হঠাৎ কেন 'মন ভাল' হয়ে গেল স্বস্তিকা মুখোপাধ্যায়ের ?

হঠাৎ কেন 'মন ভাল' হয়ে গেল স্বস্তিকা মুখোপাধ্যায়ের  ?

বারবার বিতর্কেই নাম জড়িয়েছে তাঁর । যেন স্রোতের উল্টো দিকেই হাঁটতে ভালবাসেন তিনি । একইসঙ্গে কাউকে ছেড়ে কথা বলেন না । সঠিক জায়গায় সঠিক উত্তর দেওয়াতেই পরিচিতি রয়েছে তাঁর । বিভিন্ন ইস্যুতে বারবার সরবও হয়েছেন । টলিউডের এই মুখ বোল্ড ও বিউটিফুল । বুঝতেই পারছেন কে সেই অভিনেত্রী । স্বস্তিকা মুখোপাধ্যায় । কিন্তু বেশ অনেকদিন পর সম্প্রতি মন ভাল হয়ে গেল স্বস্তিকা ( swastika mukherjee is happy) -র । টুইটারেও লিখলেন সে কথা । কিন্তু কী এমন ঘটল, যা অভিনেত্রীর মনকে হঠাৎই ভাল করে দিল ?

সম্প্রতি ওয়েব সিরিজ ‘চরিত্রহীন ৩’ –এ স্বস্তিকা প্রশ্ন তুলেছেন, “ভালবাসতে ভুলে যাচ্ছে মানুষ ?” সেই প্রশ্নেরই যেন উত্তর নিজেই খুঁজে পেলেন তিনি । টুইটারে লিখলের শ্যুটিং ফ্লোরে অভিজ্ঞতার কথা । সেই অভিজ্ঞতা পড়ে বোঝা গেল, মন থেকেই ভীষণ খুশি স্বস্তিকা । যেন তৃপ্তি খুঁজে পেয়েছেন ।

শ্যুটিং ফ্লোরের অভিজ্ঞতার কথা লিখতে গিয়ে স্বস্তিকা মুখোপাধ্যায় (swastika mukherjee ) লিখলেন, আজান হচ্ছে । সবাই কাজ থামিয়ে দিয়েছে । প্রত্যেক ধর্মবিশ্বাসী মানুষকে সম্মান জানাতে দেখে ভাল লাগল ।

সে সময়ের কথা লিখতে গিয়ে আরও লিখলেন, আজান শেষ হওয়া পর্যন্ত আমরা অপেক্ষা করব এবং তারপর আবার কাজ শুরু করব । “মনটা ভাল হয়ে গেল ।”

সম্প্রতি মুক্তি পেয়েছে স্বস্তিকার পরবর্তী সিরিজ চরিত্রহীন ৩- এর টিসার । ডিসেম্বরেই তা মুক্তি পাবে এসভিএফ-র অনলাইন প্ল্যাটফর্ম হইচইয়ে । স্বস্তিকা  (swastika mukherjee) -র সঙ্গেই এই সিরিজে অভিনয় করছেন সৌরভ চক্রবর্তীও । একইসঙ্গে তাঁর ‘তাসের ঘর’ হিন্দি ভাষায় মুক্তি পেয়েছে । তাসের ঘরে গৃহবধুর ভূমিকায় দেখা গিয়েছিল স্বস্তিকাকে । সমসাময়িক সময় উঠে এসেছিল সেই শর্ট ফিল্মে । হইচইয়ে মুক্তি পেয়েছিল ছবিটি । লকডাউনের সময় সংসারের গল্পকথা তুলে ধরেছিলেন পরিচালক । একাকিত্ব, নিঃসঙ্গতাকে বন্ধু বানিয়েছিলেন স্বস্তিকা মুখোপাধ্যায় । ফুল গাছের সঙ্গে তাঁর সময় কেটে যেত । কিন্তু চোখেমুখে ছিল যন্ত্রণার ছাপ, সেই যন্ত্রণা চরিত্রের সঙ্গে অতঃপ্রত ভাবে জড়িয়ে ছিল । ছবির কাহিনিতে পরিচালক একটু একটু করে পরিচয় করিয়েছিল সেই গৃহবধূর নিঃসঙ্গতা ও যন্ত্রণার সঙ্গে ।

সেই ভূমিকাতেও স্বস্তিকার অভিনয় প্রশংসনীয় । নেটিজেনদের প্রশংসা পেয়েছিল ছবিটি । এবার সেই একই ছবি হিন্দি ভাষাতেও মু্ক্তি পাবে । একইভাবে ভারতীয় দর্শকের কাছে প্রশংসা পাবে বলে বলে আশা করছেন তাসের ঘর ছবির নির্মাতারা । হিন্দি ভাষায় মুক্তি পাওয়ার কথা নিজেও টুইটারে শেয়ার করেছেন অভিনেত্রী । তবে এসব কিছুর সঙ্গেও রয়ে গিয়েছে কিছুটা মন খারাপ, কিছুটা নস্টালজিয়া  ।

পরধর্মসহিষ্ণুতা দেখে মন ভাল স্বস্তিকার

মন ভাল হওয়ার বার্তার পরেই টুইটারে মন খারাপের আভাসও পাওয়া যায় । বাবা অর্থাৎ সন্তু মুখোপাধ্যায়ের কথা মনে করলেন স্বস্তিকা । ঝাউবনের ছবি দিয়ে ছোটবেলার কথা লিখলেন । স্মৃতির কথা লিখলেন । বাবাকে স্বস্তিকা কতটা মিস করেন, তা তাঁর টুইট পরে বেশ বেঝা গেল ।

 

স্বস্তিকা মুখোপাধ্যায়  লেখেন, “ছোটবেলায় দিঘা যাওয়ার সময় বাবা ঝাউবন দেখিয়ে বলত, ওটা পেরোলেই সমুদ্র । যেখানে কাজে এসেছি সেখানেও ঝাউবন আছে । ওই যে দূরে দেখা যাচ্ছে, ওটা পেরোলেই সমুদ্র । বাবা ও নেই, আমার আর দেখার ইচ্ছে ও নেই । ঘর থেকে ওই গাছগুলোই দেখি খালি ।“

POPxo এখন চারটে ভাষায়! ইংরেজি, হিন্দি, মারাঠি আর বাংলাতেও!
বাড়িতে
থেকেই অনায়াসে নতুন নতুন বিষয় শিখে ফেলুন। শেখার জন্য জয়েন করুন
#POPxoLive, যেখানে আপনি সরাসরি আমাদের অনেক ট্যালেন্ডেট হোস্টের থেকে নতুন
নতুন বিষয় চট করে শিখে ফেলতে পারবেন। POPxo App আজই ডাউনলোড করুন আর জীবনকে আরও একটু পপ আপ করে ফেলুন!