'জয়ললিতা' কঙ্গনার 'এমজিআর' হচ্ছেন অরবিন্দ স্বামী, ফার্স্ট লুক ও টিজার প্রকাশ্যে

'জয়ললিতা' কঙ্গনার 'এমজিআর' হচ্ছেন অরবিন্দ স্বামী, ফার্স্ট লুক ও টিজার প্রকাশ্যে

কঙ্গনা রানাওয়াতকে যতটা হাসির খোরাক হতে হয়েছিল, অরবিন্দ (Arvind) স্বামীকে ততটাই প্রশংসায় ভরিয়ে দিল ইন্ডাস্ট্রি। কিছুদিন আগেই 'থালাইভি' (Thalaivi) ছবিতে কঙ্গনার (kangana) লুক প্রকাশ্যে এসেছিল। তামিলনাড়ুর প্রয়াত মুখ্যমন্ত্রী জয়ললিতার ভূমিকায় ওই ছবিতে অভিনয় করছেন তিনি। কঙ্গনার প্রস্থেটিক মেকআপ দেখে রীতিমতো ট্রোলিং শুরু হয়ে যায় সোশ্যাল মিডিয়ায়। শুক্রবার সেই ছবিরই অরবিন্দের লুক প্রকাশ্যে এল। তামিলনাড়ুর অপর এক প্রয়াত মুখ্যমন্ত্রী এম জি রামচন্দ্রনের ভূমিকায় দেখা যাবে তাঁকে। অরবিন্দ কিন্তু এখনও পর্যন্ত প্রশংসা পেয়েছেন বিভিন্ন মহলে।

এমজিআর-এর ফার্স্ট লুক প্রকাশের জন্যে বেছে নেওয়া হয়েছে প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রীর ১০৩তম জন্মবার্ষিকীকে। এদিনই প্রকাশিত হল ছবির প্রথম টিজারও। নিয়মিত হিন্দি ছবিতে কাজ না করলেও 'রোজা' বা 'বম্বে'র নায়ককে ভোলেননি দর্শক। দক্ষিণী ইন্ডাস্ট্রিতেই মনোযোগ দিয়েছিলেন অরবিন্দ। কিন্তু ফের তিনি ফিরছেন বলিউডে।

১৯৭৭ থেকে ১৯৮৭ সাল পর্যন্ত তামিলনাড়ুর মুখ্যমন্ত্রী ছিলেন এমজিআর রামচন্দ্রন। তামিল ছবির সবচেয়ে বড় কিংবদন্তি তারকা তিনি। তাঁর ছবি দিয়ে একটি ডাকটিকিটও প্রকাশ করেছে ভারত সরকার। এমজিআর ছিলেন জয়ললিতার রাজনৈতিক গুরু। তাঁর উৎসাহেই জয়ললিতা অভিনেত্রী জীবন ছেড়ে পুরোপুরি রাজনৈতিক জীবন বেছে নিয়েছিলেন। 

 

গত নভেম্বরে কঙ্গনার বোন রঙ্গোলির প্রথম 'থালাইভি'র লুক প্রকাশ করেন। তারপরই কার্যত হাসির রোল ওঠে সিনে মহলে। কারণ একটা বড় অংশের মতে, কোনও ভাবেই কঙ্গনা জয়ললিতার বায়োপিকের উপযুক্ত নন। ফার্স্ট লুক প্রকাশ্যে আসার পর অন্তত তেমনটাই মনে হয়েছে। অভিনয় কেমন করেছেন, সে তো ছবি মুক্তি পেলে দর্শক বিচার করবেন। কিন্তু তার আগে মেকআপের এত ত্রুটি ধরা পড়ছে, যে ছবি দেখতে যাওয়ার ইচ্ছেই চলে যাচ্ছে দর্শকের।

'থালাইভি'র জন্য কঙ্গনা প্রস্থেটিক মেকআপের সাহায্য নিয়েছেন। বিদেশের একটি টিম তাঁর মেকআপের দায়িত্ব ছিলেন। ঘণ্টার পর ঘণ্টা বসে তাঁকে 'থালাইভি'র মেকআপ করতে হয়েছে। তেমন ছবিও তিনি সোশ্যাল ওয়ালে শেয়ার করেছিলেন। শোনা গিয়েঠে, হলিউডের জনপ্রিয় মেকআপ আর্টিস্ট জেসন কলিনের গোটা মেকআপের দায়িত্বে ছিলেন। তাঁর টিমের সদস্যরাই কাজ করেছেন।

 

জয়ললিতার ফ্যাশন সেন্সও ছিল আকর্ষণীয়। সুন্দর শাড়ি, হিরের দুল আর ছোট্ট টিপে তিনি পরিপাটি করে সাজতেন। নিজের স্টাইল স্টেটমেন্ট তৈরি করেছিলেন। সেখানে সবুজ শাড়ি আর মেরুন টিপ পরিয়ে দিলেই কি কাউকে অনস্ক্রিন জয়ললিতা সাজানো সম্ভব? প্রশ্ন উঠেছিল ইন্ডাস্ট্রির অন্দরেই।

 

সে  সব সমালোচনাকে কার্যত এক কথায় থামিয়ে দিয়েছে অরবিন্দের লুক। একেই পছন্দের নায়কের বহুদিন পরে হিন্দি সিনেমায় ফিরে আসা। অন্যদিকে ছবির চরিত্রের সঙ্গে তাঁর মানানসই মেকআপ দর্শকের প্রশংসা আদায় করে নিয়েছে। অনেকেই বলছেন, ছবিটা কঙ্গনার জন্য নয়। বরং অরবিন্দের জন্য দেখতে যাবেন তাঁরা।

 

POPxo এখন ৬টা ভাষায়! ইংরেজি, হিন্দি, তামিল, তেলুগু, মারাঠি আর বাংলাতেও!

আমাদের এক্কেবারে নতুন POPxo Zodiac Collection মিস করবেন না যেন! এতে আছে নতুন সব নোটবুক, ফোন কভার এবং কফি মাগ, যেগুলো দারুণ ঝকঝকে তো বটেই, আর একেবারে আপনার কথা ভেবেই তৈরি করা হয়েছে। হুমম...আরও একটা এক্সাইটিং ব্যাপার হল, এখন আপনি পাবেন ২০% বাড়তি ছাড়ও। দেরি কীসের, এখনই POPxo.com/shopzodiac-এ যান আর আপনার এই বছরটা POPup করে ফেলুন!