পুজোর গল্প: জেনে নিন, দশেরা এবং বিজয়া দশমীর সঙ্গে জড়িত নানা পৌরাণিক গল্প

পুজোর গল্প: জেনে নিন, দশেরা এবং বিজয়া দশমীর সঙ্গে জড়িত নানা পৌরাণিক গল্প

দুষ্টের দমন আর শিষ্টের পালন। সত্যের জয়, মন্দের উপরে ভাল-র জয়...ইত্যাদি নানা ভাবে এই বিজয়া দশমী কিংবা দশেরার দিনটি পালিত হয় সারা ভারতে। কিন্তু মোদ্দা ব্যাপারটা সেই এক। দুই দোর্দণ্ডপ্রতাপ অসুর পরাজিত হয়েছিল এই দিনটিতে। রামায়ণের কাহিনি অনুসরণে দশানন রাবণ এবং পুরাণের কাহিনি অনুসরণে মহিষাসুর। প্রথমজনও বধ হয়েছিলেন নদিন টানা যুদ্ধের পর, দশম দিনটিতে। দশানন রাবণের মৃত্যু হল রামের হাতে, লঙ্কায়, দশ মানে দশটি মাথা এবং হর, মানে পরাজিত, তাই দুয়ে মিলে দশহরা (Dusshera), লোকমুখে যা হয়েছে দশেরা! অন্যদিকে মহিষাসুর এদিনে বধ হয়েছিলেন মা দুর্গার হাতে। দশমীতে এল বহু প্রতীক্ষিত বিজয়, তাই বিজয়া দশমী (Bijoya Dashami)। কিন্তু শুধু এই দু'টি গল্পেই (mythological stories) আটকে নেই দশহরা কিংবা বিজয়া দশমীর গল্প বা তাৎপর্য। তা আরও গভীর। সেই গভীরত্বের সন্ধানই দেব আপনাদের, আজকের প্রতিবেদনের মাধ্যমে। 

১. রাবণ দহন, সেই সঙ্গে দহন নানা রিপুরও

Instagram

রাবণ দহন মানে কী? এই যে সারা দেশে আজ বিভিন্ন জায়গায় রাবণের ইয়া ব্বড় মূর্তি তৈরি করে তা পোড়ানো হয়, যার পোশাকি নাম রামলীলা, সেই অনুষ্ঠানের মানে শুধুই কি রামের জয় সেলিব্রেট করা? নাকি অন্য কিছুও বটে? আসলে রাবণের দশটি মাথা মানে আসলে দশটি রিপু বা দোষ, কাম, ক্রোধ, লোভ, মোহ, মদ, মাৎসর্য, স্বার্থ, অন্যায়, অমানবতা ও অহঙ্কার। এই দশটি রিপুর উপর জয়লাভ করার জন্যই দশহরার দিন পুড়িয়ে দেওয়া হয় এই দশ রিপুর আধার দশানন রাবণকে! 

২. আজ পার্বতীর ঘরে ফেরার দিনও বটে!

Instagram

দেবী দুর্গার দক্ষকন্যা সতী হয়ে জন্মগ্রহণ এবং স্বামীনিন্দা সইতে না পেরে মৃত্যুবরণের গল্প আমাদের সকলেরই জানা। ৫১টি অংশে সতীর মৃতদেহ ভারতবর্ষের বিভিন্ন অঞ্চলে ছড়িয়ে দেওয়ার পর শিব যখন তাণ্ডব থামালেন, তখন বিষ্ণু তাঁকে অনুরোধ করেছিলেন দক্ষরাজকে ক্ষমা করে দিতে। শিব সেই অনুরোধ ফেলতে পারেননি। উপরন্তু সন্তানহারা বাবার দুঃখ ঘোচানোর জন্য তিনি বলেন, এর পরের জন্মে সতী জন্ম নেবেন হিমালয়রাজ হিমাবত কন্যা পার্বতী রূপে। তখন প্রতি বছর বিজয়া দশমীর দিন পার্বতী আসবেন দক্ষপুরীতে। সতীর বাবা-মায়ের সঙ্গে একটি দিনের জন্য দেখা করতে! তাই আজ পার্বতীর ঘরে ফেরার দিনও বটে!

৩. শুধু রামই নন, দশহরার সঙ্গে যোগ আছে পাণ্ডবদেরও

Awaaznation

শুধু রামই নন। দশহরার দিনটির সঙ্গে জড়িয়ে আছেন পাণ্ডবরাও। পাশাখেলায় পরাজিত হয়ে পাণ্ডবরা ১২ বছর বনবাস ও এক বছরের অজ্ঞাতবাস মেনে নিয়েছিলেন। বনবাসের পর অজ্ঞাতবাস শুরু করার প্রাক্কালে তাঁরা বিরাট রাজ্যে প্রবেশ করার আগে একটি শমীবৃক্ষের কোটরে তাঁদের অস্ত্রাদি লুকিয়ে রেখে যান। আবার একটি বছর পরে এই বিজয়া দশমীর দিনটিতে ওই কোটর থেকে অস্ত্র বের করে নিজেদের আসল পরিচয় দিয়েছিলেন তাঁরা। তাই তারপর থেকে ভারতবর্ষের বিভিন্ন প্রান্তে দশহরার দিনটিতে অস্ত্রের পুজো প্রচলিত আছে। এদিন পরস্পরকে শমীবৃক্ষের পাতা দিয়ে দুষ্টের উপর বিজয়ের কথা মনে করিয়ে দেওয়ার চলও প্রচলিত।

৪. রামের জন্মের আগেই রঘুকুলে পালিত হত দশহরা!

রামের জন্মের বহু আগে থেকেই নাকি রঘুকুলে পালিত গত দশহরার প্রথা! রামের পূর্বপুরুষ রাজা রঘুর আমলের একটি ঘটনা এর জন্য দায়ী। রঘুর রাজ্যে ছিলেন দেবদত্ত নামে এক ঋষি, যাঁর পুত্র কৌৎস শিক্ষালাভ করতে যান ঋষি বরতনুর কাছে। শিক্ষাশেষে ১৪টি বিষয়ে সুশিক্ষিত কৌৎস যখন গুরুকে জিজ্ঞেস করেন যে, গুরুদক্ষিণা হিসেবে কী চান তিনি, বরতনু স্মিতহাস্যে উত্তর দেন, তাঁর কিছুই চাই না, ছাত্রের সুশিক্ষাই তাঁর কাছে গুরুদক্ষিণার সমান! কিন্তু কৌৎস নাছোড়বান্দা, গুরুদক্ষিণা তিনি দেবেনই! বাধ্য হয়ে একটি অসম্ভব ইচ্ছে প্রকাশ করেন বরতনু। তিনি বলেন, ১৪টি বিষয়ে শিক্ষার দক্ষিণা হিসেবে তিনি ১৪০ লক্ষ স্বর্ণমুদ্রা চান তিনি। গুরুর ইচ্ছে পূর্ণ করতে কৌৎস যান অযোধ্যায়, দানবীর রাজা রঘুর কাছে। কিন্তু সেদিনই ব্রাহ্মণদের দানে সব সোনা দিয়ে দেওয়ার কারণে রঘু কৌৎসর কাছে তিন দিন সময় চান। কৌৎস সেই কথা শুনে বিদায় নেওয়ার পর রঘু সোজা চলে যান ইন্দ্রের কাছে। ইন্দ্র সব শুনে ডেকে পাঠান ধনের দেবতা কুবেরকে। ইন্দ্রের কথামতো কুবের অযোধ্যা রাজ্যে সেদিন ধনবৃষ্টি শুরু করেন। শোনু এবং আপতি গাছের পাতাগুলি থেকে ঝরতে থাকে সোনার মোহর! সেই মোহর একত্রিত করে কৌৎসকে দেন রাজা রঘু। ছাত্রের কাছ থেকে শুধু ১৪০ লক্ষ স্বর্ণমুদ্রা চেয়েছিলেন বরতনু, বাকিটা তিনি ফিরিয়ে দেন কৌৎসকে। কৌৎস তা আবার ফিরিয়ে দেন রঘুকে। দানবীর রঘু তা বিলিয়ে দেন তাঁর প্রজাদের মধ্যে। সেই দিনটি ছিল বিজয়া দশমীর দিন। সেদিন থেকে বিজয়া দশমীর দিন পরস্পরকে শোনু এবং আপতি বৃক্ষের পাতা সৌভাগ্যের প্রতীক হিসেবে দেওয়ার চল আছে।

POPxo এখন ৬টা ভাষায়! ইংরেজি, হিন্দি, তামিল, তেলুগু, মারাঠি আর বাংলাতেও!

এসে গেল #POPxoEverydayBeauty - POPxo Shop-এর স্কিন, বাথ, বডি এবং হেয়ার প্রোডাক্টস নিয়ে, যা ব্যবহার করা ১০০% সহজ, ব্যবহার করতে মজাও লাগবে আবার উপকারও পাবেন! এই নতুন লঞ্চ সেলিব্রেট করতে প্রি অর্ডারের উপর এখন পাবেন ২৫% ছাড়ও। সুতরাং দেরি না করে শিগগিরই ক্লিক করুন POPxo.com/beautyshop-এ এবার আপনার রোজকার বিউটি রুটিন POP আপ করুন এক ধাক্কায়...