আপনার জন্য 'পার্সেল' রেডি করেছেন ঋতুপর্ণা সেনগুপ্ত, কবে পাবেন? কী কী থাকছে সেখানে?

আপনার জন্য 'পার্সেল' রেডি করেছেন ঋতুপর্ণা সেনগুপ্ত, কবে পাবেন? কী কী থাকছে সেখানে?

"সবারই কোনও না কোনও একটা পাস্ট থাকে। সেটাকে প্রেজেন্টে আনা কি খুব দরকার?" "আমাকে কেউ অদ্ভুত ভাবে ট্র্যাক করছে। স্টক করছে আমায়।"- এই কথাগুলো বলছেন ঋতুপর্ণা (Rituparna) সেনগুপ্ত। না! একটু ভুল হল। বলছেন মিসেস নন্দিনী রায়। 'পার্সেল' (parcel)-এর নন্দিনী। যাঁকে তৈরি করেছেন ইন্দ্রাশিস আচার্য।

এই ছবিতে একেবারে অন্য ঋতুপর্ণাকে দেখবেন দর্শক। ফার্স্ট লুকেই বোঝা গিয়েছিল, পর্দা জুড়ে প্রায় মেকআপ ছাড়া নায়িকাকে দেখবেন আপনি। "খুব ইউনিক কনসেপ্ট। পার্সেল কীভাবে মানুষের জীবন বদলে দিতে পারে, মন কত ভাল বা খারাপ করে দিতে পারে, পরিবারের মধ্যে, সম্পর্কের মধ্যে কত কী ঘটনা ঘটে ওই পার্সেল ঘিরে, তারপর বড় আকার নেয়, সেটাই রয়েছে এই ছবিতে" শেয়ার করলেন ঋতুপর্ণা।

ট্রেলার দেখে যেটুকু আন্দাজ পাওয়া গিয়েছে, ছবিতে একের পর এক পার্সেলে সারপ্রাইজ গিফট পাচ্ছেন মিসেস নন্দিনী রায়। সেটা দেখে তাঁর মনে হয় অতীতের কাজের জন্য কেউ হয়তো ব্ল্যাকমেল করছে। এর থেকেই ফিয়ার সাইকোসিস তৈরি হয়। সেটা কাটাতেই বিভিন্ন ঘটনা ঘটে। ঋতুপর্ণার কথায়, "নন্দিনীর মধ্যে অনেক রকম ঝড় বইছে। ও পেশায় চিকিৎসক। সেই ভূমিকা বদল হয়েছে। কীভাবে চেঞ্জ হয়ে যাচ্ছে সব কিছু। চাকরি নিয়েও সমস্যা হয়েছে। মা হিসেবেও ও কেমন পারফর্ম করছে সেটা দেখার। সব সময়ই যেন একটা ডিলেমার মধ্যে থাকে। বেশ কিছু সোশ্যাল সমস্যা নিয়েও কথা বলেছে ছবিটা।"

 

 

পরিচালক ইন্দ্রাশিসের সঙ্গে ঋতুপর্ণা। ছবি ইনস্টাগ্রামের সৌজন্যে।

ইন্দ্রাশিস আগেই জানিয়েছিলেন, এই ছবিতে ডাক্তার দম্পতি রয়েছেন। যে চরিত্র দুটো করেছেন শাশ্বত চট্টোপাধ্যায় এবং ঋতুপর্ণা সেনগুপ্ত। ঋতুপর্ণা এখন আর ডাক্তারিটা করেন না। কেন করে না, সেটাই ছবিতেই দেখিয়েছেন। একইসঙ্গে শাশ্বত যে হাসপাতালে কাজ করেন সেখানে রোগীমৃত্যুর ঘটনা অন্য দিকে মোড় নেয়। পাশাপাশি ঋতুপর্ণার অতীতও যেন সামনে এসে দাঁড়ায়...। সোশিও পলিটিক্যাল ইস্যু রয়েছে। যে সব নিয়ে বাংলায় খুব একটা ছবি হয় না। আন্ডার মেডিক্যাল সিস্টেম মডার্ন ক্রাইসিসটা দেখিয়েছেন ইন্দ্রাশিস।

 

ছবির পোস্টারে ঋতুপর্ণা এবং শাশ্বত।

ইন্দ্রাশিসের সঙ্গে প্রথমবার কাজ করলেন ঋতুপর্ণা। আর প্রথম কাজেই পরিচালকের ভূয়সী প্রশংসা করলেন নায়িকা। "ইন্দ্রাশিস মনোজ্ঞ ডিরেক্টর। ওর আগের কাজ দেখে মুগ্ধ হয়েছি। ওর ভিশন খুব পরিষ্কার। গল্প বলার ধরনটা ইন্টারেস্টিং। সূক্ষ্ম থেকে সূক্ষ্ম বিষয় নিয়ে আসে। পার্সেল নামটার মধ্যেই তো ভাল, খারাপ রহস্য লুকিয়ে রয়েছে। আর ইন্দ্রাশিস একেবারে আলাদা একটা প্রফেশন থেকে সিনেমা নিয়ে যে ভাবছে, সেটাই তো ভাল। আমি সব সময়ই নতুনদের নিয়ে কাজ করতে ভালবাসি। তাদেরকে সুযোগ না দিলে, ট্যালেন্টটা দেখাবে কী করে? আমরাও তো এক সময় নতুনই ছিলাম" বললেন ঋতুপর্ণা। 

আরও পড়ুন, বাংলা সিনেমার ১০০ বছরে অরিন্দমের ট্রিবিউট, ঋতুপর্ণা-আবিরের 'মায়াকুমারী'

ঋতুপর্ণা জানালেন এই ছবিতে আন্তর্জাতিক মানের মিউজিক তৈরি হয়েছে। দায়িত্বে ছিলেন জয় সরকার। গান গেয়েছেন ঋতুপর্ণা সেনগুপ্ত এবং শ্রীলা মজুমদার। ছবিটি মুক্তি পাবে আগামী ১৩ মার্চ। 

POPxo এখন ৬টা ভাষায়! ইংরেজি, হিন্দি, মারাঠি আর বাংলাতেও!

২০২০ শুরু করুন আমাদের দারুণ দারুণ প্ল্যানার আর স্টেটমেন্ট সোয়েটশার্ট দিয়ে। এগুলো সবকটাই আপনারই মতো একশ শতাংশ মজার এবং অসাধারণ! ওহ হ্যাঁ, শুধুমাত্র আপনার জন্য রয়েছে ২০ শতাংশ ছাড়ের ব্যবস্থাও। দেরি কিসের আর, এখনই POPxo.com/shop থেকে কেনাকাটা সেরে ফেলুন আর নিজেকে আরেকটু পপ আপ করে ফেলুন!