অভিনেত্রী বিজয়লক্ষ্মী চট্টোপাধ্যায় ব্যক্তিগত জীবনে কেমন?

অভিনেত্রী বিজয়লক্ষ্মী চট্টোপাধ্যায় ব্যক্তিগত জীবনে কেমন?

‘সংসার সুখের হয় রমণীর গুণে’ ধারাবাহিকের আসল রমণীকে মনে পড়ে? অথবা ‘রানু পেল লটারি’র রানু? ঠিকই ধরেছেন অভিনেত্রী বিজয়লক্ষ্মী (Bijaylakshmi) চট্টোপাধ্যায়। তিনি আসলে কেমন?

ক্লাস সিক্স থেকে অভিনয় শুরু করেছেন বিজয়লক্ষ্মী। প্রায় ন’বছর ইন্ডাস্ট্রিতে প্রফেশনালি কাজ করছেন। ইন্দিরা গান্ধী ওপেন ইউনিভার্সিটি থেকে মাস কমিউনিকেশন নিয়ে পড়ছেন তিনি। শ্রী শিক্ষা আয়তনের এই প্রাক্তনীর বাড়িতে রয়েছেন মা আর দিদি। সাত বছরের বড় দিদি পেশায় চিকিৎসক। অন্যান্য তুতো ভাই-বোনেরাও ব্যবসা অথবা পড়াশোনা নিয়ে ব্যস্ত। হঠাৎ অভিনয় শুরু করলেন কীভাবে?

বিজয়লক্ষ্মী বললেন, “আমি ছোট থেকে নাচ শিখতাম। নাচ আমার প্যাশন। নাচের স্কুলে আমাকে দেখেই ‘সংসার সুখের হয় রমণীর গুণে’র জন্য যিনি কাস্টিং করেছিলেন, তাঁর পছন্দ হয়। লুক টেস্ট হওয়ার পর সিলেক্ট করা হয়। পরিবারের কেউই অভিনয়ের সঙ্গে যুক্ত নন। এই পেশা সম্পর্কে কারও কোনও ধারণা ছিল না। তাই প্রথমদিকে মা একটু ভেবেছিল, কিন্তু দিদি তখন মাকে বুঝিয়েছিল।”

কেরিয়ারের শুরু দিকেই সকলের সাহায্য পেয়েছেন বিজয়লক্ষ্মী। তাঁর কথায়,“প্রথম সিরিয়ালে আমাকে নিউ কামার হিসেবে কেউ ট্রিট করেননি। আমার নিজেরও মনে হয়নি। লাবণীদি,চৈতালীদি, রত্না আন্টি, পরাণ দাদু- আমাকে সকলে সব দিক থেকে সাহায্য করেছে। তখন ১৬, ১৮ কখনও ২২ ঘণ্টাও শুটিং করেছি। আমার এনার্জি লস হত না। ফলে অ্যাডপ্ট করতেও সুবিধে হয়েছে।”

 

‘রানু পেল লটারি’র শুটিংয়ের অবসরে। ছবি ইনস্টাগ্রামের সৌজন্যে।

বিজয়লক্ষ্মীর দাবি, তাঁর জার্নি এখনও পর্যন্ত খুব স্মুথ। নেপোটিজম বা ফেভারিটিজমের মতো সমস্যায় পড়েননি তিনি। ইন্ডাস্ট্রিতে অনেককেই কম্প্রোমাইজ করার অফার দেওয়া হয়। কিন্তু বিজয়লক্ষ্মী শেয়ার করলেন, “কম্প্রোমাইজ করার বিষয়টা একদম বোগাস। আমি সে জায়গায় পড়িনি। কেউ পড়েছে বলে শুনিনি। আগে কখনও এ সব হত হয়তো। সে কারণেই কথাটা ওঠে। কিন্তু এখন আর ইন্ডাস্ট্রিতে এ সব নেই।”

বেশ কিছু কাজের কথা চলছে বিজয়লক্ষ্মীর। কিন্তু এখনই বলা সম্ভব নয়। লকডাউনের সময়টাতে নিজেকে গ্রুম করছেন। “যা পরিস্থিতি ভ্যাকসিন না বের হলে কিছুই সমাধান হবে না। হিউম্যান ট্রায়াল হবে...। লম্বা প্রসেস। কাজ তো বন্ধ করা যাবে না। আমাদের কাজের মধ্যে থাকতেই হবে। ক্রিয়েটিভ মানুষরা এক জায়গায় বেশিদিন বসে থাকতে পারে না। এই সময়টা আমি নিজেরে গ্রুম করছি। বই পড়ছি। সিনেমা দেখছি। যে সময়টা পেয়েছি নিজের জন্য কাজে লাগাচ্ছি।”

এ হেন বিজয়লক্ষ্মী ব্যক্তিগত জীবন নিয়ে কিন্তু মুখ খুলতে চাইলেন না। প্রেম করছেন? এই প্রশ্নের জবাবে হেসে বললেন, “এটা নিয়ে কমেন্ট করব না। এই ব্যাপারটা পার্সোনালই রাখতে চাই।” দ্রুত ফ্লোরে ফিরতে চাইছেন অভিনেত্রী। তাঁকে ফের পর্দায় দেখার অপেক্ষায় দিন গুনছেন অনুরাগীরাও। 

POPxo এখন ৬টা ভাষায়! ইংরেজি, হিন্দি, মারাঠি আর বাংলাতেও!

বাড়িতে থেকেই অনায়াসে নতুন নতুন বিষয় শিখে ফেলুন। শেখার জন্য জয়েন করুন #POPxoLive, যেখানে আপনি সরাসরি আমাদের অনেক ট্যালেন্ডেট হোস্টের থেকে নতুন নতুন বিষয় চট করে শিখে ফেলতে পারবেন। POPxo App আজই ডাউনলোড করুন আর জীবনকে আরও একটু পপ আপ করে ফেলুন!