'ব্রহ্মাস্ত্র' থেকে ছুটি নিয়ে নিউ ইয়র্কে গেলেন রণবীর-আলিয়া, ছবি প্রকাশ্যে এল

'ব্রহ্মাস্ত্র' থেকে ছুটি নিয়ে নিউ ইয়র্কে গেলেন রণবীর-আলিয়া, ছবি প্রকাশ্যে এল

উফ, যতদিন ব্রহ্মাস্ত্র ছবির শুটিং চলবে, ততদিনই বোধ হয় এঁরা এই ধরি মাছ না ছুঁই পানি গোছের খেলাটা চালিয়ে যাবেন! অবশ্য এঁদের দোষ দিয়ে লাভ নেই। এতদিন ধরে টানা যদি কোনও ছবির শুটিং চলে, তা হলে শুধু স্টার কাস্ট কেন, পরিচালক, প্রযোজক, কলাকুশলীরাও পরস্পরের প্রেমে পড়ে যেতে বাধ্য! নাওয়া নেই, খাওয়া নেই, চব্বিশ ঘণ্টা পরস্পর পরস্পরের মুখ দেখছেন, অভিনয় করছেন, সেলফি তুলছেন, খাওয়াদাওয়া করছেন, একই হোটেলে থাকছেন...আরে, সেলেব্রিটি হলেও মানুষ তো রে বাবা! কতক্ষণ আর আগুন এবং ঘি পাশাপাশি থেকেই দাউদাউ করে জ্বলবে না বলুন তো? যখন সেই রাজামৌলি বাহুবলী নামক ম্যাগনাম ওপাসটির শুটিং করছিলেন, তখনও রোজ শোনা যেত, এবার প্রভাস আর অনুষ্কা শেট্টির চার হাত এক হল বলে, শুটিং শেষ হলেও সো-ও-জা তাঁরা টুওয়ার্ডস ছাদনাতলা হাঁটা লাগাবেন...কই, সেরকম তো কিচ্ছুটি হয়নি! ছবি শেষ, তাঁরা নিজেরাও নিজেদের জীবনে ফিরে গিয়েছেন!

রণবীর কপূর (Ranbir) আর আলিয়া ভট্টেরও (Alia) বোধ করি সেই দশাই হয়েছে! এই ব্রহ্মাস্ত্র যদ্দিন না শেষ হচ্ছে, বেচারারা বুঝেই উঠতে পারছেন না যে, 'আমরা কাপল' নাকি 'কাপল নই!' তাঁদের দোষ নেই, যত দোষ সব অয়ন মুখুজ্জের! কী না কী একখানা ছবি তৈরি করছেন বাপু জানা নেই, ছবিতে অনেকে কাজ পেয়েছেন, তাঁদের বেমালুম পকেটে দু পয়সা আসার বন্দোবস্তও হয়েছে তা ঠিক, কিন্তু ছবিটা ব্রহ্মাস্ত্র না হয়ে দিন-দিন বৃন্দাবন হয়ে যাচ্ছে। অয়ন নিজেই তো দুমদাম মৌনীর প্রেমে পড়ে গেলেন! তা হলে আর রণবীর-আলিয়াকে কী বলবেন! কাজের জায়গাতে তো বটেই, মায় ফ্লাইটেও একইসঙ্গে যাতায়াত করছেন, এয়ারপোর্টেও ইনি ওঁকে আর ও এঁকে চোখে হারাচ্ছেন! এর আগেও গিয়েছেন, এবারও তাঁরা একসঙ্গে আবার ছুটি (break) কাটাতে চললেন!

ইনস্টাগ্রাম

কিছুদিন আগে তাঁরা বেনারস থেকে ছবির শুটিং ছেড়ে দুজনে যখন মুম্বই ফিরে এলেন, নিন্দুকে বলল, ওই দ্যাখো, নিশ্চয়ই ভালবাসার আকাশে সমস্যার মেঘ জমেছে, আলিয়া মুখখানা কেমন গম্ভীরপানা করে বেরচ্ছেন...কী জ্বালা! যেন সেলেব্রিটি হয়েছেন বলে সর্বক্ষণ দাঁর বের করে হিহি করে হাসতে হবে। নিন্দুকে এটা দেখল না যে, রণবীরও সঙ্গেই ছিলেন এবং আলিয়া বারবার পিছন ফিরে তাঁর দিকে তাকাচ্ছিলেনও। তারপর তাঁরা আবার ফ্লাইটে করে কোথায় যেন রওনা দিলেন। আবার এয়ারপোর্টে পাপারাৎজি তাঁদের ছবি তুলল এবং নিন্দুকে আবার বলল, কী আর করবে, ছবিটা তো শেষ করতে হবে, তাই আবার যাচ্ছেন! 

 

ইনস্টাগ্রাম

কিন্তু ব্যাপার হল, তাঁরা আদৌ আবার শুটিং করতে যাননি। তাঁরা শুটিং থেকে মিনি ব্রেক নিয়ে গিয়েছেন সোজা নিউ ইয়র্ক, যেখানে ঋষি কপূর চিকিৎসাধীন। সেখানে রণবীর তাঁর বাবা এবং আলিয়া তাঁর হলেও হতে পারে হবু বাবা-র সঙ্গে কিঞ্চিৎ সময় কাটাবেন বলেই গিয়েছেন। তা ভাল, ঋষি একা-একা বসে বোর হচ্ছেন, মাঝে-মাঝে লোকজনের সঙ্গে ছবি-টবি তোলালে তাঁর ভালই লাগবে! 

ইনস্টাগ্রাম

না, না, এটা এখনকার ছবি নয়। এটা হল আগেরবারের ফোটো অপ! এবারের ছবির জন্য আরও কিছুদিন অপেক্ষা করতে হবে আপনাদের!

 

POPxo এখন ৬টা ভাষায়! ইংরেজি, হিন্দি, তামিল, তেলুগু, মারাঠি আর বাংলাতেও!


আপনি যদি রংচঙে, মিষ্টি জিনিস কিনতে পছন্দ করেন, তা হলে POPxo Shop-এর কালেকশনে ঢুঁ মারুন। এখানে পাবেন মজার-মজার সব কফি মগ, মোবাইল কভার, কুশন, ল্যাপটপ স্লিভ ও আরও অনেক কিছু!