গুমনামী বাবাকে নিয়ে আবার ফিরে আসছে সৃজিত-প্রসেনজিতের হিট জুটি

গুমনামী বাবাকে নিয়ে আবার ফিরে আসছে সৃজিত-প্রসেনজিতের হিট জুটি

নেতাজি সুভাষচন্দ্র বসুকে নিয়ে বাঙালি যতটা গর্বিত, ঠিক ততটাই দ্বন্দ্ব রয়ে গেছে তাঁর মৃত্যু রহস্য নিয়ে! ইতিহাস বলে, বিমান দুর্ঘটনায় মৃত্যু হয়েছিল তাঁর। কিন্তু এই ঘটনার সঙ্গে-সঙ্গে আরও একটি কিংবদন্তি প্রচলিত আছে দেশবরেণ্য এই নেতাকে ঘিরে। নেতাজির অন্তর্ধানের পর ১৯৭০ সাল নাগাদ উত্তরপ্রদেশের ফৈজাবাদ শহরে এক রহস্যময় সাধুর (gumnami baba) আবির্ভাব ঘটে। এই সাধুর কাছে এমন কিছু জিনিসপত্র পাওয়া যায়, যেগুলো দেখে অনেকের ধারণা হয় যে, এই সাধুই আসলে নেতাজি সুভাষচন্দ্র বসু। নেতাজির দেহ সৌষ্ঠবের সঙ্গে এই সাধুর (gumnami baba) বিশেষ কিছু মিল ছিল। তিনি নিজের পরিচয় সকলের সামনে আনতেন না বলে তাঁকে গুমনামী বাবা (gumnami baba) বলে অভিহিত করা হয়। এই ধারণা আরও বদ্ধমূল হয় যখন এই তথ্য সামনে আসে যে প্রতি বছর ২৩ জানুয়ারি দেশের কয়েকজন বিশিষ্ট নেতা তাঁর সঙ্গে দেখা করতে যেতেন। ঘটনাচক্রে ২৩ জানুয়ারি নেতাজিরও জন্মদিন। আগুনের মতো এই খবর সারা দেশে ছড়িয়ে পড়ে যে, এই গুমনামী বাবাই হলেন নেতাজি! তবে এর কোনও প্রামাণ্য তথ্য নেই। কিন্তু গুমনামী বাবার সঙ্গে নেতাজির সম্পর্ক ভারতীয় ইতিহাসের একটি অন্যতম বিতর্কিত বিষয়। 




 

 

 


View this post on Instagram


 

 

A new journey begins today. Need your love and blessings as always. #Gumnami #Muharat


A post shared by Prosenjit Chatterjee (@prosenstar) on




 এই বিতর্কিত বিষয়টিকেই পর্দায় নিয়ে আসছেন পরিচালক সৃজিত মুখোপাধ্যায় (Srijit Mukherjee)। তিনি যে এই বিষয় নিয়ে ছবি করেছেন, সেটা ইতিমধ্যেই অনেকে জানেন। গত বছরেই অগস্ট মাসে সৃজিত ঘোষণা করেছিলেন যে, এই বিষয় নিয়ে তিনি ছবি তৈরি করতে চলেছেন। এই বছরেই ২৩ জানুয়ারি অর্থাৎ নেতাজির জন্মদিনের আগে প্রযোজনা সংস্থা এসভিএফের তরফ থেকে এবং সৃজিত স্বয়ং ছবির পোস্টার সোশ্যাল মিডিয়ায় সকলের সঙ্গে শেয়ার করে নেন। স্বভাবতই সৃজিতের প্রতিটি ছবিতেই থাকে অসম্ভব নিখুঁত গবেষণা এবং ডিটেলিং। তিনি জানান যে, নেতাজির অন্তর্ধান নিয়ে মুখার্জি কমিশন যে রিপোর্ট দিয়েছিল, তার ভিত্তিতেই এই ছবির গবেষণার কাজ শুরু করেছেন তিনি। তবে তিনি এই বিষয় নিয়ে ছবি করছেন এই কথা প্রকাশ্যে আসা মাত্রই তা বিতর্কের সম্মুখীন হয়। নেতাজির প্রপৌত্র চন্দ্র বসু ছবির বিষয় নিয়ে আপত্তি তোলেন। চন্দ্র বসু বলেন নেতাজিকে গুমনামী বাবা হিসেবে পর্দায় উপস্থাপন করা নিয়ে তাঁর আপত্তি আছে। 



তবে এত দিনে বোধ হয় সব দুশ্চিন্তার মেঘ কেটে গেছে! কারণ, কিছুদিন আগেই অভিনেতা প্রসেনজিৎ চট্টোপাধ্যায় (Prosenjit Chatterjee) সোশ্যাল মিডিয়ায় একটি ছবি শেয়ার করেন। যেখানে দেখা যায় বুম্বাদা খুব মন দিয়ে গুমনামী বাবার চিত্রনাট্য পড়ছেন! হ্যাঁ, একদম ঠিক ভাবছেন আপনারা। এই ঐতিহাসিক চরিত্রে তাঁকেই দেখা যাবে। তবে সৃজিত ঠিক কীভাবে ছবিতে গুমনামী বাবাকে দেখাবেন, সেটা নিয়ে সকলের আগ্রহ তুঙ্গে। 




 

 

 


View this post on Instagram


 

 

As we start #Gumnaami shoot today, Mahakaal gives us his blessing!


A post shared by Srijit Mukherji (@srijitmukherji) on




গতকালই হয়েছে এই ছবির মহরত। আর সেই ছবি সোশ্যাল মিডিয়ায় পোস্ট করেছেন সৃজিত মুখোপাধ্যায় ও প্রসেনজিৎ চট্টোপাধ্যায়। সৃজিত অবশ্য শুধু মহরতের ছবি পোস্ট করেই থেমে থাকেননি। সম্প্রতি কেন্দ্রীয় সরকার ঘোষণা করেছেন যে, নেতাজিকে দেশের প্রথম প্রধানমন্ত্রীর স্বীকৃতি দিয়ে ২১ অক্টোবর পালিত হবে আজাদ হিন্দ দিবস। পরিচালক মনে করেছেন, ছবির শুটিং শুরু হওয়ার দিনেই এরকম একটি খবর ঈশ্বরের আশীর্বাদের মতোই এসেছে। এর আগে বক্স অফিসে সৃজিতের 'এক যে ছিল রাজা' ভালই সাফল্য পেয়েছিল। এবার গুমনামী বাবা সৃজিতকে কতটা সাফল্য দিতে পারেন, সেটাই দেখার! 


POPxo এখন ৬টা ভাষায়! ইংরেজি, হিন্দি, তামিল, তেলুগু, মারাঠি আর বাংলাতেও! 


আপনি যদি রংচঙে, মিষ্টি জিনিস কিনতে পছন্দ করেন, তা হলে POPxo Shop-এর কালেকশনে ঢুঁ মারুন। এখানে পাবেন মজার-মজার সব কফি মগ, মোবাইল