বাঙালির মিস মার্পল এবার বড় পর্দায়! মিতিন মাসির চরিত্রে দেখা যাবে কোয়েল মল্লিককে

বাঙালির মিস মার্পল এবার বড় পর্দায়! মিতিন মাসির চরিত্রে দেখা যাবে কোয়েল মল্লিককে

গোয়েন্দা গল্প নিয়ে বাংলায় ছবি করলেই সেটা হিট হয়। মোটামুটি এরকম একটা ব্যাপার টলিউডে সবাই বিশ্বাস করে। আর সেইজন্য সবাই হাত দুয়ে এদ্দিন বেচারা দুই গোয়েন্দা (detective) ফেলুদা আর ব্যোমকেশের পিছনে পড়ে ছিল। আমরা সবাই রাজার মতো আমরা সবাই ফেলুদা আর ব্যোমকেশ গোছের ব্যাপার আর কী! আর যারা দুধের সাধ ঘোলে মেটাতে চেয়েছেন তাঁরা ওই কিরীটী, শবর এসব নিয়ে কাজ করেছেন। আবিশ্যি কিছু অরিজিনাল টিকটিকিও (detective) আছে। এই যেমন ওই যে যিনি সব তীর্থ বারবার গঙ্গাসাগর একবার! বুঝলেন না তো? মানে যিনি ফেলুদাও সাজেন আবার ব্যোমকেশও সাজেন। অনেক দর্শক তো রীতিমতো ঘাবড়ে যান। আরে শরদিন্দুবাবু তো এমন লেখেননি বলে ভাবতে গিয়ে মনে পড়ে আরে ও তো ফেলুদাগো! তিনি এখন সোনাদা সেজে পথে পথে গুপ্তধন খুঁজে বেড়াচ্ছেন। মানিকবাবু ঝেড়ে ঝেড়ে আর কত লোকের পেট চলবে কে জানে? 


তবে গোয়েন্দা যেই হোক না কেন, তাঁর পরিচয়পত্রে নামের পাশে লেখা থাকে 'এম'। অর্থাৎ মেল। তা সব কিছুই যখন পুরুষতান্ত্রিক তখন মেয়ে গোয়েন্দার আমদানি আর হবে কোত্থেকে শুনি? আপনাকে যদি এই প্রশ্ন করা হয় যে কয়েকটা গোয়েন্দার নাম বলুন যাঁদের আপনার পছন্দ। আপনি ফেলুদা বলবেন, ব্যোমকেশ বলবেন, কিরীটী, জয়ন্ত-মানিক, বিমল-কুমার বলবেন। যারা সাহেব গোয়েন্দা পছন্দ করেন তাঁরা শার্লক হোমস ও এরকুল পোয়ারোরও নাম বলবেন। কিন্তু এই প্রশ্নটাই একটু ঘুরিয়ে যদি বলি কয়েকজন মেয়ে গোয়েন্দা চরিত্রের নাম বলুন তো, যাঁদের আপনার পছন্দ? আমতা আমতা করে মিস মার্পল বলেই চুপ করে যাবেন তো? অথচ সুচিত্রা ভট্টাচার্য অনেক যত্ন করে প্রজ্ঞাপারমিতা মুখোপাধ্যায়ের এই চরিত্র! 




 

 

 


View this post on Instagram


 

 

#MitinMashi #Pujo2019 @arindamsil @camelliafilms @bickramtabla


A post shared by Koel Mallick (@yourkoel) on




সে আবার কে? আরে ওটাই মিতিন মাসির (mitin masi) ভাল নাম। এবার তাকেই বড় পর্দায় নিয়ে আসছেন পরিচালক ও প্রযোজক অরিন্দম শীল। ভদ্রলোক এমনিতেই গোয়েন্দাদের নিয়ে থিসিস লিখছেন। তাই ওর বাইরে আর ছবি করেন না। জিগ্যেস করাতে সাংবাদিকদের উপর খুব গাল ফুলিয়ে অভিমান করে বলেছেন, তিনি গোয়েন্দা ছাড়া কিছু বোঝেন না যখন তখন কোনও গোয়েন্দাকেই তিনি বাদ দেবেন না! সব্বনাশ আর কাকে বলে!মিস মার্পল ঘরে বসেই সমস্যার সমাধান করে দিতেন। আর মিতিন মাসি সংসার সামলে টামলে গোয়েন্দাগিরি করেন। তবে মাসিমনিকে নিয়ে টানাটানিও কম হয়নি। শিবপ্রসাদ আর নন্দিতা রায় বললেন আমরাও করব, সুচিত্রা ভট্টাচার্য আমাদের মাসি ছিল! প্রযোজক হিমাংশু ধানুকা বললেন আমিও করব। আমার কাছে মাসির বাড়ি যাওয়ার ঠিকানা...ইয়ে গপ্পের রাইটস আছে। পরে আবিশ্যি শীলবাবুই মাসিকে নিয়ে হাসিমুখে বাড়ি যান। আচ্ছা মাসি এক, লেকিন বোনপো বোনঝি অনেক কী করে হুয়া? বাংলায় আর কেউ গপ্পো লেখে না?  





 


যাকগে বাদ দিন। কোয়েল মল্লিককে (Koel Mallick) দেখা যাবে এই নতুন গোয়েন্দা মাসির চরিত্রে। আবিশ্যি সে উনি গোয়েন্দামাসি সাজুন বা গোয়েন্দার মাসি সাজুন, ব্যাপারটা একই! যদিও সবাই বলছে তাঁর পাগলু সিনড্রম সেরে গেছে। তাই উনি খুব সেরিব্রাল সিনিমা করছেন। ওই যে কীসব শেষের শুরু আর যকের ধন না কী যেন! না আঁচিয়ে বাপু বিশ্বাস নেই। তবে নায়িকা যেই হোক, নায়িকার বাবার হাতে যদি বেল্ট দিয়ে চাবকানি না খেতে চান, তাহলে দেখেই আসবেন না হয় একবার মাসিমনিকে।    


POPxo এখন ৬টা ভাষায়! ইংরেজি, হিন্দি, তামিল, তেলুগু, মারাঠি আর বাংলাতেও


আপনি যদি রংচঙে, মিষ্টি জিনিস কিনতে পছন্দ করেন, তা হলে POPxo Shop-এর কালেকশনে ঢুঁ মারুন। এখানে পাবেন মজার-মজার সব কফি মগ, মোবাইল কভার, কুশন, ল্যাপটপ স্লিভ ও আরও অনেক কিছু!