মুখে করে ডাস্টবিনে প্লাস্টিকের বোতল ফেলছে কাক! ভিডিয়ো দেখে হতবাক সবাই!

মুখে করে ডাস্টবিনে প্লাস্টিকের বোতল ফেলছে কাক! ভিডিয়ো দেখে হতবাক সবাই!

প্লাস্টিক যে আমাদের পরিবেশের পক্ষে কতটা ক্ষতিকর, সেটা আমরা সকলেই জানি। সারা পৃথিবী জুড়ে প্লাস্টিক ব্যান নিয়ে চর্চা চলছে। ভারতের কয়েকটি শহরে ইতিমধ্যেই সরকারি নিষেধাজ্ঞা জারি কড়া হয়েছে প্লাস্টিক ব্যবহার নিয়ে। যে হারে এই প্লাস্টিকের প্যাকেট ও বোতল নদীনালা জ্যাম করে দিচ্ছে, সমুদ্র দূষিত করে দিচ্ছে তাতে নড়েচড়ে বসেছে কোকাকোলার মতো আন্তর্জাতিক সংস্থাও। তারা চেষ্টা করছেন যাতে প্লাস্টিকের বোতলের পরিবর্তে শহর জুড়ে বসিয়ে দেওয়া যায় এই পানীয়র ভেন্ডিং মেশিন। যাতে আপনি বোতল ছাড়াই এই পানীয় পান করতে পারেন। এত কিছুর পরেও সরকারের নাকের নীচ দিয়ে বুক ফুলিয়ে চলছে প্লাস্টিকের ব্যবহার। রাস্তায়-রাস্তায়, বড়-বড় ডাস্টবিন থাকার পরেও আমরা, মানে শিক্ষিত মানুষ, বিবেচক মানুষ, বুদ্ধিজীবী মানুষ কিন্তু সেগুলো ব্যবহার করছে না। নিশ্চিন্ত হয়ে সেই প্লাস্টিকের বোতল রাস্তায় ফেলে দিচ্ছে। বেড়াতে গিয়ে নোংরা করছে সেই জায়গা। আজ আমাদের মতো 'শিক্ষিত' মানুষদের চোখ খুলে দিল একটি কাক (crow)। হ্যাঁ, খুব সাধারণ একটি কাক। যাকে আপনি কোনওদিনই পাত্তা দেননি। আর দেবেনই বা কেন? তার না আছে রূপের বাহার আর না আছে কোকিলের মতো কণ্ঠস্বর। এই কাক মুখে করে একটি একটি করে প্লাস্টিকের বোতল ডাস্টবিনে ফেলে দিচ্ছে। সম্প্রতি এরকমই একটি ভিডিয়ো দেখে হতবাক হয়ে গেছে নেটিজেনরা। ইন্টারনেটে রীতিমতো সেনসেশন হয়ে গেছে এই বায়স। আচমকা রাস্তায় এরকম দৃশ্য দেখে সেটা টুইটারে শেয়ার করেন এক টুইটারেত্তি। ক্যাপশানে তিনি লেখেন যে, "এই কাজ আসলে মানুষের করা উচিত। কিন্তু একটা সামান্য কাক সেই কাজ করে দিচ্ছে। প্লাস্টিকের (plastic) বোতল (bottle) নিয়ে রিসাইকল করার ডাস্টবিনে (dustbin) ফেলছে। এবার থেকে আপনারও তাই করা উচিত। নিজের ছড়ানো নোংরা নিজেরাই ফেলুন আর রিসাইকেল করে পৃথিবীকে দূষণমুক্ত করুন। আপনার হয়তো এখনও পুরো বিষয়টি বিশ্বাস হচ্ছে না। তা হলে নিজের চোখেই দেখে নিন। 

টুইটারে এই ভিডিয়ো শেয়ার করা মাত্র নিমেষে ভাইরাল হয় এটি। আর হবে নাই বা কেন? এর চেয়ে বড় আই ওপেনার আর কী হতে পারে আমাদের জন্য? এমনিতেই কাককে বলা হয় 'ঝাড়ুদার পাখি।' কারণ, কাক সারা শহরের সমস্ত ময়লা খেয়ে নিয়ে শহর পরিষ্কার রাখে। এর আগে জঞ্জাল তুলে ডাস্টবিনে ফেলতে দেখা গিয়েছিল একটি হাতিকে। বেশ জনপ্রিয় হয়েছিল সেটিও। এর থেকে একটা জিনিস বেশ স্পষ্ট বোঝা যাচ্ছে। মানুষ যে জীব শ্রেষ্ঠ বলে আমাদের এত অহঙ্কার, অথচ মানুষের মতো কাজ করতে আমরা প্রায়ই ভুলে যাই। চিপসের প্যাকেট থেকে শুরু করে আধ পোড়া সিগারেট রাস্তায় ফেলে দিতে দ্বিধা হয় না আমাদের। আর এই কাককে দেখে সত্যি প্রশ্ন করতে ইচ্ছে হয় যে, একটি কাক যদি পারে, তা হলে আমরা পারব না কেন? 

POPxo এখন ৬টা ভাষায়! ইংরেজি, হিন্দি, তামিল, তেলুগু, মারাঠি আর বাংলাতেও!

আপনি যদি রংচঙে, মিষ্টি জিনিস কিনতে পছন্দ করেন, তা হলে POPxo Shop-এর কালেকশনে ঢুঁ মারুন। এখানে পাবেন মজার-মজার সব কফি মগ, মোবাইল কভার, কুশন, ল্যাপটপ স্লিভ ও আরও অনেক কিছু!