করোনা আতঙ্কের জেরে বলি, টলিতে বন্ধ শুটিং, 'র‌্যাপিড রেসপন্স টিম'ও তৈরি রাখছে ভারত

করোনা আতঙ্কের জেরে বলি, টলিতে বন্ধ শুটিং, 'র‌্যাপিড রেসপন্স টিম'ও তৈরি রাখছে ভারত

বিশ্বজুড়ে এই মুহূর্তে আতঙ্কের নাম করোনা ভাইরাস (coronavirus)। বাংলায় আক্রান্তের খবর এখনও নেই। কিন্তু গৃহ পর্যবেক্ষণে রাখার তালিকা ক্রমশ বাড়ছে। করোনা প্রভাবিত সাতটি দেশ (চিন, কোরিয়া, ফ্রান্স, জার্মানি, স্পেন, ইটালি, ইরান) থেকে আসা যাত্রীদের কোয়রান্টিনে রাখার জন্য শুক্রবার রাতে নির্দেশিকা দেওয়া হয়। সতর্ক থাকার জন্য বলিউডে (Bollywood) সমস্ত সিনেমা, সিরিয়াল, ওয়েব সিরিজের শুটিং বন্ধ রাখার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছিল আগেই। আগামী ১৯ মার্চ থেকে ৩১ মার্চ পর্যন্ত বন্ধ থাকবে সব শুটিং (Shooting )। এবার সেই পথেই হাঁটতে চলেছে টলিউডও (Tollywood)। 

কেরালা, কর্নাটক, মহারাষ্ট্রে বেশ কিছু সিনেমা হলের দরজা এই মুহূর্তে বন্ধ। করোনা আতঙ্কে দিল্লি এবং মুম্বইয়ে ইতিমধ্যেই বন্ধ হয়ে গেছে সিনেমাহল। এ বার শুটিং-ও বন্ধ হল। এখনও পর্যন্ত ভারতে আক্রান্তের সংখ্যা ১০৭। এর মধ্যে মৃত্যু হয়েছে দু'জনের। এই পরিস্থিতিতে কোনওরকম ঝুঁকি নিয়ে শুটিং করতে চাইছেন না মুম্বই এবং বাংলা ইন্ডাস্ট্রির সদস্যরা। কারণ শুটিং মানেই সেখানে বহু মানুষের সমাগম। তার মধ্যে থেকে যদি কোনও ভাবে সংক্রমণ ছড়িয়ে পড়ে, সেই আশঙ্কায় বন্ধ করে দেওয়া হল শুটিং। বাকি থাকা সব শুটিং ১৮ মার্চের মধ্যে শেষ করে ফেলতে হবে। 

করোনা সংক্রমণ রুখতে পরবর্তী পদক্ষেপ কী হবে তা আলোচনা করতে ইম্পা, ফেডারেশনের সমস্ত সদস্য ও কর্মকর্তারা মিটিংয়ের আয়োজন করেছেন। আজ সোমবার বিকেল চারটে নাগাদ সেই বৈঠক হওয়ার কথা। কিন্তু তার আগেই একপ্রকার শুটিং বন্ধের পক্ষে সওয়াল করছেন ইন্ডাস্ট্রির অধিকাংশ সদস্য। ফলে শুটিং যে আগামী কয়েকদিনের জন্য বন্ধ হতে চলেছে, সে সম্পর্কে একপ্রকার নিশ্চিত সব পক্ষই। 

 

করোনা গ্রুপের ২০১৯ এনসিওভি নামের ভাইরাস থেকেই এই রোগ ছড়িয়ে পড়ছে। কয়েক দশক আগেও এই ভাইরাস এত মারাত্মক ছিল না। কিন্তু জিনগত মিউটেশনের ফলে কোনও কোনও ভাইরাস তার স্বভাব, আকার, প্রকৃতি বদলে ফেলে। ফলে সব রকম ভাবে প্রতিরোধের চেষ্টা চলছে। চিকিৎসকরা ক্রমাগত সচেতন করার চেষ্টা করছেন। বেলুড়, দক্ষিণেশ্বর, জাদুঘর, বিড়লা তারামন্ডলের মতো বিভিন্ন জায়গায় যেখানে বহু মানুষের সমাগম দৈনন্দিনের ঘটনা, তা বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে। স্কুল, কলেজ বন্ধ থাকছে আগামী বেশ কয়েকটা দিন। 

অন্যদিকে করোনা মোকাবিলায় সার্ক গোষ্ঠীভুক্ত দেশগুলির বৈঠকে আতঙ্কিত না হওয়ার পরামর্শই দিলেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী। একই সঙ্গে করোনা-মোকাবিলায় একটি যৌথ তহবিল গড়ার প্রস্তাব দিয়ে মোদীর ঘোষণা, ভারত এই তহবিলে প্রাথমিক ভাবে ১ কোটি মার্কিন ডলার দেবে। সার্ক-এর যে কোনও দেশ জরুরিভিত্তিতে করোনা ভাইরাস মোকাবিলার জন্য এই তহবিলের টাকা ব্যবহার করতে পারবে। বিদেশসচিবেরা বিষয়টি চূড়ান্ত করবেন। করোনা-তহবিলে অর্থের পাশাপাশি প্রধানমন্ত্রী জানিয়েছেন, চিকিৎসক, বিশেষজ্ঞ এবং প্রশিক্ষিত কর্মী ও প্রয়োজনীয় যন্ত্রাপাতি সম্বলিত একটি 'র‌্যাপিড রেসপন্স টিম'ও তৈরি রাখছে ভারত। সার্ক অঞ্চলের যে কোনও দেশ প্রয়োজন মতো একে কাজে লাগাতে পারে।

POPxo এখন ৬টা ভাষায়! ইংরেজি, হিন্দি, মারাঠি আর বাংলাতেও!

২০২০ শুরু করুন আমাদের দারুণ দারুণ প্ল্যানার আর স্টেটমেন্ট সোয়েটশার্ট দিয়ে। এগুলো সবকটাই আপনারই মতো একশ শতাংশ মজার এবং অসাধারণ! ওহ হ্যাঁ, শুধুমাত্র আপনার জন্য রয়েছে ২০ শতাংশ ছাড়ের ব্যবস্থাও। দেরি কিসের আর, এখনই POPxo.com/shop থেকে কেনাকাটা সেরে ফেলুন আর নিজেকে আরেকটু পপ আপ করে ফেলুন!