অমিতাভ বচ্চন ও আয়ুষ্মান খুরানা এবার একসঙ্গে সুজিত সরকারের ছবিতে!

অমিতাভ বচ্চন ও আয়ুষ্মান খুরানা এবার একসঙ্গে সুজিত সরকারের ছবিতে!

ভিকি ডোনার এবং ভাস্কর ব্যানার্জিকে এবার একসঙ্গে দেখা যাবে রুপোলি পর্দায়! আরে বাবা, বুঝতে পারছেন না তো? দাঁড়ান-দাঁড়ান, বুঝিয়ে দিচ্ছি সহজ করে। পরিচালক সুজিত সরকারের নতুন ছবি ‘গুলাবো সিতাবো’-তে এবার একসঙ্গে পর্দা কাঁপাতে আসছেন ‘ভিকি ডোনার’ আয়ুষ্মান খুরানা (Ayushmann Khurrana) এবং ‘পিকু’র বাবা ‘ভাস্কর ব্যানার্জি’ ওরফে বিগ বি অমিতাভ বচ্চনকে (Amitabh Bachchan)! এর আগে যদিও এই দুই তারকা আলাদা-আলাদাভাবে পরিচালক সুজিত সরকারের (Shoojit Sircar) সঙ্গে কাজ করেছেন, কিন্তু এই তিনজন একসঙ্গে এই প্রথম কাজ করবেন ‘গুলাবো সিতাবো’-তে। এবছর নভেম্বরে এই ছবি মুক্তি পাওয়ার খবর শোনা যাচ্ছে। যত দূর শোনা গেছে, এটি একটি ফ্যামিলি কমেডি।



বিগ বি তাঁর টুইটার হ্যান্ডলে একটি টুইট করে এই ছবিতে কাজ করার কথা ঘোষণা করেছেন। খুব বেশি কিছু যদিও তিনি লেখেননি, শুধু লিখেছেন, “হ্যাঁ, এঁরাই গুলাবো সিতাবোর জুটি, লখনউতে এঁদের যুদ্ধ হবে!”


এর আগে অমিতাভ বচ্চন এবং আয়ুষ্মান খুরানার সঙ্গে সুজিত সরকার আলাদা-আলাদাভাবে কাজ করেছেন ‘পিকু’ এবং ‘ভিকি ডোনার’-এ। হঠাৎ করে এই দু'জনকে নিয়ে একসঙ্গে কাজ করার কথা মাথায় কেন এল, কীভাবেই বা সেই পরিকল্পনা বাস্তবায়িত হল, তা নিয়ে পরিচালকের বক্তব্য, “আমি আর জুহি (জুহি চতুর্বেদী, যিনি সুজিতের অনেক ছবি যেমন ‘ভিকি ডোনার’, ‘পিকু’, ‘অক্টোবর’-এর চিত্রনাট্য লিখেছেন) অনেকদিন ধরেই এই চিত্রনাট্যের উপরে কাজ করছিলাম, আর সত্যি বলতে কী, আমরা জানি যে, জুহি যদি কোনও গল্প লেখে, সেটা বেশ অন্যরকম হয়। জুহি যখন গল্পটা আমাকে শোনায়, আমার প্রথমেই খুব ভাল লাগে। তারপর আমি প্রায় সঙ্গে-সঙ্গেই ওঁর গল্পটা বিগ বি এবং আয়ুষ্মানের সঙ্গে শেয়ার করি। রনিকেও (রনি স্ক্রুওয়ালা) গল্পটা শোনাই। ও রাজি হয়ে যায় ছবিটা প্রযোজনা করতে।” 



পরিচালক সুজিত এ-ও জানিয়েছেন, “পিকু আর ভিকি ডোনার করার পরে আমি বরাবরই ভেবছিলাম যদি অমিতাভ বচ্চন এবং আয়ুষ্মানকে একসঙ্গে পর্দায় দেখতে পান দর্শক, তা হলে বেশ ভাল হয়।  গল্পটা ওঁদের সঙ্গে শেয়ার করার পর ভাবিনি যে, এত তাড়াতাড়ি কাজ শুরু করতে পারব। কিন্তু সকলেই, বিশেষ করে বিগ বি এবং আয়ুষ্মান এত বেশি উৎসাহ দিয়েছেন যে, শুটিং শুরু হয়ে গিয়েছে এবং আশা করছি, এবছরের শেষের দিকেই ছবিটি মুক্তি পাবে।”





যেহেতু ছবির পটভূমিকা নবাবি শহর লখনউকে কেন্দ্র করে, কাজেই ‘গুলাবো সিতাবো’ নামটা ছবির জন্য একদম পারফেক্ট!


পরিচালক সুজিত সরকারের প্রতিটি ছবি বলিউডের অন্য ছবির চেয়ে যে অনেকটাই আলাদা হয়, সেটা আমরা সকলেই জানি। এমনকী, তাঁর আগের ছবিগুলোর সঙ্গেও যে পরের ছবির বিষয়ের, গল্পের এবং ট্রিটমেন্টের কোনও মিল খুঁজে পাওয়া যায় না, সেটাই তাঁর বিশেষত্ব! তার উপরে দু'জন তাবড় অভিনেতাকে একসঙ্গে পর্দায় দেখতে পাওয়া...দর্শক কিন্তু ‘গুলাবো সিতাবো’র থেকে অনেক কিছু আশা করছে পরিচালক মহাশয়! আশা করি, আপনি আমাদের নিরাশ করবেন না! 


ছবি সৌজন্যে - ইনস্টাগ্র্যাম, টুইটার 


POPxo এখন ৬টা ভাষায়! ইংরেজি, হিন্দি, তামিল, তেলুগু, মারাঠি আর বাংলাতেও!