মুখোমুখি সৃজিত, সাক্ষাৎকার নিলেন মিথিলা, কোন কোন প্রশ্নের উত্তর দিলেন পরিচালক?

মুখোমুখি সৃজিত, সাক্ষাৎকার নিলেন মিথিলা, কোন কোন প্রশ্নের উত্তর দিলেন পরিচালক?

ইন্টারভিউ। অর্থাৎ সাক্ষাৎকার। পরিচালনায় হাতেখড়ি থেকেই সাক্ষাৎকারের সঙ্গে তিনি পরিচিত। আর এখন তো পরিচালক হিসেবে তিনি নিজেই একটি ব্র্যান্ড। ফলে সাক্ষাৎকার তিনি অজস্র দিয়েছেন। কখনও তা বিস্ফোরক। কখনও সেখানে শুধুই কাজের খবর। কখনও বা সম্পর্কের গসিপ। তিনি অর্থাৎ সৃজিত (srijit) মুখোপাধ্যায়। কিন্তু সম্প্রতি এমন একটি সাক্ষাৎকার দিলেন, যা তাঁর অভিজ্ঞতায় প্রথমবার। স্ত্রী অর্থাৎ মিথিলার (Mithila) সামনে বসে সাক্ষাৎকার দিলেন সৃজিত। মিথিলা সেখানে ছিলেন প্রশ্নকর্তার ভূমিকায়।

না! এ দৃশ্য ফিল্মি নয়। বরং ঘোর বাস্তব। সত্যিই এমন এক অভিনব সাক্ষাৎকারে মুখোমুখি হলেন সৃজিত-মিথিলা। বাস্তবের দম্পতি ক্যামেরার সামনে বসলেন মুখোমুখি। একজন প্রশ্ন করলেন। আর একজন পর পর দিলেন উত্তর। দুজনে মিলে কোনও সাংবাদিকের প্রশ্নের মুখোমুখি, এ পরিস্থিতি তো আগেও হয়েছে। কিন্তু সৃজিতকে হট সিটে বসিয়ে মিথিলাই হোস্ট, এ দৃশ্য এর আগে দেখেননি দর্শক। সোশ্যাল মিডিয়ায় নিজেদের এই অভিনব অভিজ্ঞতার কথা ভাগ করে নিয়েছেন দম্পতি। 

এই অভিনব সাক্ষাৎকারের আয়োজন করেছিলেন বাংলা ভিশন স্টুডিওর কর্তারা। অনুষ্ঠানের নাম 'আমার আমি আমার স্বামী'। সৃজিতের একান্ত সাক্ষাৎকার বলে কথা... তাও আবার মিথিলার সামনে। তা তো স্পেশ্যাল হবেই। দর্শকের প্রত্যাশার পারদও উঠছে। শুটিংয়ের পর নিজেদের ছবিও শেয়ার করেছেন দম্পতি। বিয়ের পর প্রথম ভ্যালেন্টাইনস ডে-র আগে সেলেব জুটির নয়া চমক। নিঃসন্দেহে তাঁদের কাছেও এই অভিজ্ঞতা খুবই স্পেশ্যাল। 

 

 

কিছুদিন আগে কলকাতায় সৃজিতের বাড়িতেই রেজিস্ট্রি বিয়ে সেরেছেন তাঁরা। সঙ্গে ছিল মিথিলার মেয়ে আইরাও। ঘনিষ্ঠ বন্ধু এবং পরিবারের সদস্যদের নিয়ে সেলিব্রেশনও হয়েছিল। লাল-কালোর কম্বিনেশনে বিয়ের পোশাক বেছে নিয়েছিলেন দম্পতি। হঠাৎ করেই তাঁদের বিয়ের খবর সামনে আসে। তার আগে শোনা গিয়েছিল, এই বছরই বিয়ে করবেন সৃজিত-মিথিলা। তবে ডেট নিয়ে শেষ পর্যন্ত ধোঁয়াশা বজায় রেখেছিলেন দু'জনে।  

বিয়ের পর সুইৎজারল্যান্ডে হনিমুনে গিয়েছিলেন সৃজিত-মিথিলা। সেখান থেকে ফিরে নিজের পড়াশোনা, কাজ নিয়ে ব্যস্ত হয়ে পড়েন মিথিলা। সৃজিতও ব্যস্ত হয়ে পড়েন শুটিং ফ্লোরে। ওয়েবের জন্য ফেলুদা তৈরি করছেন সৃজিত। তার শুটিংয়ে মিথিলাও সঙ্গে গিয়েছিলেন। আবার কখনও বা মিথিলাকে সারপ্রাইজ দিতে বাংলাদেশ পৌঁছে যান সৃজিত। আসলে দুই শিল্পীর কর্মক্ষেত্র দুটো আলাদা দেশ। ফলে কাজের বাইরে একসঙ্গে সময় কাটানোটাই তাঁদের কাছে মূল্যবান মুহূর্ত। তার মধ্যে যদি এমন ডকুমেন্টেড সাক্ষাৎকারের সুযোগ হয়, তা তো আলাদা হবেই। মিথিলার কড়া প্রশ্নের সামনে সৃজিত কি আদৌ ছক্কা হাঁকাতে পারলেন? সেটাই এখন দেখার।

POPxo এখন ৬টা ভাষায়! ইংরেজি, হিন্দি, তামিল, তেলুগু, মারাঠি আর বাংলাতেও!

আমাদের এক্কেবারে নতুন POPxo Zodiac Collection মিস করবেন না যেন! এতে আছে নতুন সব নোটবুক, ফোন কভার এবং কফি মাগ, যেগুলো দারুণ ঝকঝকে তো বটেই, আর একেবারে আপনার কথা ভেবেই তৈরি করা হয়েছে। হুমম...আরও একটা এক্সাইটিং ব্যাপার হল, এখন আপনি পাবেন ২০% বাড়তি ছাড়ও। দেরি কীসের, এখনই POPxo.com/shopzodiac-এ যান আর আপনার এই বছরটা POPup করে ফেলুন