বেনারসে তৈরি হল নেতাজি সুভাষচন্দ্র বসুর মন্দির। In Bengali | POPxo

বেনারসে আজ উদ্বোধন নেতাজি সুভাষচন্দ্র বসুর নামে স্থাপিত মন্দিরের, আরতি করবেন দলিত পুরোহিত!

বেনারসে আজ উদ্বোধন নেতাজি সুভাষচন্দ্র বসুর নামে স্থাপিত মন্দিরের, আরতি করবেন দলিত পুরোহিত!

সুভাষচন্দ্র (Subhas) বসু (Bose)। যাকে আপামর ভারতবাসী ভালবেসে, শ্রদ্ধায়, আবেগে নাম দিয়েছিলেন নেতাজি। তিনি যে প্রকৃত অর্থে একজন জননেতা, সেটা আজও বেশ স্পষ্ট। নেতাজি (Netaji) আসলে কোনও ব্যক্তির নাম নয়, নেতাজি একটি আবেগের নাম। সোশ্যাল মিডিয়ায় তাঁর নামে দেড়শোর বেশি গ্রুপ আজও প্রমাণ করে যে, আজকের নতুন প্রজন্মও নেতাজিকে ভোলেনি। আজ ২৩শে জানুয়ারি নেতাজির ১২৩ তম জন্মদিন। যদিও আজও অনেকে মনেপ্রাণে বিশ্বাস করেন যে, নেতাজি একদিন ফিরে আসবেন। সেটা বাস্তবে সম্ভব না হলেও এই সম্ভাবনাই যেন ভারতকে এক সূত্রে বেঁধে রেখেছে।

সুভাষ চন্দ্র বসুর এই স্মৃতিকে চিরস্থায়ী করতে আজ বেনারসে উদ্বোধন হবে নেতাজির মন্দিরের। বেনারসের (Varanasi) সুভাষ ভবনের আজাদ হিন্দ মার্গে এই মন্দিরের (temple) স্থাপনা করা হয়েছে। আজ নেতাজির জন্মদিনে তাঁকে বিশেষ সম্মান দিতেই আজকের দিনটি উদ্বোধনের জন্য বেছে নেওয়া হয়েছে। সূত্রের খবর, মন্দিরের প্রধান পুরোহিত হবেন একজন দলিত মহিলা। তিনিই প্রথম আরতি করে জন সাধারণের জন্য মন্দিরটি খুলে দেওয়া হবে। ভারত মাতার বন্দনা করাই হবে আরতির মূল গান। সারা ভারতে নেতাজির স্মৃতি বিজড়িত জায়গার কিন্তু অভাব নেই।

বেনারসে মন্দির স্থাপিত হলেও গর্ব করে বলা যায় যে, ভারতের বহু জায়গায় আছে সুভাষচক, সুভাষনগর, সুভাষ কলোনি ও সুভাষগ্রাম আছে। উত্তরাখণ্ডের ডালহৌসির সুভাষচক যেমন বেশ বিখ্যাত। শোনা যায় পেটের অসুখে এক সময় বেশ কাবু হয়ে পড়েছিলেন এই দেশ বরেণ্য নেতা। দেশবন্ধু চিত্তরঞ্জন দাশ তাঁকে পরামর্শ দেন ডালহৌসি যাওয়ার। সেখানকার জল নাকি পেটের অসুখ সারাতে অব্যর্থ। যেখান থেকে নেতাজি জল নিতেন সেটি আজ সুভাষ বাউরি নামে পরিচিত। ডালহৌসির জমজমাট সুভাষচকে আছে নেতাজির মূর্তি। 

আরও পড়ুন: শহরময় আজও উজ্জ্বল নেতাজির স্মৃতি

শ্যামবাজার চার মাথার মোড়ে নেতাজির বিখ্যাত মূর্তি
instagram

সুভাষ ভবনের সামনে নেতাজির মূর্তিটি বেশ প্রমাণ সাইজের তৈরি করা হয়েছে। মূর্তিটি কালো গ্রানাইট দিয়ে তৈরি। মন্দিরের সিঁড়িতে থাকবে লাল আর সাদা রং। বেনারস হিন্দু বিশ্ববিদ্যালয় বা বিএইচইউর অধ্যাপক ডক্টর রাজীব জানিয়েছেন, লাল আর সাদা রং দু'টি ইচ্ছে করেই বেছে নেওয়া হয়েছে। লাল হল বিপ্লবের প্রতীক আর সাদা রং হল শান্তির প্রতীক। প্রসঙ্গত উল্লেখ্য, এই মন্দির নির্মাণের পরিকল্পনায় মুখ্য ভূমিকা ছিল রাজীববাবুর। তিনি এ-ও বলেন, নেতাজির মতো দেশভক্তকে যাতে ভারতীয়রা ভুলে না যান এবং আমাদের মধ্যেও যেন সেই চেতনা জীবিত থাকে, তার জন্যই মন্দির তৈরির কথা তাঁর মাথায় আসে। তাছাড়া বেনারসে প্রচুর বাঙালি থাকেন। তাঁদেরও পূর্ণ সমর্থন আছে এই মন্দির নির্মাণে।

শ্যামল বসু লিখেছিলেন, 'সুভাষ ঘরে ফেরে নাই!' এ কথা কি আদৌ সত্যি? তিনি যে সবার নেতা। আমাদের নেতাজি, তাই আপামর ভারতবাসীর মনের মধ্যে ঘর বেঁধেই তিনি যুগ-যুগ থেকে যাবেন, এই বিষয়ে কোনও সন্দেহ নেই। 

 

নেতাজির মন্দিরের ছবি ব্রেকিং টিউব এর সৌজন্যে। 

POPxo এখন ৬টা ভাষায়! ইংরেজি, হিন্দি, তামিল, তেলুগু, মারাঠি আর বাংলাতেও!

আমাদের এক্কেবারে নতুন POPxo Zodiac Collection মিস করবেন না যেন! এতে আছে নতুন সব নোটবুক, ফোন কভার এবং কফি মাগ, যেগুলো দারুণ ঝকঝকে তো বটেই, আর একেবারে আপনার কথা ভেবেই তৈরি করা হয়েছে। হুমম...আরও একটা এক্সাইটিং ব্যাপার হল, এখন আপনি পাবেন ২০% বাড়তি ছাড়ও। দেরি কীসের, এখনই POPxo.com/shopzodiac-এ যান আর আপনার এই বছরটা POPup করে ফেলুন!