Advertisement

রিলেশনশিপ

‘পুরুষ’ সম্পর্কে মায়ের থেকে কী কী শেখেন মেয়েরা?

Swaralipi BhattacharyyaSwaralipi Bhattacharyya  |  Feb 18, 2020
‘পুরুষ’ সম্পর্কে মায়ের থেকে কী কী শেখেন মেয়েরা?

আপনার বয়স ১৫ হোক বা ২৫। ৩৫ বা ৫৫ হলেও আপত্তি নেই। মায়ের (mother) কাছ থেকে প্রতিনিয়ত কিছু না কিছু শিখছেন। মা এমন একটা সম্পর্কের নাম একটা বয়সের পর আমাদের সবচেয়ে প্রিয় বন্ধু হয়ে ওঠেন। আবার কখনও বা আমাদের সবচেয়ে কড়া সমালোচকও। এই পৃথিবীর আলো দেখালেন যিনি, তিনি যেন আমাদের আয়না। সামনে দাঁড়ালে ভিতরের পুরোটা পড়ে ফেলতে পারেন মা। মন খারাপ হোক বা পরীক্ষায় ভাল রেজাল্ট। অথবা প্রথম প্রেমে পড়ার মুহূর্ত, কিছুই যেন মায়ের কাছে লুকিয়ে রাখার উপায় নেই। এমন বন্ধুর সঙ্গে কত কিছু নিয়েই তো নিত্যদিন আলোচনা চলছে। কত কিছু হাতে ধরে শিখিয়ে দিচ্ছেন। কত কিছু আবার মুখে বললেই বুঝে ফেলছেন আপনি।

মেয়েদের সঙ্গে মায়েদের সম্পর্কটা ঠিক বলে বা লিখে ব্যখ্যা করা যায় না সম্ভবত। আর মায়ের সঙ্গে মেয়েদের এই গল্পের ঝুড়িতে অবশ্যই থাকে ছেলেদের অর্থাৎ পুরুষদের (Men) প্রসঙ্গও। সেই ছেলে আপনার বাবা হতে পারেন। আপনার দাদা বা ভাই হতে পারেন। কোনও আত্মীয় হতে পারেন। বন্ধু হতে পারেন। হতে পারেন প্রেমিক বা স্বামীও। আপনি যখন ১৫-র কিশোরী, তখন ছেলেদের নিয়ে এক রকম গল্প হয় মায়ের সঙ্গে। আবার আপনি যকন ৩৫-এর বিবাহিত তখনও ছেলেদের নিয়ে আলোচনা চলে মায়ের সঙ্গেই। এই আলোচনায় ঠিক কী কী উঠে আসে? মায়েরা পুরুষদের সম্পর্কে কী কী শেখান মেয়েদের? 

  • সম্মান। পুরুষকে সম্মান করতে মেয়েদের শেখান মায়েরাই।
  • বন্ধু। পুরুষও বন্ধু হতে পারেন। বাড়িয়ে দিতে পারেন সাহায্যের হাত। তাই পুরুষকে প্রতিপক্ষ নয়, বরং বন্ধু ভাবতে শেখান মায়েরা।
  • বিশ্বাস। পুরুষ বন্ধু হোক বা আত্মীয়, প্রাথমিক ভাবে তাঁকে বিশ্বাস তো করতেই হবে। এ শিক্ষা মায়েদেরই। হ্যাঁ, এটাও ঠিক, বিশ্বাস করে ঠকতে হয় অনেক সময়। সেই পরিস্থিতি শক্ত হাতে মোকাবিলা করার টোটকাও থাকে মায়েদের আঁচলে। কিন্তু বিশ্বাস না করে ঠকে যাওয়ার শিক্ষা আশা করি কোনও মা দেন না।
  • সব পুরুষই খারাপ নন। এ কথাও ছোট্ট মেয়েটি যেমন বুঝিয়ে দেন মা, যাতে রাস্তায় বেরিয়ে সে বিপদে না পড়ে। আবার তেমনই কোনও কোনও পুরুষ খারাপ হতে পারেন। কীভাবে তা বোঝা সম্ভব, মেয়েকে উপায় বাতলে দেন সেই মা।
  • কোনও কাজই কঠিন নয়। পুরুষের কাঁধে কাঁধ মিলিয়ে মেয়েকে সমান কাজ করার উৎসাহ দেন মা। সমাজে কোনও কাজ আলাদা করে পুরুষের জন্য নির্দিষ্ট হতে পারে না। এটা তো মা শিখিয়েছেন, তাই না?
  • নিজের স্বামীকে যত্ন বা সেবা করার শিক্ষা দেন মা। খারাপ হোক ভাল হোক, সব সময়েই সঙ্গীর সাপোর্ট সিস্টেম হওয়ার পরামর্শ দেন মা। আবার ছেলেদেরও একই ভাবে মেয়েদের পাশে দাঁড়ানোর পরামর্শও দেন ছেলের-মায়েরা। একথা অস্বীকার কোনও জায়গা নেই। 

আরও পড়ুন, মায়ের কাছ থেকে এই ১০টি রূপচর্চার কায়দা কি আপনিও শিখেছেন?

সাধারণ কিছু বিষয় নিয়ে আলোচনা করার চেষ্টা করলাম আমরা। আপনি ব্যতিক্রম হতেই পারেন। আপনি পুরুষ সম্পর্কে মায়ের থেকে কী কী শিখেছেন, আমাদের সঙ্গে শেয়ার করতে পারেন। 

POPxo এখন ৬টা ভাষায়! ইংরেজি, হিন্দি, মারাঠি আর বাংলাতেও!

২০২০ শুরু করুন আমাদের দারুণ দারুণ প্ল্যানার আর স্টেটমেন্ট সোয়েটশার্ট দিয়ে। এগুলো সবকটাই আপনারই মতো একশ শতাংশ মজার এবং অসাধারণ! ওহ হ্যাঁ, শুধুমাত্র আপনার জন্য রয়েছে ২০ শতাংশ ছাড়ের ব্যবস্থাও। দেরি কিসের আর, এখনই POPxo.com/shop থেকে কেনাকাটা সেরে ফেলুন আর নিজেকে আরেকটু পপ আপ করে ফেলুন!