প্রয়াত বাবার জন্মদিনে মা ও মেয়েকে নিয়ে দুঃস্থ শিশুদের সঙ্গে সেলিব্রেট করলেন ঐশ্বর্যা

প্রয়াত বাবার জন্মদিনে মা ও মেয়েকে নিয়ে দুঃস্থ শিশুদের সঙ্গে সেলিব্রেট করলেন ঐশ্বর্যা

বাবা অর্থাৎ কৃষ্ণরাজ রাই প্রয়াত হয়েছেন বছর দুই আগে। কিন্তু এখনও প্রতি বছর নিয়ম করেই বাবার জন্মদিন (Birthday) সেলিব্রেট করেন সেলিব্রিটি কন্যা ঐশ্বর্যা (Aishwarya) রাই বচ্চন। বুধবার মা বৃন্দা রাই এবং মেয়ে আরাধ্যাকে নিয়ে মুম্বইয়ের কিছু দুঃস্থ শিশুদের সঙ্গে সময় কাটালেন ঐশ্বর্যা। তাদের হাতে তুলে দেন উপহারও। 

সোশ্যাল মিডিয়ায় বাবার ছবি শেয়ার করে ঐশ্বর্যা লিখেছেন, 'আমাদের আনন্দের দিন। হাসির দিন। শুভ জন্মদিন বাবা। সব সময়ের জন্য শুভেচ্ছা।' অভিষেকও সোশ্যাল মিডিয়ায় কৃষ্ণরাজের ছবি শেয়ার করে জন্মদিনের শুভেচ্ছা জানিয়ে লেখেন, 'মিস ইউ'।

২০১৭-এ প্রয়াত হন কৃষ্ণরাজ। তার পর থেকে প্রত্যেক বছরই একটি এনজিওর মাধ্যমে দুঃস্থ শিশুদের সঙ্গে বাবার জন্মদিন সেলিব্রেট করেন তিনি। কেক কেটে, সেই দিন শিশুদের খাওয়ার ব্যবস্থা করেন তিনি। সঙ্গে থাকে উপহার। আর সব জায়গায় মতো এই সেলিব্রেশনেও তাঁর সঙ্গে থাকে আরাধ্যা।

 

Instagram

আরাধ্যাকে সব জায়গায় সঙ্গে নিয়ে যাওয়া নিয়ে সোশ্যাল অডিয়েন্স একাধিকবার ট্রোল করেছে ঐশ্বর্যাকে। কখনও বলা হয়েছে, আরাধ্যা কি হাঁটতে পারে না, সব জায়গায় কেন তিনি মেয়েকে কোলে নিয়ে যান? আবার কখনও বলা হয়েছে, আরাধ্যার কি পড়াশোনা নেই, সব জায়গায় মায়ের সঙ্গে ঘোরে কেন? বেশিরভাগ সময় উপেক্ষা করলেও, কখনও কখনও এ সব ট্রোলিংয়ের জবাব দিয়েছেন ঐশ্বর্যা।

 

Instagram

ছোটবেলায় সব সময় আরাধ্যাকে কোলে নিয়ে ঘুরতেন ঐশ্বর্যা। তার কারণ হিসেবে বলেছিলেন, মেয়ে তাতেই কমফর্টেবল ফিল করে। আর পড়াশোনার প্রশ্নে ট্রোলারদের একহাত নিয়েছিলেন অভিষেক স্বয়ং। কেরিয়ারের শুরু থেকেই ঐশ্বর্যার সঙ্গে সব সময় দেখা গিয়েছে তাঁর মা বৃন্দাকে। সেই ধারাই আরাধ্যার ক্ষেত্রেও বজায় রেখেছেন বলে মনে করেন সিনে মহলের একটা বড় অংশ। শুটিং হোক বা সাধারণ কোনও ইভেন্ট প্রায় সব জায়গাতেই মেয়ে সঙ্গে থাকে। ঐশ্বর্যা ঘনিষ্ঠ মহলে জানিয়েছেন, মেয়েকে ভাল, খারাপ সব রকম পরিস্থিতির সঙ্গে তিনি নিজে পরিচয় করিয়ে দিতে চান। সবটা ওর ছোট থেকেই দেখা, জানা, বোঝা উচিত বলে মনে করেন। আর সে কারণেই সব সময় সঙ্গে থাকে সে।

 

View this post on Instagram

Happy Birthday Dad. Miss you. ❤️

A post shared by Abhishek Bachchan (@bachchan) on

দাদু কৃষ্ণরাজের জন্মদিনে এমন কিছু শিশুর সঙ্গে আরাধ্যা সব কাটায় প্রতি বছর। যাদের সঙ্গে ওর শৈশব মেলে না। যাদের সঙ্গে ওর বড় হওয়ার কোনও মিল নেই। নিজে তাদের হাতে উপহার তুলে দেয়। একসঙ্গে বসে কেকও খায়। ফলে মেয়েকে জীবনের অন্য দিকটা দেখানোও জরুরি বলে মনে করেন ঐশ্বর্যা। সে কারণেই সব অনুষ্ঠানে ও সঙ্গে থাকে। 

POPxo এখন ৬টা ভাষায়! ইংরেজি, হিন্দি, তামিল, তেলুগু, মারাঠি আর বাংলাতেও!

এসে গেল #POPxoEverydayBeauty - POPxo-র স্কিন, বাথ, বডি এবং হেয়ার প্রোডাক্টস নিয়ে, যা ব্যবহার করা ১০০% সহজ, ব্যবহার করতে মজাও লাগবে আবার উপকারও পাবেন! এই নতুন লঞ্চ সেলিব্রেট করতে প্রি অর্ডারের উপর এখন পাবেন ২৫% ছাড়ও। সুতরাং দেরি না করে শিগগিরই ক্লিক করুন POPxo.com/beautyshop-এ এবার আপনার রোজকার বিউটি রুটিন POP আপ করুন এক ধাক্কায়..