Coronavirus: গৃহবন্দি তারকারা কী করছেন?

Coronavirus: গৃহবন্দি তারকারা কী করছেন?

করোনা ভাইরাসের (Coronavirus) আতঙ্কে আপাতত গৃহবন্দি গোটা দেশ। অন্তত তেমনটাই চেষ্টা করছেন সকলে। স্কুল, কলেজ, বেশিরভাগ অফিস বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে। অনেকেই বাড়ি থেকে কাজ করছেন। আগামী ৩১ মার্চ পর্যন্ত বলিউড এবং টলিউডে বন্ধ সব শুটিং। গৃহবন্দি তারকারাও। ঠিক কী করছেন তাঁরা? 

বাড়িতে থাকা কারও অভ্যেস নয়। তবুও এই যুদ্ধকালীন পরিস্থিতিতে মানিয়ে নিতেই হবে। আলিয়া ভট্ট যেমন বোন শাহিনের সঙ্গে বোর্ড গেম খেলছেন। শ্রদ্ধা কপূর বহুদিন পরে বাড়ির খাবার এনজয় করছেন। দীপিকা পাড়ুকোন আলমারি গুছিয়ে রাখছেন, আবার নিজের যত্নও নিচ্ছেন। ক্যাটরিনা কইফ বাড়িতেই শরীরচর্চা করে সুস্থ থাকার চেষ্টা করছেন। 

সলমন খানকে আগে আপনি কখনও ছবি আঁকতে দেখেছেন? গৃহবন্দি অবস্থায় স্কেচ করছেন ভাইজান। সেই ভিডিও শেয়ারও করেছেন সোশ্যাল ওয়ালে। ঠিক একই রকম ভাবে স্কেচ করে সময় কাটিয়েছেন অভিনেত্রী তথা সাংসদ নুসরত জাহানও। কীভাবে হাত ধোওয়া উচিত সে পরামর্শও দিয়েছেন তিনি। 

অন্যদিকে দক্ষিণ আফ্রিকা থেকে নির্ধারিত দিনের এক দিন আগেই দেশে ফিরলেন অভিনেতা প্রসেনজিৎ চট্টোপাধ্যায় এবং পরিচালক সৃজিত মুখোপাধ্যায়। বৃহস্পতিবার সৃজিতের পরবর্তী 'কাকাবাবু' সিরিজের শুটিং শেষ করে জোহানেসবার্গ বিমানবন্দর থেকে দুবাই হয়ে সকাল ৮ টা নাগাদ কলকাতা বিমানবন্দরে নামে টিম 'কাকাবাবু'। দুজনেরই মুখ ঢাকা ছিল মাস্কে। আগামী ১৪দিনের জন্য তাঁরা নিজেরাই গৃহ পর্যবেক্ষণে থাকবেন।

শহরে ফিরেই টুইটারে সৃজিত লেখেন, "একদিন আগেই দেশে ফিরতে হয়েছে। কিন্তু আমাদের দক্ষিণ আফ্রিকা এবং কলকাতা টিমকে ধন্যবাদ। তাঁদের পরিশ্রমেই শুট শেষ করতে পেরেছি। এখন ১৪ দিন হোম কোয়রান্টিনে থাকব কারণ ভারতের পক্ষে এ এক দুঃসহ সময়। আমরা সবাই মিলে এই রোগের মোকাবিলা করব কিন্তু কিছু দিনের জন্য একসঙ্গে থেকে নয়।"

লন্ডন থেকে শুটিং বাতিল করে গতকালই কলকাতা ফিরেছেন মিমি চক্রবর্তী এবং জিৎ। তাঁরাও এই মুহূর্তে গৃহবন্দি। নেটফ্লিক্স দেখে সময় কাটাচ্ছেন রাইমা সেন। বাড়িতেই জিমে ঘাম ঝরাচ্ছেন দেব। গল্পের বই পড়ে সময় কাটাচ্ছেন শুভশ্রী। ইউরোপ যাওয়ার পরিকল্পনা ছিল অঙ্কুশ-ঐন্দ্রিলার। তা বাতিল হয়েছে। আপাতত বাড়িতেই দুই তারকা। এই অবসরে বেশ কিছু চিত্রনাট্য পড়ে ফেলছেন অঙ্কুশ। শান্তিনিকেতন যাওয়ার প্ল্যান করলেও আপাতত তা স্থগিত করে দিয়েছেন মানালি। 

 

বুধবার দেশে করোনা আক্রান্তের সংখ্যা ছিল ১৫১। রাতারাতি তা বেড়ে হয়েছে ১৬৯ জন। চণ্ডীগড়ে প্রথম করোনা আক্রান্ত ধরা পড়েছে। করোনা রুখতে জমায়েতে রাশ টানতে চাইছে বিভিন্ন রাজ্যের প্রশাসন। তাই উত্তরপ্রদেশ, রাজস্থান-সহ বিভিন্ন রাজ্যের কিছু কিছু জায়গায় ১৪৪ ধারা জারি করা হয়েছে।

চিনের পর, করোনা-পরিস্থিতি ভয়াবহ আকার ধারণ করেছে ইটালিতে। সেখানে এক দিনেই ৪৭৫ জনের মৃত্যু হয়েছে। যা এই মুহূর্তে সর্বোচ্চ বলেই জানাচ্ছেন বিশেষজ্ঞরা। আমেরিকায় আক্রান্তের সংখ্যা এই মুহূর্তে ১০ হাজার। মৃত্যু হয়েছে ১৫০ জনের। আক্রান্ত হয়েছেন মার্কিন কংগ্রেসের এক সদস্যও। উহানে অবশ্য এই প্রথম নতুন করে কোনও সংক্রমণের খবর নেই বলেই জানিয়েছে চিনা সরকার। তবে বেজিংয়ে নতুন করে করোনা সংক্রমণ ধরা পড়েছে।

POPxo এখন চারটে ভাষায়! ইংরেজি, হিন্দি, মারাঠি আর বাংলাতেও!

২০২০ শুরু করুন আমাদের দারুণ দারুণ প্ল্যানার আর স্টেটমেন্ট সোয়েটশার্ট দিয়ে। এগুলো সবকটাই আপনারই মতো একশ শতাংশ মজার এবং অসাধারণ! ওহ হ্যাঁ, শুধুমাত্র আপনার জন্য রয়েছে ২০ শতাংশ ছাড়ের ব্যবস্থাও। দেরি কিসের আর, এখনই POPxo.com/shop থেকে কেনাকাটা সেরে ফেলুন আর নিজেকে আরেকটু পপ আপ করে ফেলুন!