গৃহবন্দি শুভশ্রী রান্না করছেন, বাথরুম পরিষ্কারের দায়িত্ব রাজের! দেখুন ভিডিও

গৃহবন্দি শুভশ্রী রান্না করছেন, বাথরুম পরিষ্কারের দায়িত্ব রাজের! দেখুন ভিডিও

বুধবার থেকে আগামী ২১ দিনের জন্য গোটা দেশে লকডাউন। করোনা ভাইরাসের (coronavirus) মোকাবিলা করার জন্য এখন এটাই একমাত্র পথ বলে মনে করেছে কেন্দ্রীয় সরকার। সে কারণেই এই সিদ্ধান্ত। সকলের মতোই গৃহবন্দি তারকারাও। আর এই মুহূর্তে নিজেরাই করছেন বাড়ির কাজ।

রাজ (raj)-শুভশ্রীর (subhashree) বাড়ির ছবিটা কেমন? রাজ নিজেই ভিডিও শেয়ার করে নিজের বাড়ির পরিস্থিতি দেখিয়েছেন অনুরাগীদের। বাড়ির প্রতিটি সদস্য কোনও না কোনও ভাগ করে নিয়েছেন। আর নিত্যদিন যে কাজে তাঁরা অভ্যস্ত নন, সে সবও এখন করছেন।

শুভশ্রীর হাতে রান্নার দায়িত্ব। খিচুড়ি এবং আলুভাজা নিজে হাতে যত্ন করে রান্না করছেন তিনি। রাজের মা বিছানা গুছিয়ে রাখছেন। দিদি পরিষ্কার করছেন বাসন। কখনও বা রান্নার কাজেও হাত লাগাচ্ছেন। আর রাজের হাতে নাকি রয়েছে গোটা বাড়ির বাথরুম পরিষ্কারের দায়িত্ব। এই রহস্য ভিডিওতেই ফাঁস করে দিয়েছেন পরিচালকের বাবা!

 

আসলে বার্তা একটাই। বাড়িতে থাকুন। সুস্থ থাকুন। বাড়ির পরিচারক, পরিচারিকাদেরও ছুটি দিয়ে দিন। তাঁদেরও এই সময় পরিচ্ছন্ন থাকা এবং বাড়িতে থাকা প্রয়োজন। আর এই পরিস্থিতিতে বাড়ির যাবতীয় কাজ নিজেদেরই করে নিতে হবে। প্রয়োজন ছাড়া বাড়ির বাইরে বেরবেন না। গবেষক, চিকিৎসক এবং সরকার যে যে নির্দেশ দিচ্ছেন, তা মেনে চলাই এখন সাধারণ নাগরিকদের একমাত্র কর্তব্য। রাজ-শুভশ্রীর বহু অনুরাগী রয়েছেন। তাঁরা নিজেদের কাজ নিজেরা করছেন দেখলে হয়তো বাকিরাও উৎসাহিত হবেন। সে কারণেই এই ভিডিও শেয়ার বলে মনে করছেন নেটিজেনরা।

শুধু রাজ-শুভশ্রী নন। এর আগে বাজন মাজার ভিডিও শেয়ার করেছেন ক্যাটরিনা কইফ। রান্নার ভিডিও শেয়ার করেছেন নুসরত জাহান, পাওলি দাম। আবার অলস বিকেল কাটানোর ছবি পোস্ট করেছেন ভিকি কৌশল। করোনা আতঙ্কে গৃহবন্দি শ্রীলেখা মিত্র ভিডিও বার্তায় বলেন, "জানি না, ভবিষ্যৎ কী! আগামী দিনের আঁচ কেউ হয়তো এখনও করতে পারছেন না। এটা কোনও উৎসব নয়। দয়া করে বাড়িতে থাকুন। অন্য সব বন্ধ করে দিন। আমার বাড়িতে ৭০ বছরের বাবা আছেন। আমি ভীষণ চিন্তিত। আমার মেয়ে আছে। ওর সারা জীবন পড়ে আছে। আমার মতো অনেকেই আছেন যাঁরা পশুপ্রেমী। আপনাদের বেঁচে যাওয়া খাবার থেকে ওদেরও একটু দিন। নইলে ওরা স্রেফ মরে যাবে না খেতে পেয়ে। এটুকুই আমার আর্জি। একটু দায়িত্বশীল হন। সাবধানে থাকুন। বেঁচে থাকলে আবার দেখা হবে।"

তিন সপ্তাহ লকডাউনের কারণ ব্যাখ্যা করে জাতির উদ্দেশে ভাষণে প্রধানমন্ত্রী বলেন, "করোনা সংক্রমিত অন্যান্য উন্নত দেশের উদাহরণ দেখে এই পদক্ষেপ করা ছাড়া অন্য কোনও রাস্তা খোলা ছিল না। এই ২১ দিন সময় ভীষণ গুরুত্বপূর্ণ। তা না-হলে দেশ ২১ বছর পিছিয়ে যাবে।"

আপাতত বাড়িতে থাকুন। সুস্থ থাকুন। ভাল থাকুন। 

POPxo এখন চারটে ভাষায়! ইংরেজি, হিন্দি, মারাঠি আর বাংলাতেও!

২০২০ শুরু করুন আমাদের দারুণ দারুণ প্ল্যানার আর স্টেটমেন্ট সোয়েটশার্ট দিয়ে। এগুলো সবকটাই আপনারই মতো একশ শতাংশ মজার এবং অসাধারণ! ওহ হ্যাঁ, শুধুমাত্র আপনার জন্য রয়েছে ২০ শতাংশ ছাড়ের ব্যবস্থাও। দেরি কিসের আর, এখনই POPxo.com/shop থেকে কেনাকাটা সেরে ফেলুন আর নিজেকে আরেকটু পপ আপ করে ফেলুন!