'মোটা' বলে ছেড়ে গিয়েছিলেন প্রেমিক, হতাশা কাটিয়ে সেই মেয়েই এখন সেরা সুন্দরী!

'মোটা' বলে ছেড়ে গিয়েছিলেন প্রেমিক, হতাশা কাটিয়ে সেই মেয়েই এখন সেরা সুন্দরী!

আমাকে মোটা (Fat) বলো না। না! এই গানটা লেখেনি 'চন্দ্রবিন্দু'। বরং এর উল্টোটাই লিখেছিলেন ব্যান্ডের সদস্যরা। আমাকে রোগা বলো না। কিন্তু এমনও তো কারও দাবি হতেই পারে। মোটা বলো না! এই মেয়েটিও তেমনই চাইত। কিন্তু মোটা বলে হাস্যকর হয়ে উঠত সকলের কাছে। এমনকি প্রেমিকও তাঁকে ছেড়ে চলে যান, শুধুমাত্র চেহারার কারণে। সেই মেয়েই সেরার শিরোপা জিতে নিল। জিতে নিল মিস গ্রেট ব্রিটেন (Miss Great Britain) ২০২০-র মুকুট! তিনি হলেন জেন (Jen) আটকিন।

ছোট থেকেই জেনের চেহারা ভারীর দিকে। বয়স বাড়ার সঙ্গে সঙ্গে আলাদা করে চেহারার যত্নের দিকে নজর দেননি তিনি। আসলে চেহারা নিয়ে অবসেশন কখনও ছিল না তাঁর। হ্যাঁ, বন্ধুরা মোটা বলে মজা করত ঠিকই। কিন্তু তাতে খুব একটা পাত্তা দিতেন না। প্রথম ধাক্কাটা আসে বছর তিনেক আগে। মোটা হওয়ার জন্য প্রেম ভেঙে যায় তাঁর। প্রথমে বেশ কিছুদিন ডেট করার পর তাঁকে ছেড়ে চলে যান তৎকালীন প্রেমিক। অপরাধ? জেনের মোটা চেহারা। তখন থেকেই এই অপমানের জবাব দেওয়ার কথা ভাবতেন তিনি। অবশেষে এল সেই সুযোগ।

জেন নিজেই স্বীকার করেছেন, জাঙ্ক ফুড খেতে খুব ভালবাসতেন তিনি। লাগামছাড়া জাঙ্কফুড দেহের ওজন বাড়িতে দিয়েছিল অচিরেই। ধীরে ধীরে সেটা কন্ট্রোল করতে শুরু করেন তিনি। জিমে যাওয়া শুরু করেন। ডায়েট ফলো করতে শুরু করেন চিকিৎসকের পরামর্শ মেনে। অর্থাৎ ধীরে ধীরে নিজের বাড়তি ওজন ঝরিয়ে ফেলার দিকে মন দেন তিনি।

 

 

এই একই প্রতিযোগিতায় ২০১৭তে প্রথম বার অংশ নিয়ে সেমিফাইনাল পর্যন্ত পৌঁছেছিলেন জেন। ২০১৮-এ ফাইনাল পর্যন্ত ছিল তাঁর দৌড়। কিন্তু বিফল হয়ে ফিরতে হয়েছিল দু'বারই। অবশেষে শিকে ছিঁড়ল। ২০২০-র মিস গ্রেট ব্রিটেনের মুকুট উঠল তাঁর মাথাতেই। একই সঙ্গে ব্রিটেনের সেরা সুন্দরীর তকমাও জিতে নেন তিনি।

জেন এখন বিবাহিতা। ফের ভালবাসা খুঁজে পেয়েছেন নিজের জীবনে। মোটা হওয়ার কারণে বয়ফ্রেন্ড ছেড়ে চলে যাওয়াতে আখেরে তাঁর লাভ হয়েছে বলেই মনে করেন জেন। ওই ঘটনা না ঘটলে আজ হয়তো এই দিনটা দেখতে পেতেন না তিনি। পুরস্কার জেতার পর জেন বলেন, "এখনও ঠিক বিশ্বাস হচ্ছে না। বলে বোঝাতে পারব না, আমি কতটা খুশি। সত্যিই অবাক লাগছে। এই অনুভূতি অসাধারণ। আসলে যখন মোটা হওয়ার কারণে প্রেমিক আমাকে ছেড়ে চলে গিয়েছিল, বিয়ে ভেঙে গিয়েছিল আমার, তখন ভেঙে পড়েছিলাম। খুব খারাপ লেগেছিল। মনে হয়েছিল, সব কিছু শেষ হয়ে গেল। আবার সেটা হয়েছিল বলেই আজ বুঝতে পারি, এত ভাল কিছু আমার জন্য ওয়েট করছিল। আমি দারুণ খুশি।"

POPxo এখন ৬টা ভাষায়! ইংরেজি, হিন্দি, মারাঠি আর বাংলাতেও!

২০২০ শুরু করুন আমাদের দারুণ দারুণ প্ল্যানার আর স্টেটমেন্ট সোয়েটশার্ট দিয়ে। এগুলো সবকটাই আপনারই মতো একশ শতাংশ মজার এবং অসাধারণ! ওহ হ্যাঁ, শুধুমাত্র আপনার জন্য রয়েছে ২০ শতাংশ ছাড়ের ব্যবস্থাও। দেরি কিসের আর, এখনই POPxo.com/shop থেকে কেনাকাটা সেরে ফেলুন আর নিজেকে আরেকটু পপ আপ করে ফেলুন!