করোনা আতঙ্কের জেরে গুজবের ফলে হেনস্থার শিকার পায়েল-দ্বৈপায়নের আত্মীয়!

করোনা আতঙ্কের জেরে গুজবের ফলে হেনস্থার শিকার পায়েল-দ্বৈপায়নের আত্মীয়!

করোনা (coronavirus) আতঙ্কের জেরে প্রায় স্তব্ধ হতে চলেছে গোটা দেশ। প্রতিদিনই লাফিয়ে লাফিয়ে বাড়ছে আক্রান্তের সংখ্যা। কেন্দ্র এবং রাজ্য সরকারের তরফে নাগরিকদের ঘরে থাকার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। বেশিরভাগ এলাকা আজ সোমবার থেকে লকডাউন হয়ে যাচ্ছে। এই পরিস্থিতিতে গুজবের (rumour) রমরমাও কিন্তু কম নয়। আর তার শিকার হতে হল অভিনেত্রী পায়েল দে এবং অভিনেতা দ্বৈপায়ন দাসের আত্মীয়কে।

প্রতিদিনই করোনা সংক্রান্ত বহু খবর সোশ্যাল মিডিয়ার মাধ্যমে পাচ্ছেন প্রত্যেকে। কিন্তু তার কতটা বিশ্বাস করবেন, কোনটা ঠিক এগুলো যাচাই করে নেওয়ার পরামর্শ দিচ্ছেন প্রত্যেকে। এই পরিস্থিতিতে বেশ কিছু গুজবও ছড়াচ্ছে। আর সে কারণে হেনস্থার শিকার হচ্ছেন সাধারণ মানুষ। রবিবার পায়েল এবং দ্বৈপায়নের আত্মীয়ের সঙ্গে ঠিক যেমনটা ঘটল।

ঘটনাটি ঠিক কী? দ্বৈপায়নের মামা গৌতম চৌধুরী থাকেন হাওড়া শিবপুরে। তাঁর ৭০ বছর বয়স। কিছুদিন আগে দ্বৈপায়নের মামী তিতাস চৌধুরী আবু ধাবিতে মেয়ের কাছে গিয়েছন। আগামী এক মাস তিনি সেখানেই থাকবেন। হাওড়ার বাড়িতে একা রয়েছেন মামা। হঠাৎই গুজব রটে যায়, অভিনেতার মামী ফিরে এসছেন। বাড়িতে লুকিয়ে রয়েছেন। করোনা আতঙ্কের জেরে প্রতিবেশীরা মনে করতে থাকেন, কোনও রকম চিকিৎসকের পরামর্শ না নিয়েও এতটা ট্রাভেল করার পর বাড়িতে লুকিয়ে রয়েছেন অভিনেতার মামী। যা আদৌ সত্যি নয় বলে আবু ধাবি থেকে একটি লাইভ ভিডিওতে দাবি করেছেন অভিনেতার মামী। তিতাসের অভিযোগ, কোনও ভাবেই তিনি দেশে ফিরে যাননি। শিবপুরে তাঁর বাড়ির এলাকায় হঠাৎ করেই গুজব ছড়িয়ে গিয়েছে যে তিনি লুকিয়ে বাড়ি গিয়েছেন। অভিযোগ, সেই গুজবের জেরেই তাঁর সত্তরোর্ধ স্বামী গৌতম চৌধুরীকে হেনস্থা করছেন এলাকার মানুষ।

 

গোটা ঘটনাটির কথা জানতে পেরে দ্বৈপায়নের বোন সাম্পান আবু ধাবি থেকেই শিবপুর পুলিশকে ফোন করে গোটা বিষয়টি জানিয়েছেন। পুলিশ খতিয়ে দেখবে বলে আশ্বাসও দিয়েছেন। কিন্তু দ্বৈপায়নের মামার বাড়িতে হঠাৎই স্বাস্থ্য কর্মী পরিচয়ে একদল লোকের আগমন এবং তাঁর স্ত্রীর বিষয়ে জিজ্ঞাসাবাদের ফলে বয়স্ক মানুষটির যথেষ্ট হেনস্থা হচ্ছে বলে মনে করছেন পরিবারের সদস্যরা। তাঁর স্ত্রী আবু ধাবিতে রয়েছেন। কিন্তু তিনি কলকাতা ফিরে এসেছেন বলে কেউ বা কারা গুজব ছড়িয়েছে বলে অভিযোগ করেছেন পরিবারের সদস্যরা। লাইভ ভিডিওতে দ্বৈপায়নের মামী এবং বোন এই কাজ অবিলম্বে বন্ধ করার অনুরোধ জানিয়েছেন। 

করোনা আতঙ্কে এখন সকলেই গৃহবন্দি। সে কারণে শিবপুরে আত্মীয়র কাছে এই মুহূর্তে পায়েল, দ্বৈপায়ন বা পরিবারের অন্য সদস্যরাও যেতে পারছেন না। কোনও ভাবেই ভুয়ো খবর ছড়ানো উচিত নয়। মিথ্যে খবরের আতঙ্ক তৈরি করলে আখেরে তা নিজেদেরই ক্ষতি। বরং সকলে স্বাস্থ্যবিধি মেনে সুস্থ থাকুন, এই অনুরোধই করেছেন সকলে। 

 

POPxo এখন চারটে ভাষায়! ইংরেজি, হিন্দি, মারাঠি আর বাংলাতেও!

২০২০ শুরু করুন আমাদের দারুণ দারুণ প্ল্যানার আর স্টেটমেন্ট সোয়েটশার্ট দিয়ে। এগুলো সবকটাই আপনারই মতো একশ শতাংশ মজার এবং অসাধারণ! ওহ হ্যাঁ, শুধুমাত্র আপনার জন্য রয়েছে ২০ শতাংশ ছাড়ের ব্যবস্থাও। দেরি কিসের আর, এখনই POPxo.com/shop থেকে কেনাকাটা সেরে ফেলুন আর নিজেকে আরেকটু পপ আপ করে ফেলুন!