বিশ্বকাপ সেমিফাইনালে ভারতের হারের দায় আবার অনুষ্কা শর্মার ঘাড়ে, মিমে মাতল টুইটার!

বিশ্বকাপ সেমিফাইনালে ভারতের হারের দায় আবার অনুষ্কা শর্মার ঘাড়ে, মিমে মাতল টুইটার!

বাংলায় প্রবাদ আছে জানেন তো ‘গৌরবে বহুবচন’। মানে হল, ধরুন আপনি দারুণ কোনও একটা ভাল কাজ করলেন। ধরুন মাধ্যমিকে ফার্স্ট হলেন। দেখবেন আপনার সাফল্যে ভাগ বসাতে একশজন হাজির হয়ে যাবে। তখন আপনি অমুক বাড়ির মেয়ে, তমুক স্কুলের ছেলে, এই দলের সদস্য হ্যানত্যান আরও অনেক কিছু। কিন্তু, যেইনা তার উল্টোটা হবে অর্থাৎ ধরুন আপনি অঙ্কে একশোতে গোল্লা পেলেন, সে দায় নয় বেচারা অঙ্কের মাস্টারের বা পুরোটাই আপনার। অনুষ্কা শর্মার (Anushka Sharma) হয়েছে শাঁখের করাতের মতো জীবন। তাঁর এগোলেও বিপদ আর পিছলেও বিপদ। কী মুশকিল বলুন দেখি। তাঁর স্বামী বিরাট কোহলি ক্রিকেট (World Cup) খেলেন। তিনি মাঠে নামেন, রান নেন। ক্যাচ লোফেন অর্থাৎ ক্রিকেট খেলতে গেলে যা যা করণীয় সব করেন। তিনি ভাল খেললে, ছক্কা মারলে তিনি ভাল ক্রিকেটার, দারুণ ডেডিকেশান, দুর্দান্ত প্রতিভা এইসব মন্তব্য শোনা যায়। আর যখন বিরাট যে কোনও কারণেই হোক সেরকম ভাল খেলতে পারে না, তখন তার দায় গিয়ে বর্তায় স্ত্রী অনুষ্কার ঘাড়ে। অথচ মজার বিষয় হল এই দোষ চাপিয়ে দেওয়ার ব্যাপারটা কিন্তু পুরোপুরি এক তরফা। না মানে এই যে অনুষ্কার ‘জিরো’ সিনেমা একদমই অশ্বডিম্ব প্রমাণিত হল, তার দায় কি বিরাট নেবেন? কেন নেবেন তিনি তো আর অভিনয় করেননি। তাহলে সেই দায় যদি তাঁর না হয় বিরাট বা তাঁর দলের হারের (lose) দায় কেন নেবেন অনুষ্কা? 

আপনাদের মনে আছি কিনা জানি না। তবে ‘সুই ধাগা’ ছবির একটি বিশেষ দৃশ্য যেখানে অনুষ্কা সেলাইয়ের ক্লাসে হাত তুলে কিছু একটা বলছেন খুব জনপ্রিয় হয়েছিল নেটিজেনদের মধ্যে। সেই ছবিটি নিয়ে নানা রকম মিম তৈরি হয়েছিল। এবার ভারতের বিশ্বকাপ থেকে ছিটকে যাওয়ায় সেই দৃশ্য নিয়েই অসংখ্য মিম ঘুরে বেড়াচ্ছে সোশ্যাল মিডিয়ায়। 

বেশিরভাগ মিমেই দেখা যাচ্ছে যে, মাঠের উপর হুমড়ি খেয়ে পড়ে আছেন বিরাট। আর তাঁর ঠিক সামনেই শুকনো মুখে গালে হাত দিয়ে বসে আছেন অনুষ্কা। অনেকে আবার দেখিয়েছেন যে, বিরাট তাঁর সামনে শুয়ে পড়েছেন কিন্তু তিনি কিছু বলতে পারছেন না। কারণ তাঁর মুখ সূচ-সুতো দিয়ে সেলাই করা! ‘সুই ধাগা’ ছবিতে সেলাই ক্লাসের সেই বিখ্যাত দৃশ্যও আবার শেয়ার করেছেন অনেকে। কেউ নীচে লিখেছেন যখন প্রশ্ন করা হচ্ছে এই হারের জন্য দায়ী কে? অনুষ্কা হাত তুলে বলছেন তিনি। আবার একই ছবি দিয়ে কেউ বলেছেন, অনুষ্কা আসলে বলতে চাইছেন তাঁর ‘মরদ’ মানে বিরাট একা দায়ী নন এই হারের জন্য। 

তবে এত ট্রোলিংয়ের মধ্যে কিছুটা হলেও আশার আলো দেখিয়েছেন কয়েকজন শুভবুদ্ধি সম্পন্ন নেটিজেন। তাঁরা আবেদন করেছেন এই বলে যে এটা নেহাতই একটা খেলা আর এখানে হার-জিত থাকতেই পারে। আর তার দায় একান্তভাবেই যাঁরা মাঠে নেমে খেলেছেন, তাঁদের! খামোখা অনুষ্কাকে যেন দায়ী না করা হয়।

সত্যিই তো তাই! ভাবুন তো আপনার স্বামী যদি শিক্ষক হন তা হলে তাঁর ছাত্ররা ফেল করলে কি আপনার দোষ হবে? আশা করি নেটিজেনরা এটুকু বুঝবেন!  


POPxo এখন ৬টা ভাষায়! ইংরেজি, হিন্দি, তামিল, তেলুগু, মারাঠি আর বাংলাতেও!

আপনি যদি রংচঙে, মিষ্টি জিনিস কিনতে পছন্দ করেন, তা হলে POPxo Shop-এর কালেকশনে ঢুঁ মারুন। এখানে পাবেন মজার-মজার সব কফি মগ, মোবাইল কভার, কুশন, ল্যাপটপ স্লিভ ও আরও অনেক কিছু!