কৃষ্ণাঙ্গ সুন্দরীর বিশ্বজয় আর মাত্র ৩৪ বছরেই প্রধানমন্ত্রী ফিনল্যান্ডের সান্না মারিন

কৃষ্ণাঙ্গ সুন্দরীর বিশ্বজয় আর মাত্র ৩৪ বছরেই  প্রধানমন্ত্রী  ফিনল্যান্ডের সান্না মারিন

সব সময় মেয়েদের ভাগ্যে এত সুখ জোটে না। এতদিন ধরে কাগজে শুধু তাঁদের হেরে যাওয়া, হারিয়ে যাওয়া আর তাঁদের পায়ের নীচে থেঁতলে পিষে দেওয়ার নানা ঘটনাই দেখছিলেন। আর দেখতে-দেখতে সেটাতেই অভ্যস্ত হয়ে গেছিলেন তাই তো? আজ কিন্তু বড় গর্বের দিন, আনন্দের দিন। বিশেষ করে মহিলাদের জন্য তো বটেই। আজ একটা নয়, দুটো জবরদস্ত খবর আছড়ে পড়েছে মিডিয়ায়। হচ্ছে তোলপাড়। বয়ে যাচ্ছে অভিনন্দনের বন্যা। মিস ইউনিভার্সের (universe) খেতাব জিতেছেন জোজিবিনি তুনজি।

আপনি হয়তো ভাবছেন যে, এত আনন্দে বিহ্বল হওয়ার কী আছে? প্রতি বছরই এই সৌন্দর্য প্রতিযোগিতা অনুষ্ঠিত হয়। আর প্রতি বছরই কেউ না কেউ জেতেন। আশ্চর্যের আছে বটে। জোজিবিনি দক্ষিণ আফ্রিকার মেয়ে। আর এই প্রথম এখান থেকে কেউ বিশ্বসুন্দরীর মুকুট ছিনিয়ে নিলেন বিশ্বের অন্যান্য ডাকসাইটে সুন্দরীর থেকে। আর তার চেয়েও বড় কথা হল জোজিবিনি কৃষ্ণাঙ্গী (black)। তাই তাঁর এই জয় যেন বিশ্বজয় আর এই খবর ছড়িয়ে পড়তেই মুহূর্তে সেটা ভাইরাল হয়। শেষ রাউন্ডে যখন জোজিবিনিকে প্রশ্ন করা হয় যে একজন মেয়েকে সবার আগে কী শিক্ষা দেওয়া উচিত? এক মুহূর্তও না ভেবে সপ্রতিভ কৃষ্ণকলির উত্তর, নেতৃত্ব দেওয়ার শিক্ষা। তিনি মনে করেন, মেয়েরা বিভিন্ন ক্ষেত্রে নেতৃত্ব দিলে তবেই সমাজের মঙ্গল হবে। সাদা, কালো বা খয়েরি। চামড়ার রঙের সঙ্গে সৌন্দর্যের কোনও সম্পর্ক ছিল না। আজও নেই। আর সেই কথাই জোজিবিনি প্রমাণ করে দিলেন। একদিকে জোজিবিনির মুকুট জয়ে যখন উল্লসিত মিডিয়া থেকে সাধারণ মানুষ, মাত্র চৌত্রিশ বছরে বয়সে দেশের প্রধানমন্ত্রী হলেন ফিনল্যান্ডের (Finland) সান্না মারিন। এখনও পর্যন্ত বিশ্বের ইতিহাসে তিনি কনিষ্ঠতম (youngest) মহিলা (lady) প্রধানমন্ত্রী (prime minister)। 

জোজিবিনির নেতৃত্ব সংক্রান্ত উক্তিতে যেন সত্যি করতেই এ হেন ঘটনা ঘটল। এমনিতেই স্ক্যান্ডিনেভিয়া এমন একটি দেশ যেখানে ছেলে আর মেয়ের মধ্যে খুব একটা প্রভেদ করা হয়না। বরং যোগ্যতার পূর্ণ মর্যাদাই দেওয়া হয়। সান্না এর আগে পরিবহন মন্ত্রী ছিলেন। আশ্চর্যের বিষয় হল সান্নাকে বাদ দিয়ে ফিনল্যান্ডের বাকি চারটি দলের নেতৃত্ব দিচ্ছেন চারজন মহিলা আর চারজনেরই বয়স ত্রিশ থেকে বত্রিশের মধ্যে। সান্নার এই খবরে স্বভাবতই সারা বিশ্বের মেয়েরা খুব খুশি। ইতিমধ্যেই তাঁর তুলনা টানা শুরু হয়েছে নিউজিল্যান্ডের প্রধানমন্ত্রী জ্যাকিন্ডা আরডেনের সঙ্গে। গর্ভপাত নিয়ে হাজার বছরের ধারণাকে সপাটে চ্যালেঞ্জ করেছেন জ্যাকিন্ডা।     

Instagram

এবার বলবেন তো যে এই দুটো খবরই আনন্দের। আগলে জনম মোহে বিটিয়া না কিজো... বলবেন আর? তার চেয়ে এটা বলুন না মরি যদি তাহলে লড়াই করেই মরব! জোজিবিনিল আর সান্নার জন্য রইল আন্তরিক শুভেচ্ছা ও অভিনন্দন। 

 

POPxo এখন ৬টা ভাষায়! ইংরেজি, হিন্দি, তামিল, তেলুগু, মারাঠি আর বাংলাতেও!

এসে গেল #POPxoEverydayBeauty - POPxo Shop-এর স্কিন, বাথ, বডি এবং হেয়ার প্রোডাক্টস নিয়ে, যা ব্যবহার করা ১০০% সহজ, ব্যবহার করতে মজাও লাগবে আবার উপকারও পাবেন! এই নতুন লঞ্চ সেলিব্রেট করতে প্রি অর্ডারের উপর এখন পাবেন ২৫% ছাড়ও। সুতরাং দেরি না করে শিগগিরই ক্লিক করুন POPxo.com/beautyshop-এ এবার আপনার রোজকার বিউটি রুটিন POP আপ করুন এক ধাক্কায়