কড়া হাতে ছেলে তৈমুরের ডায়েট চার্ট তৈরি করলেন মা করিনা কপূর খান!

কড়া হাতে ছেলে তৈমুরের ডায়েট চার্ট তৈরি করলেন মা করিনা কপূর খান!

মা হতে গেলে একটু কড়া হতেই হয়। মা যদি সন্তানকে কড়া হাতে শাসন না করেন তা হলে ছেলেপুলে বয়ে যাবে না? এখন আপনার কাছে কড়া মানে কী, ছেলেমেয়েকে আপনি কতটা কড়াভাবে শাসন করবেন, সেসব নিয়ে আমরা কোনও মন্তব্য করছি না। ছেলেপুলে আপনার, আপনি নিজে বুঝুন! কিন্তু বলিউডি মম বেগম বেবো করিনা কপূর (Kareena Kapoor Khan) খানের কাছে কড়া মানে বড্ড কড়া! কেন, বলছি শুনুন।


সম্প্রতি করিনা জানিয়েছেন যে, ছেলে তৈমুরের (Taimur Ali Khan) ডায়েট চার্টের ব্যাপার তিনি একদম কম্প্রোমাইজ করেন না। কোনও ফাঁকিবাজিও বরদাস্ত করেন না। হাবিজাবি খেতে তাঁর আদরের দুলাল একেবারেই অ্যালাওড নয়। এমনকী, কোনও বন্ধুর জন্মদিনের পার্টিতে গেলেও তাঁর কড়া নির্দেশ অনুযায়ী জাঙ্ক ফুড একেবারেই তৈমুরের প্লেটে পড়ে না! বাড়িতেও ঘরে তৈরি খাবার, যেমন, খিচুড়ি, ইডলি-দোসা, বা অন্যান্য স্বাস্থ্যসম্মত খাবারই খায় তৈমুর।


hyper-paranoid-kareena-kapoor-reveals-son-taimurs-diet-plan 3


ছবি সৌজন্য: ইনস্টাগ্রাম


করিনার পছন্দের ডায়েটিশিয়ান রুজুতা দিবেকর (এঁর দেওয়া ডায়েট প্ল্যান মেনেই নাকি নিজের ফিনফিনে সাইজ জিরো ফিগারটি এককালে বানিয়েছিলেন বেবো) একটি টক শো-এ সেফ আলি খান ও করিনা কপূরকে আমন্ত্রণ জানিয়েছিলেন। সেখানে শিশু আহার বিষয়ে বক্তব্য রাখতে গিয়েই নাকি করিনা এসব জানিয়েছেন। যদিও পাশ থেকে সেফ একবার বলে ফেলেছিলেন যে, তৈমুর চিপস খেতে ভা-রী ভালবাসে এবং প্রায়ই খায়, তাতে বেজায় চটে গিয়েছেন করিনা। তিনি বলেছেন, হ্যাঁ, মাঝে-সাঝে তৈমুর এক-আধটা চিপস খেয়ে ফেলে বটে, কিন্তু সে ভারী বাধ্য ছেলে, ফলের রস, শাকসেদ্ধ ইত্যাদিই নাকি তার সবচেয়ে প্রিয়! করিনা আরও জানিয়েছেন যে, প্রতি মাসে ছেলে কোন-কোন ফল আর সবজি খাবে, তা নাকি মাসের শুরুতেই তিনি ঠিক করে দেন! তা ছাড়াও ছেলের যেন অরুচি না হয়, তাই সব খাবারই ঘুরিয়ে-ফিরিয়ে দেওয়া হয় তাকে!


hyper-paranoid-kareena-kapoor-reveals-son-taimurs-diet-plan 7


ছবি সৌজন্য: ইনস্টাগ্রাম


এসবই বেশ ভাল কথা। এত ব্যস্ত শেডিউলের মধ্যেও ছেলে তৈমুরের দিকে যে করিনা এত কড়া নজর রাখতে পারছেন, তা শুনে আশা করি যারপরনাই খুশি হবেন ঠাকুরমা শর্মিলা এবং দিদিমা ববিতা। নাতি আদরে-নজরে মানুষ হচ্ছে, তা জানলে কারই বা ভাল না লাগে! কিন্তু আমাদের প্রশ্ন অন্যত্র! করিনা ছেলের ডায়েটের দিকে এত নজর দিচ্ছেন কেন এখন থেকে? ওই তো একরত্তি ছেলে! এমনিতেই সারা দিন পাপারাৎজি তাকে রাম খাটান খাটিয়ে মারে। সেই ছোট্ট বয়স থেকে পোজ দিতে-দিতে ছেলে এমনিতেই আধখানা হয়ে গেল! তার উপর আবার হ্যান ক্লাস-ত্যান ক্লাস, সব মিলিয়ে এতটুকু এন্টারটেনমেন্ট থাকবে না বেচারির জীবনে? একটু চিপস-চকোলেট খেলে এমন কী ক্ষতি হবে শুনি? হ্যাঁ, এখন যদি তিনি ছেলের ভবিষ্যতের ফিল্ম ডেবিউয়ের কথা ভেবে এখন থেকেই শরীরের দিকে নজর রাখতে চান, তা হলে আলাদা কথা। আর এত চিন্তা করারই বা কী আছে? কই দেখুন তো তৈমুরের দিদিভাই সারা আলি খানকে! যেই না ফিল্মে নেমেছেন, অমনই কী সুন্দর ফিনফিনে হয়ে গিয়েছেন! যদিও তৈমুরের মামাবাড়ির দিকে একটু মোটার ধাত আছে, কপূররা চিরদিনই খাতা-পিতা ঘর কা সদস্য, কিন্তু আমরা জানি নিশ্চিত, তৈমুর তার মায়ের মতোই ইলাস্টিক জিন পেয়েছে! সময় এলে সে-ও দেখিয়ে দেবে যে, শরীর বাড়ানো-কমানো তার বায়ে হাঁথ কা খেল! 


অতএব করিনা, একটু ছাড় দিন তো! তৈমুর বেচারা একটু খেয়েপরে বাঁচুক!


POPxo এখন ৬টা ভাষায়! ইংরেজি, হিন্দি, তামিল, তেলুগু, মারাঠি আর বাংলাতেও!



আপনি যদি রংচঙে, মিষ্টি জিনিস কিনতে পছন্দ করেন, তা হলে POPxo Shop-এর কালেকশনে ঢুঁ মারুন। এখানে পাবেন মজার-মজার সব কফি মগ, মোবাইল কভার, কুশন, ল্যাপটপ স্লিভ ও আরও অনেক কিছু!