রাজের ‘পরিণীতা’য় কেমন ছিল শুভশ্রীর জার্নি? Exclusive আড্ডায় শেয়ার করলেন নায়িকা

রাজের ‘পরিণীতা’য় কেমন ছিল শুভশ্রীর জার্নি? Exclusive আড্ডায় শেয়ার করলেন নায়িকা

আগামী ৬ সেপ্টেম্বর মুক্তি পেতে চলেছে রাজ (Raj) চক্রবর্তী পরিচালিত ছবি ‘পরিণীতা’ (Parineeta)। মুখ্য ভূমিকায় অভিনয় করেছেন শুভশ্রী (subhashree) গঙ্গোপাধ্যায় এবং ঋত্বিক চক্রবর্তী। বিয়ের পর এটাই শুভশ্রীর কামব্যাক ছবি। সেই অর্থে রাজ-শুভশ্রী জুটির পারফরম্যান্স দেখার অপেক্ষায় রয়েছেন দর্শক। কেমন ছিল এই ছবির জার্নি? POPxo বাংলার সঙ্গে এক্সক্লুসিভ আড্ডায় শেয়ার করলেন শুভশ্রী। 

ওয়েলকাম টু bangla.popxo.com

থ্যাঙ্ক ইউ সো মাচ।

ওয়েলকাম টু bangla.popxo.com

ভাল। আপনি? 

কেমন আছেন?

মানে?

ভাল আছি। কিন্তু আপনি শুধু ভাল বলে থেমে গেলেন?

হ্যাঁ, আমি সব সময়ই ভাল থাকি।

আসলে খুব ভাল শুনব এক্সপেক্ট করেছিলাম।

তাই?

আর এখন তো শুভ সময় চলছে আপনার বা আপনাদের…

হুম। রাজ যে এত বড় একটা দায়িত্ব পেয়েছে আমি খুব খুশি। আমি সিওর ও জাস্টিস করতে পারবে। আর ‘পরিণীতা’ও সকলের ভাল লাগবে আশা করছি। এখন যেখানেই যাচ্ছি, সকলে ছবিটার কথা জানতে চাইছে।

তাই নয় বলুন? কলকাতা আন্তর্জাতিক চলচ্চিত্র উৎসবের চেয়ারপার্সন হলেন রাজ। নিজের প্রোডাকশনের প্রথম ডিরেকশন ‘পরিণীতা’ রিলিজ করবে…

আসলে আমার দিদি ফেসবুকে গল্পটা পড়ে আমাকে বলে। তার পর আমি রাজকে বলেছিলাম। চার লাইনের গল্প ছিল। সেটা ও ডেভলপ করতে দেয়। সবার খুব ভাল লাগে। ‘পরিণীতা’র যতগুলো ড্রাফট হয়েঠে সব শুনেছি। আমার চরিত্রের নাম মেহুল। এই মেহুলের মধ্যে আমি প্রথম থেকেই ছিলাম। সোহিনীদি মানে সোহিনী সেনগুপ্তের কাছে ওয়ার্কশপ করেছি। মানে, চরিত্রটা ভাল করে করার জন্য যা যা করতে হয় সব করেছি। ‘পরিণীতা’য় এমন কিছু অভিনয়ের মধ্যে আনতে চেয়েছিলাম যা দর্শক আগে  দেখেনি। 

‘পরিণীতা’র প্রথম থেকেই তো আপনি জড়িয়ে ছিলেন। শুরুটা একটু বলুন প্লিজ…

সোহিনীদি বলেছিল, দেখ অভিনয় তো শেখানো যায় না। ইউ হ্যাভ টু ফিল দ্য ক্যারেক্টার ফ্রম ইয়োর হার্ট। বিশ্বাস করুন, প্রথম দিন সেটে গিয়ে দেখলাম মেহুল হয়ে গিয়েছি। মানে আলাদা করে এফর্ট দিতে হয়নি। আর একটু ভেঙে বলি?

ওয়ার্কশপের অভিজ্ঞতা কেমন ছিল?

https://www.instagram.com/p/BzmySZ_ADOD/

অনেক সময় হয় না, দুঃখের সিন করতে গেলে দুঃখ পেতে হবে সেটে। আই মিন সেই ইমোশনটা তখন জরুরি হয়ে পড়ে। অনেকে বলে এরকম। কিন্তু আমার মনে হয় এমন কিছুরই দরকার হয় না। শুধু ক্যারেক্টারটা টপ টু বটম ফিল করতে হয়। মেহুলের ক্ষেত্রে আমার সেটাই হয়েছে। 

প্লিজ…

দেখুন, মূলত লুক স্কেচ করেছে ডিরেক্টর। রাজের যা ভিশন সেই অনুযায়ী মেহুলকে আপনারা দেখতে পাবেন। যখন স্কুলে পড়ছে মেহুল তখন হাতে তাবিজ পড়েছে, পায়ে নূপুর পড়েছে। তার পর ধরুন, কানে তেমন দুল পড়বে সেটাও রাজ ঠিক করে দিয়েছে। আমিও খুঁজেছি। কিন্তু মূলত মেহুলকে ওই সাজিয়েছে।

মেহুলের লুক সেট হওয়ার সময় আপনার কোনও ইনপুট ছিল?

ওই অ্যাকশন-রিঅ্যাকশনটাকেই কেমিস্ট্রি বলে আই গেস। শুধু আমার আর ঋত্বিকদার কেমিস্ট্রি নয়। আমার সঙ্গে লাবণীদি বা তুলিকাদির কেমিস্ট্রিটাও ওই অ্যাকশন-রিঅ্যাকশনের ব্যাপার। আমি ঋত্বিকদার ফ্যান ছিলাম। যখন কাজ করতে যাব, ভয় লাগতে শুরু করল। অনেকে এমনও বলেছিল, ঋত্বিকের সঙ্গে কাজ করবি অভিনয়টা শিখে যাস। অত বড় অভিনেতার পাশে কাজ করব বলে এক্সট্রা এফর্ট দিতে শুরু করেছিলাম। সেটে গিয়ে কার সঙ্গে অভিনয় করছি সেটা আলাদা করে মনে ছিল না। আমরা চরিত্রের মধ্যেই ছিলাম। ঋত্বিকদাকে চরিত্রের নাম মানে, ‘বাবাইদা’ হিসেবেই পেয়েছি। আর তাতে আমার মেহুল হতে আরও সুবিধে হয়েছে।

এই ছবিতে প্রথম ঋত্বিক চক্রবর্তীর সঙ্গে কাজ করলেন। অ্যাকশন-রিঅ্যাকশনটা কেমন ছিল?

দেখুন, একটা কথা বলতে পারি। আমার অনেক ছবি হিট হয়েছে। কিন্তু সেটা মাস পিপলকে কানেক্ট করেঠে। আর ‘পরিণীতা’ ক্লাসকেও কানেক্ট করতে পারছে। গানগুলো তো এখনই হিট।

আপনাকে সাধারণত মেনস্ট্রিম ছবিতে দেখে অভ্যস্ত দর্শক। ‘পরিণীতা’ কি সেটাকে ব্রেক করবে?

https://www.instagram.com/p/BpzG-1ngb-s/

অর্ক মেলোডিয়াস গানে তো খুবই ভাল। ‘শেষ থেকে শুরু’র কাজের সময় রাজ আর আমার সঙ্গে ওর আলাপ হয়। ‘পরিণীতা’র স্যাড সং ‘সেই তুমি’টা প্রথম তৈরি করে পাঠিয়েছিল। গায়ে কাঁটা দিয়েছিল। আর শ্রেয়া ঘোষালের গাওয়া ‘তোমাকে’ তো ভাইরাল হয়ে গিয়েছে। আসলে সেটে আমরা যখন শুটিং করছিলাম, গানটা লুপে বাজছিল। আর টিমের সকলে দেখছিলাম গুনগুন করছিল। তখনই বুঝেছিলাম, হিট হবে।

হ্যাঁ, এ ছবির গান নিয়ে আলোচনা হচ্ছে কিন্তু…

আমি ওকে যতটুকু চিনি, বা বলা ভাল আমরা নেগেটিভিটি অ্যাভয়েড করে চলি। যাঁরা নেগেটিভ কথা বলেন, তাঁদের জন্য তো কাজ করি না। আমরা খুব সহজেই কাউকে জাজ করে ফেলি। এমন তো নয়, পৃথিবীতে ও একাই রিমেক তৈরি করে। রাজ তো ‘প্রলয়’ও তৈরি করেছে। আসলে সাকসেস পেলেই লোকে নেগেটিভ কথা বেশি বলে। ও ভাল কাজ জানে। ভাল ছবি বানিয়েছে। আমি ওর সব ছবি দেখেছি। ও আমার হাজব্যান্ড বলে বলছি না। সত্য়িই রাজ ভাল কাজ জানে। ফলে নেগেটিভ কথা যাঁরা বলেন, সেটা তাঁদের পারসপেক্টিভ। ডাজন’ট ম্যাটার।

আচ্ছা, রাজকে নিয়ে একটা কথা কিন্তু টলিউডে প্রায়ই হয়। আপনি নিশ্চয়ই জানেন, রাজ কপি করে ছবি তৈরি করেন, বলেন অনেকে? জেরক্স মেশিন বলেন… ‘পরিণীতা’ কি সেই ধারণা বদলে দেবে?

হুম। ৬ সেপ্টেম্বর ‘পরিণীতা’ রিলিজ করবে। তার পর নেক্সটার শুটিং শুরু করব আমরা। খুব স্ট্রং সাবজেক্ট। চরিত্র নিয়ে এখনই কিছু বলতে পারব না। তবে এটারও ওয়ার্কশপ হবে। স্বাতীলেখা সেনগুপ্ত, পার্নো, সোহম… কাস্টও রিভিল করেছি আমরা।

রাজের পরিচালনায় তো এ বার ‘গর্ভধারিণী’ শুরু করছেন আপনি?

https://www.instagram.com/p/B0u9ET6AhoV/

(হাসি) এখনও অফার আসেনি কিন্তু। অফার এলে নিশ্চয়ই অন্য প্রোডাকশন বা ডিরেকশনে কাজ করব। 

POPxo এখন ৬টা ভাষায়! ইংরেজি, হিন্দি, তামিল, তেলুগু, মারাঠি আর বাংলাতেও!

আপনি যদি রংচঙে, মিষ্টি জিনিস কিনতে পছন্দ করেন, তা হলে POPxo Shop-এর কালেকশনে ঢুঁ মারুন। এখানে পাবেন মজার-মজার সব কফি মগ, মোবাইল কভার, কুশন, ল্যাপটপ স্লিভ ও আরও অনেক কিছু!