‘কলঙ্ক’-এর ব্যর্থতার পর রণবীর-করিনা জুটির প্রথম ছবি 'তখত'-এর শুটিং পিছিয়ে দিলেন করণ জোহর

‘কলঙ্ক’-এর ব্যর্থতার পর রণবীর-করিনা জুটির প্রথম ছবি 'তখত'-এর শুটিং পিছিয়ে দিলেন করণ জোহর

আপনি সিনেমা হলে গিয়ে সিনেমা দেখেন? নাকি মোবাইলেই কমফর্টেবল? যদি এ ক্ষেত্রে মোবাইল আপনার বন্ধু হয়, তা হলে তো অপশন প্রচুর। আর যদি বড়পর্দার মজা আপনাকে বেশি টানে, তা হলে নিশ্চয়ই কোন সিনেমা দেখবেন, তা ঠিক করার আগে বেসিক কিছু খবর নিয়ে নেন।

যেমন ধরুন, এমন কোনও পরিচালকের সিনেমা, যাঁর কাজ আপনার আগে ভাল লেগেছে। সেই পরিচালকের যে ছবিই আসুক না কেন, আপনি যাবেনই। আবার ধরুন, স্টার কাস্ট নজরকাড়া। তারকাদের দেখতেই আপনি টিকিট কাটবেন। আবার অনেক সময় ছবির বিষয় এতটাই ইন্টারেস্টিং মনে হল, সেটা দেখতেই সিনেমা হলে গেলেন। কিন্তু এত সব কিছু ভেবে সিনেমা হলে গিয়ে যদি আপসেট হয়ে পড়েন, তা হলে আর লাভটা কী হল বলুন?

কিছুদিন আগেই করণ জোহরের (Karan Johar) উপর আপসেট হয়ে পড়েছেন অডিয়েন্সের একটা বড় অংশ! পিরিয়ড ড্রামা ‘কলঙ্ক’ রিলিজ করেছিল। স্টার কাস্টেও চমক কম ছিল না। বহুদিন পরে জুটি হিসেবে কামব্যাক করেছিলেন সঞ্জয় দত্ত এবং মাধুরী দীক্ষিত। তাঁদের সেকেলে প্রেম নিয়েও প্রোমোশনে কম কথা হয়নি। তাঁরাও ফাইনালি ফ্লপ করলেন। আবার ধরুন আলিয়া ভট্ট। তিনি তো এখন বলিউডের সেরা তাস। সুন্দর মুখ, ধারালো অভিনয় ঢেলে দিলেও বাঁচাতে পারেননি সে ছবিকে। এ ছাড়া বরুণ ধাওয়ান, সোনাক্ষী সিন্হা আর আদিত্য রায় কপূরের কথা আলাদা করে কী বলি বলুন তো? ঝলমলে সেট, দুর্দান্ত মিউজিক, সিনেমাটোগ্রাফি- না! কোনও কিছুই ‘কলঙ্ক’-এর লাভের খাতা ভরাতে পারেনি। আর সে ‘কলঙ্ক’-এর দাগ করণ জোহরের কেরিয়ারে এমন চেপে বসল, যে তিনি এখন অনেক সাবধানী। মাঝখান থেকে পিছিয়ে গেল পরের প্রোজেক্ট!

হ্য়াঁ, তা হলে আর বলছি কী! করিনা কপূর (Kareena Kapoor), রণবীর সিংহ (Ranveer Singh), আলিয়া ভট্টকে নিয়ে আরও এক পিরিয়ড ড্রামা ‘তখত’ (Takht) তৈরির খবর তো আগেই দিয়েছেন করণ সাহেব। কিন্তু সে ছবি ফ্লোরে যাওয়ার মুখে আটকে দিলেন! কেন জানেন? ‘কলঙ্ক’-এর ব্যর্থতার জন্য কি এ ছবি থেকে মুখ ফিরিয়ে নিলেন? 

না! পরিচালক তথা প্রযোজক করণের জীবনে এখনও ততটা দুঃসময় আসেনি বলেই মনে হচ্ছে। কারণ ‘তখত’ তিনি করবেন। তবে হাতে সময় নিয়ে। আগের ছবির ব্যর্থতার পর তিনি হয়তো বুঝতে পেরেছেন পিরিয়ড ড্রামার ক্ষেত্রে হোমওয়ার্কটা আরও ভাল করে করা দরকার। সেখানে কোনও ফাঁকিবাজি কিন্তু দর্শক বরদাস্ত করবেন না। সটান বক্স অফিসে রেড মার্ক পড়বে। তাই শুটিং শুরুর আগে ‘তখত’-এর স্ক্রিপ্ট আরও কয়েকবার ঝালিয়ে নিতে চান করণ। বেশ কিছু জায়গা নাকি চেঞ্জও করে দেবেন। স্ক্রিপ্ট কারেকশন করতেই অনেকটা সময় লেগে যাবে যে! তাই এ বছর ‘তখত’-এর শুটিং শুরু করা যাবে না। বরং কাজ গুছিয়ে ২০২০-এর ফেব্রুয়ারিতে ফ্লোরে যাবে ছবি।

শুধু স্ক্রিপ্ট নয়। অভিনেতাদের নিয়ে আলাদা করে ওয়ার্কশপও করাতে চান করণ। এখনই যেমন অনিল কপূরকে বলে দিয়েছেন, ওজন বাড়াও বস, না হলে চাপ আছে। ভিকি কৌশল আর রণবীর সিংকেও নাকি আলাদা করে হোমটাস্ক দিয়েছেন। সেট, লোকেশন, কস্টিউমের কাজ শুরু হয়েছে অনেক আগেই। টেকনিক্যাল টিমের সঙ্গেও নাকি ঘন ঘন মিটিংয়ে বসেছেন করণ। 

আদতে এ গল্প যুদ্ধের। দুই লড়াকু, যুদ্ধবাজ ভাইয়ের। এ গল্প মুঘল সম্রাট শাহজাহান, ঔরঙ্গজেব, দারা-শুকোর। তার জন্য প্রস্তুতিটাও তো রাজকীয় হওয়ারই দরকার। তাই না? 

POPxo এখন ৬টা ভাষায়! ইংরেজি, হিন্দি, তামিল, তেলুগু, মারাঠি আর বাংলাতেও!

আপনি যদি রংচঙে, মিষ্টি জিনিস কিনতে পছন্দ করেন, তা হলে POPxo Shop-এর কালেকশনে ঢুঁ মারুন। এখানে পাবেন মজার-মজার সব কফি মগ, মোবাইল কভার, কুশন, ল্যাপটপ স্লিভ ও আরও অনেক কিছু!