলোও আপনি পড়তে পারেন

ঘরে বসে অনলাইন কিনুন কম দামে ভালো শাড়ি

আপনি যদি রংচঙে, মিষ্টি জিনিস কিনতে পছন্দ করেন, তা হলে POPxo Shop-এর কালেকশনে ঢুঁ মারুন। এখানে পাবেন মজার-মজার সব কফি মগ, মোবাইল কভার, কুশন, ল্যাপটপ স্লিভ ও আরও অনেক কিছু!