করোনার হানা টলিউডে, সপরিবার আক্রান্ত সুরজিৎ বন্দ্যোপাধ্যায়

করোনার হানা টলিউডে, সপরিবার আক্রান্ত সুরজিৎ বন্দ্যোপাধ্যায়

করোনা আতঙ্ক এবং লকডাউনের জেরে প্রায় তিন মাস ঘরবন্দি থাকার পর কিছুদিন আগেই শুটিং শুরু হয়েছে টলিউডে। মূলত সিরিয়ালের শুটিং চলছে সব সতর্কতা মেনেই। কিন্তু তার মধ্যেও করোনায় আক্রান্ত হওয়ার ঘটনা ঘটল। সপরিবার অভিনেতা সুরজিৎ (Surajit) বন্দ্যোপাধ্যায়ের করোনা (corona) পজিটিভ।

ধারাবাহিক 'কোড়াপাখি'তে একটি গুরুত্বপূর্ণ চরিত্রে অভিনয় করছেন সুরজিৎ। লকডাউন পরবর্তী পরিস্থিতিতেও তিনি শুটিং করেছেন। তবে কোথা থেকে সংক্রমণ হয়েছে, সে বিষয়ে নিশ্চিত নন কেউই। চিকিৎসকের পরামর্শ মতো স্ত্রী এবং মেয়েকে নিয়ে আপাতত হোম আইসোলেশনেই রয়েছেন অভিনেতা।

সুরজিতের আক্রান্ত হওয়ার খবর সোশ্যাল মিডিয়ায় শেয়ার করেছেন তাঁর মেয়ে দেবপ্রিয়া। লকডাউনের জেরে কিছুটা অর্থাভাবের কারণেই বাধ্য হয়ে সুরজিৎকে শুটিং শুরু করতে হয়েছিল, সে কথাও লিখেছেন তিনি। "... আমাদের তিনজনেরই রিপোর্ট পসিটিভ এসেছে। আজই। যদিও তিন মাস গৃহবন্দী থেকে এ জিনিস সম্ভব কি প্রকারে হল আমার জানা নেই। বাড়িতে টাকা পয়সার নেহাত বড্ড বেশি টানা টানি পড়ায় বাবাকে shooting join করতে হয়। কিন্তু যতটুকু information আমাদের দেওয়া হয়েছিল, তাতে আমরা জানতাম টলিপাড়া সম্পূর্ণরূপে sanitized আছে। ছিলও হয়তো তাই। হয়তো অন্য কোনওভাবে এসেছে। অনেকে বলছে গোষ্ঠী সংক্রমণ নাকি সবে শুরু হয়েছে। বোধ হয় আমরাই ছিলাম গোষ্ঠী সংক্রমণের প্রথম তিন বলি।"

 

দিন কয়েক আগে সুরজিতের স্ত্রীর প্রথম জ্বর আসে। তারপর থেকেই গলা ব্যথা শুরু হয় সুরজিতের। টেস্ট করানোর পর তিনজনেরই পজিটিভ রেজাল্ট আসে। স্বাস্থ্য দফতরে সমস্ত তথ্য পৌঁছে গিয়েছে বলে দেবপ্রিয়ার পোস্ট থেকেই জানা গিয়েছে। তিনি আরও জানিয়েছেন, একই ঘরে তাঁরা তিনজনেই রয়েছেন। কারণ তিনটি আলাদা ঘরে থাকার মতো আর্থিক সামর্থ্য তাঁদের নেই। যদিও বাড়ির অন্যান্য অংশে যাঁরা রয়েছেন, তাঁদের থেকে নিজেদের সম্পূর্ণ আলাদা রেখেছেন তাঁরা।

সুরজিৎ আক্রান্ত হওয়ার ফলে প্রশ্নের মুখে পড়ল 'কোড়াপাখি'র শুটিং। কারণ ওই ধারাবাহিকের শুটিংয়ের সঙ্গে যুক্ত সব কলাকুশলীরাই বিপদের আওতায় পড়ছেন। সূত্রের খবর, নিয়ম অনুযায়ী, শুটিং চলাকালীন কোনও অভিনেতা করোনায় আক্রান্ত হলে তিনদিন শুটিং বন্ধ রেখে পুরো ফ্লোর স্যানিটাইজ করা হবে। কিন্তু সুরজিৎ নাকি ১০ দিন আগে শুটিং করেছিলেন। ফলে তাঁর ক্ষেত্রে এই নিয়ম প্রযোজ্য নয়। তাই  আগের মতোই ধারাবাহিকের শুটিং চালু থাকবে বলে খবর।  

শুটিং শুরু আগে টলি পাড়ার সমস্ত ফ্লোর স্যানিটাইজ করা হয়েছিল। সব সতর্কতা মেনেই শিল্পী এবং কলাকুশলীরা কাজ করছেন। তা সত্বেও আক্রান্ত হতে পারেন শুটিং ইউনিটের সঙ্গে যুক্ত যে কোনও সদস্য। কারণ শুটিং ছাড়াও তাঁরা অন্যত্র চলাফেরা করছেন। ফলে অন্য জায়গা থেকে আক্রান্ত হওয়ার আশঙ্কা একেবারে উড়িয়ে দেওয়া যায় না। আপাতত সুরজিৎ ও তাঁর পরিবারের দ্রুত আরোগ্য কামনা করছে টলিউড। 

POPxo এখন ৬টা ভাষায়! ইংরেজি, হিন্দি, মারাঠি আর বাংলাতেও!