অবশেষে সাত পাকে বাঁধা পড়লেন নুসরত জাহান ও নিখিল জৈন

অবশেষে সাত পাকে বাঁধা পড়লেন নুসরত জাহান ও নিখিল জৈন

অবশেষে সাত পাকে বাঁধা পড়লেন নুসরত জাহান (Nusrat Jahan) আর নিখিল জৈন (Nikhil jain)। কাল তুরস্কের বোদরুমে এক মায়াবি সন্ধ্যায় চার হাত এক হল দু'জনের। লাল রঙের উজ্জ্বল লেহঙ্গা-চোলিতে নববধূ নুসরতকে ভারী সুন্দর দেখাচ্ছিল। প্রথমে শোনা গিয়েছিল যে, নুসরত নাকি ডিজাইনার সব্যসাচী মুখোপাধ্যায়ের তৈরি লেহঙ্গা পরেই বিয়েটা করবেন! তা নিয়েও প্রশ্ন তুলেছিল নিন্দুকে, যাঁর হবু স্বামীর বিখ্যাত পোশাক ব্র্যান্ড 'রঙ্গোলি' আছে, তিনি কেন অন্য ডিজাইনারের লেহঙ্গা পরতে যাবেন! শেষ পর্যন্ত দেখা গেল, রঙ্গোলির টুকটুকে লাল লেহঙ্গাই পরলেন নুসরত, যা তাঁর শাশুড়িমা তাঁর জন্য পছন্দ করেছিলেন! আর সুন্দরী নায়িকা ও সাংসদের সঙ্গে দিব্যি পাল্লা দিলেন ব্যবসায়ী নিখিল জৈনও। মাথায় পাগড়ি আর সাদা গোলাপির মিশ্রণে তৈরি শেরওয়ানিতে নতুন বরও সকলের দৃষ্টি আকর্ষণ করছিলেন। বোদরুমের সিক্সথ সেন্স কাপালাঙ্কায়া হোটেল থেকে এই বিয়ের ছবি নতুন বউ নুসরত নিজেই পোস্ট করেছেন তাঁর ইন্সটাগ্রাম অ্যাকাউন্টে। ছবির ক্যাপশনে তিনি লিখেছেন "হ্যাপিলি এভার আফটার!" 

 

তবে সব মেয়ের মতো নুসরতও যে বিয়ের আগে যথেষ্ট টেনশনে ছিলেন সেটা আগে থেকেই বোঝা যাচ্ছিল। কারণ, সদ্য ভোটে জেতার পরেই তাঁর বিয়ের খবর প্রকাশ্যে আসে। বিয়ের পরেই তাঁকে কাজে যোগ দিতে হবে।  অবশ্যই তার আগে নিখিল আর নুসরত তাঁদের মধুচন্দ্রিমা সেরে নেবেন ইউরোপের কোনও একটা শহরে। হনিমুন ডেসটিনেশান হিসেবে ইউরোপই পছন্দ নুসরত আর নিখিলের। নুসরত দেশের বাইরে বিয়ে করছেন বলে তার সহকর্মীদের মধ্যে একমাত্র মিমি ছাড়া কেউই এই বিয়েতে যোগদান করতে পারেনি। সেইজন্য জুলাই মাসের গোড়াতেই কলকাতার পাঁচতারা হোটেলে সবাইকে নিয়ে পার্টি দেবেন নুসরত ও নিখিল। তারপরই শুরু হবে অভিনেত্রীর রাজনৈতিক জীবন। সঙ্গে ছবির কাজ তো আছেই। তাই সব মিলিয়ে চাপ বেশ ভালই আছে নুসরতের উপর। সেই জন্যই বোধ হয় তুরস্কে পৌঁছে যে প্রথম ছবিটি তিনি পোস্ট করেছিলেন সোশ্যাল মিডিয়ায়, সেখানে তিনি সকলের আশীর্বাদ চেয়েছেন। এখানে রইল তাঁরা অফিশিয়ালি মিস্টার অ্যান্ড মিসেস জৈন হওয়ার পর প্রথম ছবিটি, যা নায়িকা নিজের সোশ্যাল মিডিয়া অ্যাকাউন্টে পোস্ট করেছেন...

View this post on Instagram

Towards a happily ever after with @nikhiljain09 ❤️

A post shared by Nusrat (@nusratchirps) on

যদিও বিয়েটা নুসরতের, সুতরাং মধ্যমণি যে তিনিই, সেই বিষয়ে কোনও সন্দেহ নেই। কিন্তু এটা ভুলে গেলে চলবে না যে সেখানে আরও একজন সুন্দরী নায়িকা উপস্থিত আছেন। হ্যাঁ, ঠিক ধরেছেন, আমি মিমির কথা বলছি। যদিও মিমি চক্রবর্তী বান্ধবীর বিয়েতে কী পরেছিলেন সেটা এখনও জানা যায়নি। তবে তুরস্ক মিমির পরিচিত জায়গা। তিনি এর আগে সেখানে শুটিং করেছেন। তাই বোদরুম পৌঁছেই হলুদ পোশাকে একটি ছবি পোস্ট করেন তিনি। 

View this post on Instagram

#njaffair All set

A post shared by Mimi (@mimichakraborty) on

তবে পুরো বিষয়টা মধুরেণ সমাপয়েৎ হয়েও হল না। কারণ, নুসরত এবং মিমি দুজনেই এখন দেশের বাইরে। কলকাতায় ডাক্তার বনাম রোগীর যখন ধুন্ধুমার লড়াই চলছে, যখন এই শহরে রাতে অপ্রীতিকর পরিস্থিতির শিকার হতে হচ্ছে প্রাক্তন মিস ইন্ডিয়া ইউনিভার্স ঊষসী সেনগুপ্তকে, তাঁরা তখন বিদেশে বিয়ে নিতে মেতে আছেন! এই নিয়ে ট্রোলডও হতে হয়েছে তাঁদের। অনেকেই প্রশ্ন করেছেন যে, এই মুহূর্তে পশ্চিমবঙ্গের অশান্ত পরিবেশ সম্পর্কে তাঁরা আদৌ কিছু জানেন কিনা? কেউ কেউ প্রশ্ন করেছেন, যাঁরা সাংসদ হওয়ার শপথ গ্রহণ অনুষ্ঠানেই থাকার প্রয়োজন মনে করেন না তাঁরা দেশের দায়িত্ব কী করে নেবেন? তবে জবাব দেননি কেউই। 

আশা রাখি, বিদেশ থেকে ফিরে তাঁরা নিজের দায়িত্ব বুঝে নেবেন। তবে তার আগে নুসরত আর নিখিলের জন্য রইল অনেক, অনেক শুভেচ্ছা। আর আপনিও সাক্ষী থাকুন সেই 'ফেয়ারিটেল ওয়েডিং'-এর। দেখে নিন সেই ভিডিয়ো। 

 

 

POPxo এখন ৬টা ভাষায়! ইংরেজি, হিন্দি, তামিল, তেলুগু, মারাঠি আর বাংলাতেও!


আপনি যদি রংচঙে, মিষ্টি জিনিস কিনতে পছন্দ করেন, তা হলে POPxo Shop-এর কালেকশনে ঢুঁ মারুন। এখানে পাবেন মজার-মজার সব কফি মগ, মোবাইল কভার, কুশন, ল্যাপটপ স্লিভ ও আরও অনেক কিছু!