কার্গিল বিজয় দিবস উপলক্ষ্যে এই মাসেই আবার মুক্তি পাবে 'উরি দ্য সার্জিকাল স্ট্রাইক'

কার্গিল বিজয় দিবস উপলক্ষ্যে এই মাসেই আবার মুক্তি পাবে 'উরি দ্য সার্জিকাল স্ট্রাইক'

ভিকি কৌশলের জীবনে অন্যতম একটি মাইলস্টোন হল 'উরি: দ্য সার্জিকাল স্ট্রাইক'। ছবিটি যে শুধু বক্স অফিস সফল তাই নয়, তামাম ভারতবাসী সাদরে গ্রহণ করেছিলেন এই ছবিটিকে। মূলত এই ছবিটিই বলিউডে ভিকির স্থান পাকা করে। তবে যারা এখন বম্বেতে আছেন এবং  এই ছবিটি দেখেননি তাঁদের জন্য দারুণ সুখবর। এই মাসেই ২৬ তারিখে আবার সিনেমা হলে মুক্তি পাবে 'উরি: দ্য সার্জিকাল স্ট্রাইক' (Uri: The Surgical Strike) ছবিটি। আগামী শুক্রবার অর্থাৎ কার্গিল (kargil) বিজয় (vijay) দিবস (diwas) উপলক্ষ্যে ছবিটি আবার সিনেমা হলে মুক্তি পাবে।   

stackumbrella

'উরি: দ্য সার্জিকাল স্ট্রাইক' একটি ওয়ার ড্রামা বা যুদ্ধের ছবি। ২০১৬ সালের সেপ্টেম্বর মাসে কাশ্মীরের এলওসি বা লাইন অব কন্ট্রোলের কাছে আতঙ্কবাদীদের ডেরায় সার্জিকাল স্ট্রাইক করে আমাদের ভারতীয় সেনা দল। কারণ একই বছরে অর্থাৎ ২০১৬ সালের গোড়ার দিকে ভারতীয় সেনাদলের উরি ক্যাম্পে আচমকা হামলা চালায় আতঙ্কবাদীরা। আদিত্য ধর পরিচালিত এই ছবিতে ভিকি কৌশলকে দেখা যায় মেজর বিহান সিং শেরগিলের ভূমিকায়। ছবিটি মুক্তি পাওয়ার পরই সারা দেশে রীতিমতো হইচই পড়ে যায়। বক্স অফিসের অন্যতম সফল ছবির তকমা পায় 'উরি: দ্য সার্জিকাল স্ট্রাইক'। দর্শক মুগ্ধ হয়ে যান ভিকি কৌশলের অনবদ্য অভিনয়ে। অনেক দর্শক এও বলে বসেন যে ভিকিকে দেখে তাঁদের মনে হচ্ছিল তিনি সত্যিই একজন আর্মি অফিসার। তাঁকে দেখে মনেই হচ্ছিল না যে তিনি অভিনয় করছেন। ভিকি নিজেও বিভিন্ন সাক্ষাৎকারে জানিয়েছেন যে কোনও পুরষ্কারের চেয়ে দর্শকদের এই ভাল লাগা ও ভালবাসা তাঁর কাছে অনেক বেশি দামী। পরিচালক আদিত্য ধর বলেছেন যে "হাও ইজ দ্য যোশ বলা নিয়ে ভিকির খুব আপত্তি ছিল। ও প্রথমে এটা বলতে চায়নি। ওর এই ট্যাগলাইনটা ভাল লাগেনি। কারণ ভিকির মনে হয়েছিল যে এটা বললে ভারতীয়দের মনে কোনও প্রভাব পড়বে না। আমরা অনেক কষ্টে ভিকিকে রাজি করাই। এমনকি যখন এই দৃশ্যটা শুট হচ্ছিল যেখানে ভিকি এটা বলবে, ও ক্যামেরা চালু হওয়ার পাঁচ মিনিট আগেও আমার কানে কানে এসে বলে যে আদৌ এটা করার প্রয়োজন আছে কিনা। আমি ওকে আশ্বস্ত করি যে ও একবার এটা বলে দেখুক, পরে বুঝতে পারবে এটা ঠিক হল না ভুল। অবশেষে ভিকি যখন তাঁর প্রথম শটটা দেয়, ওখানে উপস্থিত অন্যান্য কলাকুশলী ও ফিল্মের সদস্যদের গায়ে রীতিমতো কাঁটা দিচ্ছিল। এখন এই লাইন একদম কাল্ট হয়ে গেছে। বিশেষ করে তরুণ প্রজন্ম দারুণ পছন্দ করেছে এই হাও ইজ দ্য যোশ ট্যাগলাইন।" 

ছবির এই দ্বিতীয়বার মুক্তি নিয়ে দারুণ খুশি এবং উত্তেজিত প্রযোজক রনি স্ক্রিউওয়ালা। কার্গিল বিজয় দিবস উপলক্ষ্যে ছবির আবার মুক্তি পাওয়াতে তিনি নিজেকে সম্মানিত বোধ করছেন। মহারাষ্ট্রের ৫০০টি সিনেমা হলে সেদিন দেখানো হবে 'উরি: দ্য সার্জিকাল স্ট্রাইক'। সুতরাং "হাও ইজ দ্যা যোশ!" আবার শোনার সৌভাগ্য হবে আমাদের। 

POPxo এখন ৬টা ভাষায়! ইংরেজি, হিন্দি, তামিল, তেলুগু, মারাঠি আর বাংলাতেও!
আপনি যদি রংচঙে, মিষ্টি জিনিস কিনতে পছন্দ করেন, তা হলে POPxo Shop-এর কালেকশনে ঢুঁ মারুন। এখানে পাবেন মজার-মজার সব কফি মগ, মোবাইল কভার, কুশন, ল্যাপটপ স্লিভ ও আরও অনেক কিছু!