কন্যাকুমারী থেকে লেহ, বাইকে চেপে মাত্র ১২৯ ঘণ্টায় রুদ্ধশ্বাস যাত্রা করলেন দুই সাহসী মেয়ে

কন্যাকুমারী থেকে লেহ, বাইকে চেপে মাত্র ১২৯ ঘণ্টায় রুদ্ধশ্বাস যাত্রা করলেন দুই সাহসী মেয়ে

এই পথ যদি না শেষ হয়, তবে কেমন হত তুমি বলো তো? বলতে আপনি পারবেন না। কারণ এরকম রুদ্ধশ্বাস আর দুর্গম যাত্রা আপনি করেছেন কিনা আমার জানা নেই। আর করে থাকলেও সেটা যদি বাইক চেপে হয় তাহলে আপনাকে আমার সেলাম। এইরকম কুর্নিশ জানানোর মতো কাজটাই করে ফেলেছেন দুই সাহসী আর লড়াকু মেয়ে (women)। অম্রুতা কাশীনাথ আর শুভ্রা আচার্য। বাইকে চেপেই দুজনে পাড়ি (bikers) দিয়েছেন কন্যাকুমারী থেকে লেহ পর্যন্ত। দক্ষিণ থেকে উত্তরের এই দীর্ঘ যাত্রা কোনও মহিলা এর আগে করেছেন কিনা জানা নেই। ইতিমধ্যেই লিমকা বুক অব রেকর্ডসে তাঁরা নিজেদের এই কীর্তি নথিভুক্ত করেছেন। আর এই কাজটা তাঁরা করেছেন মাত্র ১২৯ ঘণ্টায়। অম্রুতা অবশ্য জানিয়েছেন বিষয়টা একদমই তাঁদের প্ল্যান করা ছিল না। আচমকাই তাঁরা দু'জনে স্থির করেন যে তাঁরা কন্যাকুমারী (Kanyakumari) থেকে লেহ (Leh) পাড়ি দেবেন। শুধুমাত্র অ্যাডভেঞ্চারের নেশাতেই তাঁরা এমন করেছেন। সফল হবেন কিনা সেই নিয়ে কেউই মাথা ঘামাননি বিন্দুমাত্র। নিজেকে যে চ্যালেঞ্জ তাঁরা করেছিলেন তাতে যে তাঁরা দারুণভাবে সফল হয়েছেন সেটা আর বলার অপেক্ষা রাখেনা। কারণ এই অদ্ভুত জার্নি তাঁরা শেষ করেছেন মাত্র পাঁচ দিনে। 

Times of India

মেয়েদের একা ভ্রমণ করা এবং তাঁদের সুরক্ষা নিয়ে আমাদের দেশে নানারকমের বাধা নিষেধ আছে। কিন্তু অম্রুতা আর শুভ্রা দু'জনেই সেইসব প্রাচীন ধারণার মূলে কুঠারাঘাত করেছেন। তাঁরা দেখিয়ে দিয়েছেন এই পৃথিবীতে কোনও কিছুই অসম্ভব নয়। ইচ্ছে থাকলে আসলে সব কিছুই করা যায়। আসলে শুভ্রা আর অম্রুতার অভিধানে অসম্ভব বলে কিছু নেই। আর এই বার্তা তাঁরা ভারতের অন্যান্য মহিলাদের মধ্যেও ছড়িয়ে দিতে চান। অম্রুতা এই বিষয়ে আরও গভীরভাবে আলোকপাত করলেন। তাঁর মতে মেয়েরা এই দেশে একা বেড়াতে যেতে ভয় পান। তাঁরা মনে করেন কোনও পুরুষ সদস্য ছাড়া বেড়াতে যাওয়া অসম্ভব। কিন্তু এই ধারণা যে ভুল সেটাই তাঁরা বলতে চান। দীর্ঘ সাত বছর ধরে এইভাবেই শুভ্রা আর অম্রুতা নানা জায়গায় বেরিয়ে এসেছেন। বাইকে করে দীর্ঘ পথ পাড়ি দেওয়ার জন্য তাঁরা প্রশিক্ষণও নিয়েছেন। এই ট্রিপ সম্পূর্ণ করার জন্য তাঁরা স্পন্সরও পেয়েছেন। তবে সময় এবং সুযোগ পেলেই পথের নেশায় বেরিয়ে পড়েন দুই জনে। দেশের বাইরে ভূটান আর শ্রীলঙ্কাও ঘুরে এসেছেন তাঁরা। এই বছরের শেষে দু'জনের পরিকল্পনা আছে মঙ্গোলিয়া যাওয়ার। 

এই দীর্ঘ চ্যালেঞ্জিং পথে সবচেয়ে বেশি দুর্মূল্য ছিল ঘুম। দু'জনেই সেটা মিস করেছেন খুব। শরীর সায় না দিলেও মনের জোরে এতটা পথ পাড়ি দিয়েছেন দু'জনে। আমাদের কুর্নিশ এই দুই সাহসী মেয়েকে। 

Feature credit: Times of India 

 

 

POPxo এখন ৬টা ভাষায়! ইংরেজি, হিন্দি, তামিল, তেলুগু, মারাঠি আর বাংলাতেও!
এসে গেল #POPxoEverydayBeauty - POPxo Shop-এর স্কিন, বাথ, বডি এবং হেয়ার প্রোডাক্টস নিয়ে, যা ব্যবহার করা ১০০% সহজ, ব্যবহার করতে মজাও লাগবে আবার উপকারও পাবেন! এই নতুন লঞ্চ সেলিব্রেট করতে প্রি অর্ডারের উপর এখন পাবেন ২৫% ছাড়ও। সুতরাং দেরি না করে শিগগিরই ক্লিক করুন POPxo.com/beautyshop-এ এবার আপনার রোজকার বিউটি রুটিন POP আপ করুন এক ধাক্কায়...