করোনার ভ্যাকসিন না এলে বিয়ে করব না: তৃণা

করোনার ভ্যাকসিন না এলে বিয়ে করব না: তৃণা

একজন 'কৃষ্ণকলি' ধারাবাহিকের মুখ্য চরিত্র। আর একজন 'কলের বউ' ধারাবাহিকে তুমুল সাফল্যের পর ফের টেলিভিশনে ফিরছেন 'খড়কুটো' ধারাবাহিক নিয়ে। তাঁরা নীল ভট্টাচার্য এবং তৃণা (Trina) সাহা।

নীল এবং তৃণার ব্যক্তিগত সম্পর্কের কথা টলিউডে সকলেই জানেন। করোনা আতঙ্ক এবং লকডাউন পরিস্থিতিতে আমরা সকলেই রয়েছি। আর এর মধ্যেই করোনা আক্রান্ত হয়েছেন নীল। এখন কেমন আছেন তিনি? সে প্রসঙ্গে জানতে চাইলে তৃণা বললেন, "নীল একটু বেটার রিকভার করছে। ওষুধ, খাওয়াদাওয়ার মধ্যেই রয়েছে। ও বাড়ি থেকেই শুট করছে। মেকআপ, লাইট সবই নিজেকে করে নিতে হচ্ছে। একটু চাপের বিষয়টা।"

আনলক পিরিয়ডে শুটিং শুরু হওয়ার পর প্রতিদিন ব্যস্ত থাকছেন তৃণা। 'খড়কুটো'র লুক সেট, প্রোমোর কাজ চলছে। হয়তো চলতি মাসের শেষ থেকেই শুরু হবে টেলিকাস্ট। তার আগে ‘হইচই’-এর আসন্ন ছবি ‘ডিটেকটিভ’-এ (Detective) অন্য লুকে দেখা যাবে তৃণাকে। এমন চরিত্রে তৃণাকে আগে দেখেননি দর্শক। ‘হইচই’ প্ল্যাটফর্মে ছবিটি মুক্তি পাবে আগামী ১৪ অগস্ট।

 

এই ছবির মুখ্য চরিত্র মহিমচন্দ্র। অনির্বাণ ভট্টাচার্য রয়েছেন প্রধান চরিত্রে। প্রথমে থিয়েটার রিলিজের কথা ভেবেই এই ছবি তৈরি করা হয়েছিল। কিন্তু বর্তমান পরিস্থিতির কারণে ডিজিটাল রিলিজের সিদ্ধান্ত নিয়েছে প্রযোজনা সংস্থা এসভিএফ। ‘ডিটেকটিভ’ এসভিএফ-এরও প্রথম ডিরেক্ট ওটিটি রিলিজ। এই প্রসঙ্গে সংস্থার যুগ্ম কর্ণধার মহেন্দ্র সোনি বলেন, “এই ছবিটার ডিজিটাল রিলিজ নিয়ে সত্যিই আমি উত্তেজিত। এটিই প্রথম বাংলা ছবি হইচই-তে যার ওয়ার্ল্ড প্রিমিয়ার হবে। আমরা থিয়েটার রিলিজের কথাই ভেবেছিলাম। কিন্তু প্যানডেমিকের কারণে ডিজিটাল রিলিজ করতে হল।”

রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরের কাহিনি অবলম্বনে এই ছবি পরিচালনা করেছেন জয়দীপ মুখোপাধ্যায়। "এখানে আমার বিধবার চরিত্র। কোনও মেকআপ ছিল না। এমন চরিত্র আমার কেরিয়ারে নতুন। আমার টেক্সটা পড়া ছিল না। সাহানাদি ক্যারেক্টার নিয়ে বলেছিল। স্ট্রেট ফরোয়ার্ড মেয়েটি হাসে, মজা করে, তাস খেলে। বিধবা হয়েছে বলে ওর কোনও দুঃখ নেই। সেটাই অ্যাকসেপ্ট করে নিয়েছে। প্রথমে ভেবেছিলাম, কী ভাবে হবে। তারপর কাজটা করতে গিয়ে আর কোনও অসুবিধে হয়নি। জয়দীপদা খুব হেল্প করেছে। অভিনেতাকে অনেক স্পেস দেন উনি। আমার এটাই চাই, কখনও বলেননি। সব সময় বলেছেন, তুই তোর মতো কর। তারপর কিছু চেঞ্জ করার দরকার হলে বলেছেন। একজন অভিনেতার এই স্পেসটা খুব দরকার বলে মনে হয় আমার। ডাবিংয়ের ছিলেন উনি।"

 

একদিকে ‘ডিটেকটিভ’-এর প্রোমোশন অন্যদিকে চলছে 'খড়কুটো'র কাজ। এই ধারাবাহিকে তৃণার চরিত্রটি প্যাম্পার্ড ধনী মেয়ের। একান্নবর্তী পরিবারে সে স্বচ্ছন্দ নয়। এর পাশাপাশি মুম্বইয়ের এক শিল্পীর সঙ্গে একটি মিউজিক ভিডিওতে কাজ করেছেন। আরও একটি ওয়েব কনটেন্ট নিয়ে কথা চলছে। কিন্তু মেগার শুটিং শুরু হলে কি অন্যান্য কাজের জন্য সময় পাবেন? তৃণার কথায়, "আসলে কাজের ইচ্ছে থাকলে সময় বের করে নিতে হবে।"

এত ব্যস্ততার মধ্যে ব্যক্তিগত জীবনে সেটল করার কথা ভাবছেন না? তৃণা হেসে বললেন, "করোনার ভ্যাকসিন না এলে বিয়ে করব না।"

POPxo এখন ৬টা ভাষায়! ইংরেজি, হিন্দি, মারাঠি আর বাংলাতেও!

বাড়িতে থেকেই অনায়াসে নতুন নতুন বিষয় শিখে ফেলুন। শেখার জন্য জয়েন করুন #POPxoLive, যেখানে আপনি সরাসরি আমাদের অনেক ট্যালেন্ডেট হোস্টের থেকে নতুন নতুন বিষয় চট করে শিখে ফেলতে পারবেন। POPxo App আজই ডাউনলোড করুন আর জীবনকে আরও একটু পপ আপ করে ফেলুন!