'তোমার ঢপে ধরা খাইসি!' সৃজিতের উদ্দেশ্যে হঠাৎ এ কথা প্রকাশ্যে কেন লিখলেন মিথিলা ?

'তোমার ঢপে ধরা খাইসি!' সৃজিতের উদ্দেশ্যে হঠাৎ এ কথা প্রকাশ্যে কেন লিখলেন মিথিলা ?

তাঁদের বিয়ের বয়স দু'মাস। অর্থাৎ নব দম্পতির তকমা এখনও তাঁদের ছেড়ে যায়নি। একে অপরের প্রেমে যে হাবুডুবু খাচ্ছেন, তা আর বলে দেওয়ার অপেক্ষা রাখে না। তাঁরা অর্থাৎ পরিচালক সৃজিত (Srijit) মুখোপাধ্যায় এবং তাঁর স্ত্রী বাংলাদেশের অভিনেত্রী মিথিলা (Mithila)। আর সেই প্রেম কখনও কখনও তাঁরা প্রকাশ করছেন সোশ্যাল মিডিয়াতেও।

সদ্য সৃজিতের উদ্দেশ্যে একটি মজার টুইট করেন মিথিলা। তিনি ছন্দ মিলে সৃজিতের জন্য সম্ভবত একটি কবিতা লিখতে চেয়েছেন।তিনি লিখেছেন, 'তোমার খেয়েছো? আমার খাইসি। তোমার নেমন্তন্নে, আমি গেসি। তোমার বাড়িকে বাসা বানাইসি... তোমার ঢপে ধরা খাইসি!' মুহূর্তের মধ্যে তা ছড়িয়ে পড়ে সোশ্যাল ওয়ালে। 

গত ডিসেম্বরে সৃজিতের কলকাতার বাড়িতে ঘরোয়া অনুষ্ঠানে রেজিস্ট্রি করে বিয়ে করেন এই জুটি। পরিবার, ঘনিষ্ঠ আত্মীয় এবং বন্ধুরা উপস্থিত ছিলেন সেই অনুষ্ঠানে। সুইৎজারল্যান্ডে হনিমুন পর্ব সেরেছেন তাঁরা। তারপর থেকে কখনও দম্পতি ভারতে থাকছেন, কখনও বা বাংলাদেশে। শুটিংয়ের জন্য সৃজিত কোথাও গেলে সম্ভব হলে সঙ্গ দিচ্ছেন মিথিলা। কখনও বা কাজের জন্য তাঁকে বাংলাদেশে থাকতে হলে শুটিংয়ের বিরতিতে গিয়ে হাজির হচ্ছেন সৃজিত। আসলে দুই শিল্পীর কর্মক্ষেত্র দুটো আলাদা দেশ। ফলে কাজের বাইরে একসঙ্গে সময় কাটানোটাই তাঁদের কাছে মূল্যবান মুহূর্ত। সঙ্গে রয়েছে মিথিলার মেয়ের সান্নিধ্যও।

আরও পড়ুন, 'তাহসানের মতো হ্যান্ডসাম বয় ছেড়ে ওল্ড বয়কে ধরছে' ট্রোলিংয়ের জবাব দিলেন সৃজিত

 

বিয়ে হলেও সেই অর্থে কোনও রিসেপশন বা বউভাত হয়নি সৃজিত-মিথিলার। সেই কারণে সম্ভবত আগামী ২৯ ফেব্রুয়ারি কলকাতায় রিসেপশনের প্ল্যান করেছেন এই জুটি। নিমন্ত্রণ পত্র নিজে লিখেছেন সৃজিত। যেখানে ঘুরে ফিরে এসেছেন তাঁর সিনেমার ডায়লগ বা গানের অনুসঙ্গ। ঘনিষ্ঠ বন্ধুরা তো বটেই, শোনা যাচ্ছে টলিউড ইন্ডাস্ট্রির একটা বড় অংশ সেদিন দম্পতিকে শুভেচ্ছা জানাতে উপস্থিত থাকবেন। বিয়ের দিন রং মিলিয়ে পোশাক পরেছিলেন এই জুটি। রিসেপশনেও তেমনটাই আশা করছেন অনুরাগীরা। পোশাকে লালের ছোঁয়া থাকবে বলে খবর। 

মিথিলা এর আগে বাংলাদেশের সঙ্গীত শিল্পী তাহসান রহমান খানের সঙ্গে বিবাহ সূত্রে আবদ্ধ ছিলেন। ২০০৪-এ তাঁদের আলাপ। ২০০৬-এ তাঁরা বিয়ে করেন। ২০১৩-এ তাঁদের একমাত্র মেয়ে আয়রার জন্ম হয়। কিন্তু তাহসান-মিথিলার দাম্পত্য সুখের হয়নি। ২০১৭- তাঁরা বিবাহ বিচ্ছেদের সিদ্ধান্ত নেন। এরপর ২০১৯-এর শেষে মিথিলা বিয়ে করেন সৃজিতকে। এই ঘটনার পরই সোশ্যাল মিডিয়ায় তুমুল ট্রোলিংয়ের শিকার হন তিনি। কেউ বা মিথিলার বিরুদ্ধে তাহসানকে প্রতারণার অভিযোগ তোলেন। কেউ বা প্রশ্ন তোলেন, সৃজিতের বয়স নিয়ে! রেগে না গিয়ে বা অন্যভাবে প্রতিক্রিয়া না দিয়ে, এই সবের মজার জবাব দিয়েছেন সৃজিত স্বয়ং! বিয়ের আগেও সোশ্যাল ট্রোলিংয়ে আক্রান্ত মিথিলার পাশে দাঁড়িয়েছিলেন সৃজিত। এবার বউয়ের লেখা কবিতায় তিনি ভাইরাল।

POPxo এখন ৬টা ভাষায়! ইংরেজি, হিন্দি, মারাঠি আর বাংলাতেও!

২০২০ শুরু করুন আমাদের দারুণ দারুণ প্ল্যানার আর স্টেটমেন্ট সোয়েটশার্ট দিয়ে। এগুলো সবকটাই আপনারই মতো একশ শতাংশ মজার এবং অসাধারণ! ওহ হ্যাঁ, শুধুমাত্র আপনার জন্য রয়েছে ২০ শতাংশ ছাড়ের ব্যবস্থাও। দেরি কিসের আর, এখনই POPxo.com/shop থেকে কেনাকাটা সেরে ফেলুন আর নিজেকে আরেকটু পপ আপ করে ফেলুন!