বিয়ে করছেন 'মুখার্জীদার বউ'-এর পরিচালক পৃথা চক্রবর্তী, পাত্র কি টলিউড ইন্ডাস্ট্রির কেউ?

বিয়ে করছেন 'মুখার্জীদার বউ'-এর পরিচালক পৃথা চক্রবর্তী, পাত্র কি টলিউড ইন্ডাস্ট্রির কেউ?

শাশুড়ি-বউমাকে অনস্ক্রিন সামলেছেন তিনি। প্রথম ছবির বিষয় হিসেবে বেছে নিয়েছিলেন এমনই ছকভাঙা সম্পর্কের গল্প। তিনি অর্থাৎ পরিচালক পৃথা (Pritha) চক্রবর্তী। তাঁর প্রথম ছবি 'মুখার্জীদার বউ'-এ শাশুড়ি এবং বউমার মধ্যে অন্য রকম বন্ধুত্বের জাল বুনেছিলেন। এবার নিজেরই এই ভূমিকায় পারফর্ম করার পালা।

না! পরিচালনা ছেড়ে শাশুড়ি অথবা বউমার ভূমিকায় অভিনয় করবেন না পৃথা। কারণ ক্যামেরার পিছনে থাকা তাঁর বরাবরের পছন্দ। সেই কাজটাই মন দিয়ে করতে চান। তবে পারফর্ম তো করবেনই। বউমার ভূমিকায় পারফরম্যান্স। আর তা রিয়েল লাইফে। অর্থাৎ বিয়ে করতে চলেছেন পৃথা।

আগামী ১১ মার্চ দীর্ঘদিনের বন্ধু অম্বর বন্দ্যোপাধ্যায়ের সঙ্গে দাম্পত্য সম্পর্ক শুরু করছেন পৃথা। অম্বর দীর্ঘদিনের বন্ধু হলেও তাঁদের প্রেম গত দু'বছরের। হবু কনে বললেন, "ও একেবারেই ইন্ডাস্ট্রির বাইরের মানুষ। আমরা অনেকদিনের বন্ধু। কিন্তু সেভাবে সম্পর্ক বলতে গেলে গত দু'বছর। আমার খুব ক্লোজ বন্ধু রয়েছেন কয়েকজন। যাঁরা কাজের অনেস্ট ফিডব্যাক দেন। অম্বরও তেমনই। ও ভাল বা মন্দ, দুটোই সোজাসুজি বলতে পারে। সেখান থেকেই ধীরে ধীরে আমাদের বন্ধুত্বটা এগিয়েছে।"

 

 

পৃথা এবং অম্বর।

অম্বর পেশায় মার্কেটিং প্রফেশনাল। মায়ের সঙ্গে নরেন্দ্রপুরে থাকেন। অন্যদিকে পৃথার বাড়ি রানাঘাট। বাবা, মা, ঠাম্মার আদরের পৃথা গত কয়েক বছর ধরে গড়িয়াতে থাকেন। বছর খানের আগে নিজের ফ্ল্যাট কিনেছেন। বিয়ের পর দক্ষিণ কলকাতার দুই আস্তানা মিলিয়েই থাকবেন বলে জানালেন তিনি। তবে বিয়ের অনুষ্ঠান হচ্ছে রানাঘাটে। আর রিসেপশন কলকাতায়।

আর বিয়ের সাজ? পৃথার স্বীকারোক্তি, "এই সাজের ব্যাপারটা আমি একেবারেই বুঝি না। 'মুখার্জীদার বউ'-এ যে কস্টিউম করেছিল তৃষিতা বন্দ্যোপাধ্যায়, ও আমার বোনের মত। ও সব অ্যারেঞ্জ করেছে। কোনদিন কী পরব, কী সাজব, সব ও ঠিক করেছে। রিসেপশনে ওই সাজাবে, এখনও পর্যন্ত তেমনই ঠিক রয়েছে। আর বিয়েতে লাল বেনারসি, সোনার গয়না, ট্র্যাডিশনাল ভাবেই সাজার ইচ্ছে রয়েছে।"

প্রথম ছবি 'মুখার্জীদার বউ'- পৃথা তৈরি করেছিলেন উইনডোজ-এর ব্যানারে। তাঁর পরের ছবির চিত্রনাট্যও তৈরি। এবার শিবপ্রসাদ মুখোপাধ্যায় এবন নন্দিতা রায়কে শোনানোর পালা। সে কারণেই ছবির বিষয় নিয়ে এখনই কিছু ভাঙতে চাইলেন না তিনি। প্রথম ছবির আগে পৃথার ঝুলিতে রয়েছে একটি ডকুমেন্টারি এবং তিনটে শর্ট ফিল্ম পরিচালনার অভিজ্ঞতা। তবে প্রথম ছবিতেই পরিচালক হিসেবে মুন্সিয়ানার পরিচয় দিয়েছিলেন তিনি। তাই তাঁর পরের ছবি নিয়েও অপেক্ষা রয়েছে সিনে মহলে। আপাতত ফোকাসে রিয়েল লাইফ। বিয়ের অনুষ্ঠান শেষ করে আগামী ১৭ মার্চ থেকেই ফের জোর কদমে কাজ শুরু করে দেবেন বলে জানালেন। তার আগে বউমার ভূমিকায় পারফরম্যান্স শুরু। যার মূল ভিত হল, শাশুড়ির সঙ্গে বন্ধুত্ব। ঠিক তাঁর ছবির মতোই।   

POPxo এখন ৬টা ভাষায়! ইংরেজি, হিন্দি, মারাঠি আর বাংলাতেও!

২০২০ শুরু করুন আমাদের দারুণ দারুণ প্ল্যানার আর স্টেটমেন্ট সোয়েটশার্ট দিয়ে। এগুলো সবকটাই আপনারই মতো একশ শতাংশ মজার এবং অসাধারণ! ওহ হ্যাঁ, শুধুমাত্র আপনার জন্য রয়েছে ২০ শতাংশ ছাড়ের ব্যবস্থাও। দেরি কিসের আর, এখনই POPxo.com/shop থেকে কেনাকাটা সেরে ফেলুন আর নিজেকে আরেকটু পপ আপ করে ফেলুন!