অতিমারির এই ২০২০ আমাদের নতুন করে কী কী শেখালো ভেবেছেন?

অতিমারির এই ২০২০ আমাদের নতুন করে কী কী শেখালো ভেবেছেন?

আমরা ছোট থেকে যা ভাবিনি, একটা বছর আমাদের তাই শিখিয়ে দিয়েছে। সেরকম অভিজ্ঞতার মুখোমুখি দাঁড় করিয়েছে। যবে থেকে জ্ঞান হয়েছে, কোনওদিন ভাবিনি আমাদের এইরকম এক গৃহবন্দি পরিস্থিতির মুখোমুখি হতে পারে। এও ভাবিনি, অনেকগুলো মাস আমাদের একদম বাড়িতে বন্দি অবস্থায় থাকতে হতে পারে। কিন্তু আমরা থেকেছি, আমরা অত্যাধিক ভয়ানক ও কঠিন পরিস্থিতিতেও হাল ছেড়ে দিইনি। আমরা লড়াই করেছি, আমরা ধৈর্য্য ধরেছি। এই ২০২০ আমাদের এমন কিছু শিখিয়েছে, যা আমরা আগে কোনওদিন ভাবিনি (the pandemic taught us) ।

২০২০-র বেশিরভাগ সময়টাই অতিমারি ও সংক্রমণের আশঙ্কায় কেটেছে। অতিমারির সময়ে লকডাউনে একদম বাড়িতে বন্দি অবস্থায় আমাদের থাকতে হয়েছে। অনেকেই আর্থিক সংকটের মুখোমুখি হয়েছেন। অনেকেই মানসিকভাবে ভেঙে পড়েছেন, কিন্তু আমরা আবার উঠে দাঁড়িয়েছি। আমরা আবার লড়াই করেছি। তাহলে এই প্যানডেমিক কি শুধুই নিয়েছে? ফিরিয়ে দেয়নি কিছুই? ভেবে দেখুন তো। প্যানডেমিক কী কী শিখিয়েছে (the pandemic taught us)?

অতিমারির এই বছর কী শেখালো আমাদের?

প্যানডেমিকের এই বছর আমাদের কী কী শিখিয়েছে (the pandemic taught us)

  • ধৈর্য্যশীল হতে শিখিয়েছে
  • কঠিন পরিস্থিতির মোকাবিলা করতে শিখিয়েছে
  • আরও সতর্ক হতে শিখিয়েছে
  • সময়ে ভরসা রাখতে শিখিয়েছে
  • মন শক্ত করতে শিখিয়েছে
বাজার করার সময়েও আমরা সতর্ক থাকি

ধৈর্য্যশীল হয়েছি আমরা

কেউ কখনও ভাবতে পেরেছি, দিনের পর দিন আমাদের বাড়িতে বসে কাটিয়ে দিতে হবে? আমাদের দৈনন্দিন জীবনশৈলী হঠাৎই পাল্টে যাবে? আমরা কেউই তেমন ভাবতে পারিনি। কেউ ভাবিনি কলেজ, অফিস সব বন্ধ হয়ে যাবে। বাড়ির পরিচারিকা আসা বন্ধ করে দেবেন। অফিসের কাজের পর বাড়ির কাজও একইভাবে করতে হবে আমাদের। বিনোদনের জন্য এক মিনিটের জন্যেও বাইরে যেতে পারব না। কিন্তু সেসবই মেনে নিয়েছি আমরা। প্রথম কয়েকটি সপ্তাহ খুব কষ্ট হলেও তারপর সেটাই যেন আমাদের অভ্যাস হয়ে গিয়েছে। আমরা মেনে নিয়েছি। আমরা সেইভাবেই সামলে নিয়েছি নিজেদের। প্যানডেমিকে আমাদের ধৈর্য্য বেড়েছে (the pandemic taught us)।

লকডাউনের মতো কঠিন পরিস্থিতিরও আমরা মোকাবিলা করেছি

কঠিন পরিস্থিতির মোকাবিলা করতে শিখেছি

লকডাউনে যখন সমস্ত বন্ধ। তখনও অনেকের বাড়িতেই অনেকে অসুস্থ হয়েছেন। কিন্তু করোনা পরিস্থিতিতে চিকিৎসক পাওয়া কতটা অসুবিধার ছিল আমরা জানি। এছাড়াও আরও অনেক কঠিন পরিস্থিতি আমরা মোকাবিলা করেছি। আমরা ভেঙে পড়িনি। অনেকেরই চাকরি গিয়েছে লকডাউনে। কেন্দ্রীয় সরকার তার জন্য় কোনও পদক্ষেপ নেয়নি। চাকরি হারিয়ে বাড়িতে বসে যাওয়া কতটা যন্ত্রণার, তা অনেকেই জানেন। কিন্তু আমরা ভেঙে পড়িনি। আমরা আবার চেষ্টা করেছি। অনেকেই নতুন কম্পানিতে জয়েন করছেন।

অনেক বেশি সতর্ক হয়েছি

আরও সতর্ক হতে শিখিয়েছে

করোনা পরিস্থিতির জন্য আমরা অনেক বেশি সতর্ক হয়েছি। বারবার সাবান দিয়ে হাত ধোয়া, মাস্ক পরা এবং সামাজিক দূরত্ব মেনে চলার মতো অভ্যাসে অভ্যস্ত হয়েছি আমরা। সতর্কতার সঙ্গে দৈনন্দিন জীবনে প্রতিটা পদক্ষেপ করেছি। আমরা এইভাবেই সতর্ক হতে শিখেছি (the pandemic taught us)।

সময়ে ভরসা রাখতে শিখেছি

এক সময় মনে হতে শুরু করেছিল, এই সময়টা আর শেষই হবে না। কিন্তু আশা ভেঙে যায়নি। আমরা সময়ে ভরসা রেখেছি। এক সময় খারাপ সময় কেটে গিয়েছে। আস্তে আস্তে আমরা দৈনন্দিন জীবনে আবার ফিরেছি। অনেকেই অফিস যাওয়া শুরু করেছেন। সময়ের সঙ্গে সঙ্গে স্বাভাবিক ছন্দে ফিরেছি আমরা।

আমরা সময়ে ভরসা রেখেছি

মন শক্ত রেখেছি

চাকরি হারিয়ে বা প্রিয়জনের অসুস্থতার পর অনেকেই মানসিক ভাবে ভেঙে পড়েছিলেন প্যানডেমিকে। এই সময়ে বেড়েছিল আত্মহত্যার হার। কিন্তু সেইখানেই সব শেষ হয়ে যায়নি। আবার স্বাভাবিক ছন্দে ফিরছে মানুষ। কারণ, প্যানডেমিক আমাদের মানসিকভাবে শক্তিশালী করেছে। আমরা মন শক্ত রেখে সমস্ত পরিস্থিতির মোকাবিলা করতে পেরেছি (the pandemic taught us)।

POPxo এখন চারটে ভাষায়!ইংরেজি, হিন্দি, মারাঠি আর বাংলাতেও!

বাড়িতে থেকেই অনায়াসে নতুন নতুন বিষয় শিখে ফেলুন। শেখার জন্য জয়েন করুন
#POPxoLive, যেখানে আপনি সরাসরি আমাদের অনেক ট্যালেন্ডেট হোস্টের থেকে নতুন
নতুন বিষয় চট করে শিখে ফেলতে পারবেন। POPxo App আজই ডাউনলোড করুন আর জীবনকে আরও একটু পপ আপ করে ফেলুন!