ডি আই ওয়াই লাইফ হ্যাকস

করোনা আতঙ্কে লকডাউন জারি হল! বাড়িতে বসে এই সময়টিকে কাজে লাগান

Debapriya BhattacharyyaDebapriya Bhattacharyya  |  Mar 23, 2020
করোনা আতঙ্কে লকডাউন জারি হল! বাড়িতে বসে এই সময়টিকে কাজে লাগান

বিগত কিছুদিন ধরে যে আতঙ্কে সারা বিশ্ববাসী ভুগছে, তার নাম হল করোনা ভাইরাস (coronavirus)। আরও খুলে বলতে গেলে বলা যায় কোভিড-১৯। এতদিনে সোশ্যাল মিডিয়া, টেলিভিশন এবং পাড়ার চায়ের দোকান থেকে প্রাপ্ত খবরে নিশ্চয়ই জেনে গিয়েছেন যে এটি কী, কতটা ভয়ঙ্কর এবং কী কী ভাবে এই জীবাণু ছড়াতে পারে! সরকার থেকে বারবার ঘোষণা করা হয়েছে যে কিছুদিনের জন্য সতর্ক থাকুন, জমায়েত করবেন না, খুব প্রয়োজন না পড়লে বাইরে বেরবেন না ইত্যাদি। কিন্তু আমরা ভারতবাসী এবং হুজুগে নাচতে আমরা বড্ড ভালবাসি। কাজেই গতকাল যখন বলা হয়েছিল কেউ বাড়ি থেকে বেরবেন না এবং বিকেলে নিজের নিজের বাড়ির বারান্দা থেকেই হাততালি দিয়ে সকল স্বাস্থ্যকর্মীকে একটা ধন্যবাদ দেবেন তাঁদের অক্লান্ত পরিশ্রমের জন্য, কিছু মানুষ রাস্তায় গিয়ে, জনসমাগম করে এবং র‍্যালি করে থালা বাটি হাতা খুন্তি সব নিয়ে বেড়িয়ে পড়েছিলেন! এই কাজের পরিণতি ভয়াবহ হতে পারে। আজ থেকে ৩১শে মার্চ পর্যন্ত লকডাউন (lockdown)!

লকডাউন অর্থাৎ গৃহবন্দি দশা। শুধুমাত্র আপৎকালীন জিনিসপত্র বাদে বাকি সব বন্ধ থাকবে যাতে আমাদের একে অন্যের ছোঁয়ায় করোনা ভাইরাসের মারণথাবা আর না ছড়ায়। আপনাকে প্রতিদিন বাড়ি থেকে বেরতে হয়, এই ক’দিন আপনি কী করবেন? বাড়িতে বসে বসে বোর হবেন, তাই ভাবছেন কি? আমরা বলি কী, কয়েকদিন যখন সুযোগ পেয়েছেন, বাড়ির সব না-করা কাজগুলো বরং সেরে ফেলুন! কী কী কাজ বাকি আছে যা আপনি অনেকদিন ধরে করবেন ভাবছিলেন একটা লিস্ট তৈরি করে ফেলুন, আর এক এক করে সেরে ফেলুন। আচ্ছা আচ্ছা, আমরাই না হয় আপনাকে সাহায্য করছি!

লকডাউনে বাড়িতেই থাকুন, কিন্তু বোর না হয়ে

graphitti to prevent coronavirus

করোনা ভাইরাস প্রতিরোধে নিজেই না হয় নিজেকে সাহায্য করুন (ছবি – শাটারস্টকের সৌজন্যে)

১। শেষ কবে আপনি আলমারি গুছিয়েছিলেন বলুন তো? যখনই আলমারির দরজা খোলেন তখনই আঁতকে উঠতে হয়! কুর্তি পান তো লেগিংস পান না, শাড়ির সঙ্গে ম্যাচিং ব্লাউজ পান না, আবার কখনও কখনও তো কোনও কিছুই খুঁজে পান না। প্রতিবারই ভাবেন এবার আলমারি গুছিয়েই ফেলব, কিন্তু সেই শুভদিন আর আসে না। এক কাজ করুন, এই লকডাউনের পরিস্থিতিটা কাজে লাগান এবং এই সুযোগে আলমারি গুছিয়ে ফেলুন।

২। দেখুন, এখন যেহেতু চারদিকে করোনা ভাইরাসের এক আতঙ্ক ছড়িয়েছে, এই পরিস্থিতিতে আপনার বাড়িঘরও পরিষ্কার রাখা একান্ত প্রয়োজন। অন্য সময়ে ব্যস্ততায় যখন আপনি বাড়ি পরিষ্কার করতে পারেন না, এখন বরং সেই কাজটি করে ফেলুন। আসবাবপত্রের জায়গা বদল করুন; খাটের নীচে, বাথরুমের কোনায়, জানলার বাইরের ময়লাগুলো ঘষে মেজে তুলে ফেলুন।

৩। অনেকদিন ধরে যে ওয়েবসিরিজগুলো দেখবেন ভেবেছিলেন, অথবা বইমেলায় যে বইগুলো কিনেছিলেন কিন্তু সময়ের অভাবে পড়া হয়ে ওঠেনি, সেই সিরিজগুলো দেখে নিন বা বইগুলো পড়ে ফেলুন। বাড়িতে থাকার এই সুযোগ আবার কবে পাবেন! তাছাড়া করোনা ভাইরাসের আতঙ্কে গৃহবন্দি হয়ে যদি একটু ‘বেরই বেরই’ মন হয়, বই পড়ে বা সিনেমা দেখে নিজেকে ব্যস্ত রাখুন।

৪। বাড়িতে পোষ্য আছে? তাহলে তার সঙ্গেও বেশ কিছুটা সময় কাটান। যদি গাছ ভালবাসেন, তাহলে নিজের এক চিলতে বারান্দায় একটু গাছের পরিচর্যা করুন।

৫। এগুলো কিছুই না থাকলে অনলাইনে ভিডিও দেখে দেখে বরং নতুন কিছু শিখুন। সে কোনও হাতের কাজ হতে পারে, মোমবাতি তৈরি হতে পারে, আঁকা হতে পারে আবার রান্নাও হতে পারে!

মোটকথা, আর যাই করুন না কেন, এই ক’দিন বাড়ি থেকে বেরবেন না!  

POPxo এখন চারটে ভাষায়! ইংরেজি, হিন্দি, মারাঠি আর বাংলাতেও!

২০২০ শুরু করুন আমাদের দারুণ দারুণ প্ল্যানার আর স্টেটমেন্ট সোয়েটশার্ট দিয়ে। এগুলো সবকটাই আপনারই মতো একশ শতাংশ মজার এবং অসাধারণ! ওহ হ্যাঁ, শুধুমাত্র আপনার জন্য রয়েছে ২০ শতাংশ ছাড়ের ব্যবস্থাও। দেরি কিসের আর, এখনই POPxo.com/shop থেকে কেনাকাটা সেরে ফেলুন আর নিজেকে আরেকটু পপ আপ করে ফেলুন!