'অভিযাত্রিক'-এর অপু-অপর্ণা, মানে অর্জুন চক্রবর্তী, দিতিপ্রিয়া রায়ের লুক প্রকাশ্যে

'অভিযাত্রিক'-এর অপু-অপর্ণা, মানে অর্জুন চক্রবর্তী, দিতিপ্রিয়া রায়ের লুক প্রকাশ্যে

অপুকে (Apu) তো নিশ্চয়ই মনে আছে আপনার। হ্যাঁ, অপূর্ব রায়। কানেক্ট করতে পারছেন? সেই বিভূতিভূষণের উপন্যাসের অপু? কথাই বলা হচ্ছে। অর্থাৎ সৌমিত্র চট্টোপাধ্যায়ের হাত ধরে যাঁর সঙ্গে দর্শকের পরিচয় করিয়েছিলেন স্বয়ং সত্যজিৎ রায়। সেই অপুই যদি আবার ফিরে আসে ছেলের হাত ধরে? কেমন হবে বলুন তো? 

ঠিক এই ভাবনা থেকেই টলিউডে ছবি তৈরি করছেন পরিচালক শুভ্রজিৎ মিত্র, ছবির নাম 'অভিযাত্রিক' (Avijatrik)। ১৯৫৯ সালে মুক্তি পেয়েছিল সত্যজিৎ রায়ের অপুর সংসার। তার ঠিক ৬০ বছর পর আবার পর্দায় ফিরছে অপু।

সিনে পর্দার নতুন অপুর লুক প্রকাশ্যে এল। এই ছবির পুরোটাই সাদা-কালো ফ্রেমে শুট করেছেন পরিচালক। ফলে চরিত্রদের প্রথম ঝলকও সাদা-কালোতেই। নতুন অপু হলেন অর্জুন চক্রবর্তী। অপর্ণার চরিত্রে অভিনয় করেছেন দিতিপ্রিয়া রায়। সব্যসাচী চক্রবর্তীকে দেখা যাবে শঙ্করের ভূমিকায়। অর্পিতা চট্টোপাধ্যায় অভিনয় করেছেন লীলার চরিত্রে। রানুদির চরিত্রে দেখা যাবে শ্রীলেখা মিত্রকে। বউরানির ভূমিকায় অভিনয় করেছেন তনুশ্রী শঙ্কর। 

 

বউরানির ভূমিকায় অভিনয় করেছেন তনুশ্রী শঙ্কর।

বড় পর্দার অপু কে হবেন, প্রথমে তা নিয়ে সাসপেন্স তৈরি করেছিলেন পরিচালক। বেশ কিছুদিন পরে অপু হিসেবে বাংলাদেশের অভিনেতা আরিফিন শুভর নাম ঘোষণা করেন তিনি। কিন্তু বিভিন্ন কারণে প্রথমে রাজি হলেও পরে আরিফিনের পক্ষে ছবিটি করা সম্ভব হয়নি। পরে ভাবা হয় অর্জুন চক্রবর্তীর (Arjun Chakrabarty) কথা। 

 

অর্পিতা চট্টোপাধ্যায় অভিনয় করেছেন লীলার চরিত্রে।

টেলিভিশন ধারাবাহিক দিয়ে কেরিয়ার শুরু করেন অর্জুন। পরে শুরু করে সিনে পর্দার জার্নি। কিন্তু ‘অভিযাত্রিক’-এর মতো পিরিয়ড ফিল্ম (Film), তাঁর কেরিয়ারে প্রথম। অর্জুন আগেই বলেছিলেন, “আমার নামটা প্রথম বিক্রমদা (ঘোষ) সাজেস্ট করেছিলেন। ওঁর মনে হয়েছিল আমার নামটা সাজেস্ট করা যায়। আই অ্যাম থ্যাঙ্ক ফুল টু হিম। সেসময় অরিন্দমদার (শীল) সঙ্গে একটা শুট করছিলাম। তার পর আমার নম্বরটা পাস করা হয়েছিল। ডিরেক্টর ফোন করেছিলেন।”

 

সব্যসাচী চক্রবর্তীকে দেখা যাবে শঙ্করের ভূমিকায়।

অপুর সঙ্গে ছেলে কাজলের জার্নি নিয়ে গল্প বেঁধেছেন শুভ্রজিৎ। পুরনো স্বাদ বজায় রাখতেই সাদা-কালো ফরম্যাটেই গোটা ছবির শুটিং হয়েছে। কিন্তু বাঙালি দর্শক পর্দার অপু হিসেবে সৌমিত্র চট্টোপাধ্য়ায়কেই দেখতে অভ্যস্ত। সেক্ষেত্রে অর্জুনের কাজটা একটু বেশিই চ্যালেঞ্জিং হয়ে যাবে না? এ প্রশ্নের উত্তরে অর্জুন বলেছিলেন, “আমি আমার মতো করে করার চেষ্টা করব। অপুর সঙ্গে সত্যজিৎ রায়, সৌমিত্র চট্টোপাধ্যায়, শর্মিলা ঠাকুরের মতো অনেকেরই নাম জড়িয়ে রয়েছে! যদিও নাম করতে গেলে শেষ হবে না। তবে প্রথমে ওঁদের নামই মনে পড়ে। হয়তো তুলনা একটা হবেই। অর্জুন ঠিক সৌমিত্রর মতো পারল না, বলবেন হয়তো কেউ। কিন্তু আমি বরাবরই যেটা বলেছি, সব ছবির ক্ষেত্রেই ডিরেক্টরকে ফলো করি। তিনি কী চাইছেন, সেটা আমার কাছে খুব ইমপর্ট্যান্ট।”

 

রানুদির চরিত্রে দেখা যাবে শ্রীলেখা মিত্রকে।

অপু ট্রিলজির শেষ ছবি অপুর সংসার-এ ছেলে কাজলকে কাঁধে তুলে বেরিয়ে গিয়েছিল সে। ফিরছে সেই অপু। ২০১৯-এর দর্শক এই ছবি দেখবেন বটে, তবে অপুর বয়স কিন্তু বাড়েনি! অপুকে বর্তমান যুগের মতো নয়, সেই অতীতের রঙেই দেখাবেন পরিচালক। কলকাতা, বোলপুর, টাকি, বারাণসী মিলিয়ে শুটিং হয়েছে এই ছবির।

POPxo এখন ৬টা ভাষায়! ইংরেজি, হিন্দি, তামিল, তেলুগু, মারাঠি আর বাংলাতেও!

এসে গেল #POPxoEverydayBeauty - POPxo-র স্কিন, বাথ, বডি এবং হেয়ার প্রোডাক্টস নিয়ে, যা ব্যবহার করা ১০০% সহজ, ব্যবহার করতে মজাও লাগবে আবার উপকারও পাবেন! এই নতুন লঞ্চ সেলিব্রেট করতে প্রি অর্ডারের উপর এখন পাবেন ২৫% ছাড়ও। সুতরাং দেরি না করে শিগগিরই ক্লিক করুন POPxo.com/beautyshop-এ এবার আপনার রোজকার বিউটি রুটিন POP আপ করুন এক ধাক্কায়.