বাড়িতে বসেই শুট করে তৈরি হল শর্ট ফিল্ম 'ফ্যামিলি', দেখুন কোন কোন তারকা রয়েছেন

বাড়িতে বসেই শুট করে তৈরি হল শর্ট ফিল্ম 'ফ্যামিলি', দেখুন কোন কোন তারকা রয়েছেন

পরিবার। এই কঠিন সময়ে পরিবারের সঙ্গে থাকতে হবে। করোনার আতঙ্ক গ্রাস করেছে সমগ্র বিশ্বকে। লকডাউন চলছে ভারতে। প্রতিদিন আক্রান্ত এবং মৃত্যুর সংখ্যা বাড়ছে। এই অসহায় পরিস্থিতির মধ্যে প্রত্যেকেই দুশ্চিন্তায় রয়েছেন। কিন্তু এর মধ্যেই ভাল থাকার চেষ্টা করতে হবে। সেই উদ্যোগে ব্যক্তিগত ভাবে সকলেই সামিল। সেলেবরাও বিভিন্ন ভিডিও আলাদা আলাদা ভাবে শেয়ার করে অনুরাগীদের উদ্ধুদ্ধ করতে চেষ্টা করেছেন। এবার উদ্যোগ সমষ্টিগত।

অমিতাভ বচ্চন, রজনীকান্ত, চিরঞ্জীবী, রণবীর কপূর, আলিয়া ভট্ট, প্রসেনজিৎ চট্টোপাধ্যায়, প্রিয়ঙ্কা চোপড়ার মতো তারকারা ফ্রেম শেয়ার করেছেন। তৈরি হয়েছে একটি নতুন শর্ট ফিল্ম (short film)। নাম ফ্যামিলি (family)। এই কঠিন সময়ে ফিল্মি পরিবার অর্থাৎ ফ্যামিলিকেই যেন তুলে ধরতে চেয়েছেন তারকারা। 

সাড়ে চার মিনিটের ছবিটি শুরু হয়েছে অমিতাভ (Amitabh) বচ্চনকে দিয়ে। চিত্রনাট্য অনুযায়ী, তাঁর কালো চশমা হারিয়ে গিয়েছে। খুঁজে পাচ্ছেন না। সেই চশমার খোঁজেই এক এক করে ফ্রেমে আসেন বিভিন্ন তারকা। লক্ষণীয় বিষয় দুটি। প্রথমত প্রত্যেক তারকা এই শর্ট ফিল্মে নিজের মাতৃভাষায় কথা বলেছেন। দ্বিতীয়ত প্রত্যেকেই নিজের বাড়িতে থেকে শুট করেছেন। 

ফিল্মের শেষে অমিতাভ ভারতের এই ফিল্ম ইন্ডাস্ট্রিকে ফ্যামিলি বলে উল্লেখ করলেন। সকলকে ঘরে থাকার আবেদন জানিয়েছেন। ফিল্ম ইন্ডাস্ট্রির দৈনিক মজুরির কর্মীদের জন্য আগেই সাহায্যের হাত বাড়িয়ে দিয়েছিলেন টলিউড এবং বলিউডের অন্যান্য তারকারা। এবার সাহায্যের ঘোষণাও করেছেন অমিতাভও। সোনি পিকচার্স ও কল্যণ জুয়েলার্সের সঙ্গে গাঁটছড়া বেঁধে ওই কর্মীদের বাড়িতে চাল, ডাল পৌঁছে দিতে উদ্যোগী হয়েছেন বিগ বি।

কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্য মন্ত্রকের রিপোর্ট অনুযায়ী, সোমবার সকাল ৯টা থেকে মঙ্গলবার সকাল পর্যন্ত অর্থাৎ গত ২৪ ঘণ্টায় নতুন করে আক্রান্ত হয়েছেন ৩৫৪ জন। অন্য দিকে, সোমবার সন্ধ্যা ৬টা থেকে মঙ্গলবার সকাল ৯টা পর্যন্ত অর্থাৎ গত ১৫ ঘণ্টায় নতুন আক্রান্ত হয়েছেন ১৪০ জন। ফলে মোট আক্রান্তের সংখ্যা বেড়ে হয়েছে ৪৪২১। সোমবারই মৃত্যুর সংখ্যা একশো ছাড়িয়ে গিয়েছিল। ওই দিন সকালে মৃতের সংখ্যা ছিল ১০৯। গত ২৪ ঘণ্টায় নতুন করে আরও ৫ জনের মৃত্যু হয়। ফলে এই মুহূর্তে দেশে মোট মৃতের সংখ্যা বেড়ে হয়েছে ১১৪। সুস্থ হয়েছেন ৩২৫ জন।

আক্রান্তের সংখ্যার নিরিখে রাজ্যগুলির মধ্যে শীর্ষে রয়েছে মহারাষ্ট্র। সেখানে আক্রান্তের সংখ্যা বেড়ে হয়েছে ৭৪৮। মৃত্যু হয়েছে ৪৫ জনের। তবে গত ১২ ঘণ্টায় নতুন করে মৃত্যুর কোনও খবর পাওয়া যায়নি ওই রাজ্যে। সুস্থ হয়ে উঠেছেন ৫৬ জন। আক্রান্তের সংখ্যার নিরিখে দ্বিতীয় স্থানে রয়েছে তামিলনাড়ু। ওই রাজ্যে মোট আক্রান্ত ৬২১ জন। গত ১২ ঘণ্টায় নতুন করে আক্রান্ত হয়েছেন ৫০ জন। মৃত্যু হয়েছে ৫ জনের। এর পরই রয়েছে দিল্লি। সেখানে আক্রান্তের সংখ্যা ৫২৩। মৃত্যু হয়েছে ৭ জনের। গত ২৪ ঘণ্টায় নতুন করে কারও মৃত্যু হয়নি।

POPxo এখন ৬টা ভাষায়! ইংরেজি, হিন্দি, মারাঠি আর বাংলাতেও!

বাড়িতে থেকেই অনায়াসে নতুন নতুন বিষয় শিখে ফেলুন।