চোখে ট্যাটু করতে গিয়ে অন্ধ হয়ে গেলেন মডেল! ফ্যাশন করার আগে আপনি সতর্ক তো?

চোখে ট্যাটু করতে গিয়ে অন্ধ হয়ে গেলেন মডেল! ফ্যাশন করার আগে আপনি সতর্ক তো?

কায়দা করে শরীরের বিভিন্ন অংশে হয়তো ট্যাটু (tattoo) করিয়েছেন আপনি। এটাই হয়তো আপনার স্টাইল স্টেটমেন্ট। আর সত্যিই তো, ট্যাটু করা তো এখন সাজের অঙ্গ। ফ্যাশনেবল হতে চাইলে আপনি ট্যাটু করাতেই পারেন। কিন্তু এর বিপদও রয়েছে। সম্প্রতি ট্যাটু করিয়ে চোখের দৃষ্টিশক্তি হারালেন এক মডেল। ফলে বিপদ ঘটতে পারে যে কোনও দিন। এখনই সচেতন হওয়া জরুরি।

চোখে ট্যাটু করে দৃষ্টি শক্তি হারানো ওই যুবতীর নাম আলেক্সান্দ্রা সাদোয়াস্কা। তিনি পোল্যান্ডের রোক্ল-এর বাসিন্দা। এক ব্রিটিশ দৈনিকের প্রতিবেদনে প্রকাশ, ২৫ বছরের ওই মডেল পিয়ট এ নামের এক শিল্পীর কাছে স্কেরাল ট্যাটু করাতে গিয়েছিলেন। ট্যাটু করে ফেরার পর থেকেই চোখে প্রচন্ড যন্ত্রণা শুরু হয়। সে কথা শিল্পীকে জানালে তিনি তাঁকে পেনকিলার খাওয়ার পরামর্শ দেন। কিন্তু তার পর থেকেই অ্যালেক্সান্দ্রার দৃষ্টিশক্তি ঝাপসা হতে শুরু করে।

বিখ্যাত গায়ক পোপেককে অনুসরণ করতে চেয়েছিলেন আলেক্সান্দ্রা। সে কারণেই চোখের সাদা অংশে ট্যাটু করিয়ে চিরতরে কালো করিয়ে নেওয়ার ইচ্ছে ছিল তাঁর। অথচ ট্যাটু করার জন্য যে কালির ব্যবহার করা হয়েছিল, তা নাকি চোখে ব্যবহার করার উপযুক্ত নয়। এমনটাই জানিয়েছেন বিশেষজ্ঞরা। এই ঘটনার জেরে ওই ট্যাটু শিল্পীকে তিন বছরের কারাদণ্ডের নির্দেশ দিয়েছে সে দেশের আদালত। 

আলেক্সান্দ্রা তাঁর দৃষ্টিশক্তি ফিরিয়ে আনার জন্য তিনটি পদ্ধতি ব্যবহার করেছিলেন বলে জানা গিয়েছে। তবে চিকিত্সকরা জানিয়েছেন, ট্যাটুর যে রঞ্জকটি তাঁর টিস্যুতে পৌঁছেছে ফলে দৃষ্টি ফিরে পাওয়ার আর কোনও আশা নেই। আলেক্সান্দ্রার কথায়, "ক্ষতিটা খুব গভীর। আমার দৃষ্টি ফিরে পাওয়ার ব্যাপারে চিকিৎসকরাও আশাবাদী নন। হয়তো আমি সম্পূর্ণ অন্ধ হয়ে যাব।" ওই ট্যাটি শিল্পীর ​​বিরুদ্ধে আদালতে শীঘ্রই মামলা শুরু হবে বলে মনে করা হচ্ছে।

এই ঘটনার কথা ছড়িয়ে পড়তেই চাঞ্চল্য শুরু হয়েছে বিশ্বজুড়ে। রীতিমতো আতঙ্ক ছড়িয়েছে। কারণ ট্যাটু এখন যেন ফ্যাশনের অঙ্গ। অনেকেই শরীরের বিভিন্ন অংশে ট্যাটু করান। কেউ প্রফেশনালের সাহায্য় নেন। কেউ বা হঠাৎ করে গজিয়ে ওঠা ট্যাটু পার্লারে যান। কিন্তু সেখানে যাঁরা এই কাজ করছেন, তাঁরা কতটা পেশাদার, আদৌ শিখেছেন কিনা, সঠিক রং ব্যবহার করছেন কিনা, এ সব নিয়েই প্রশ্ন রয়েছে বিস্তর। সঠিক ভাবে খোঁজ না নিয়ে ট্যাটু করানোর ফলে অনেকেই চরম বিপদে পড়ছেন। ফলে সতর্কতা জরুরি। প্রাণের বিনিময়ে নিশ্চয়ই কেউ ফ্যাশনেবল হতে চাইবেন না। আলেক্সান্দ্রার ঘটনা প্রমাণ করে দিয়েছে, সতর্কতার অভাব কতটা মারাত্মক হতে পারে। ফলে ট্যাটু করাতেই পারেন। কিন্তু পেশাদারের সাহায্য নিন। এমনকি শরীরে যে অংশে ট্যাটু করাতে চাইছেন, তা আপনার কোনও শারীরিক ক্ষতি করবে কিনা, সে বিষয়েও আগে থেকে চিকিৎসকের পরামর্শ নেওয়া জরুরি বলে মনে করছেন বিশেষজ্ঞরা।

 

POPxo এখন ৬টা ভাষায়! ইংরেজি, হিন্দি, মারাঠি আর বাংলাতেও!

২০২০ শুরু করুন আমাদের দারুণ দারুণ প্ল্যানার আর স্টেটমেন্ট সোয়েটশার্ট দিয়ে। এগুলো সবকটাই আপনারই মতো একশ শতাংশ মজার এবং অসাধারণ! ওহ হ্যাঁ, শুধুমাত্র আপনার জন্য রয়েছে ২০ শতাংশ ছাড়ের ব্যবস্থাও। দেরি কিসের আর, এখনই POPxo.com/shop থেকে কেনাকাটা সেরে ফেলুন আর নিজেকে আরেকটু পপ আপ করে ফেলুন!