ভাগ্য ফেরাতে এই লাকি চার্মগুলি কিন্তু দারুন কাজে আসে! তাই... | POPxo

ভাগ্য সহায় হোক এমনটা চাও নাকি! (lucky charm for each Zodiac sign)

ভাগ্য সহায় হোক এমনটা চাও নাকি! (lucky charm for each Zodiac sign)

সফল হতে গেলে পরিশ্রমের যে কোনও বিকল্প নেই, তা আর বলার অপেক্ষা রাখে না। তবুও লক্ষ্যে পৌঁছাতে পরিশ্রমের পাশাপাশি ভাগ্যের সঙ্গ পাওয়াটাও জরুরি, না হলে বিফল হাওয়ার আশঙ্কা যে বাড়ে, তা তো বালাই বাহুল্য! তাই তো গুড লাক যাতে সদা আমাদের সঙ্গে থাকে, তা সুনিশ্চিত করতে একবার ঋগ্বেদটা পড়ে ফলা জরুরি। কারণ প্রাচীন এই বইটি হল বৈদিক অ্যাস্ট্রোলজির প্রাণ ভোমরা। আর প্রাচীন এই জ্যোতিষ শাস্ত্রে এমনটা দাবি করা হয়েছে যে আমাদের আশেপাশে এমন কিছু জিনিস রয়েছে যা রাশি অনুযায়ী (zodiac signs) যদি সঙ্গে রাখা যায়, তাহলে নাকি খারাপ সময় ধারে কাছেও ঘেঁষতে পারে না। সেই সঙ্গে ভাগ্য বিগড়ে যাওয়ার আশঙ্কাও যায় কমে।


আজকের দিনে আমাদের কারও হাতেই এত সময় নেই যে ঋগ্বেদ পড়ে ফেলে। তাই প্রশ্ন উঠতে বাধ্য যে এমন পরিস্থিতিতে কি তাহলে কোনও ভাবেই জেনে ওঠা সম্ভব নয় লাকি চার্ম সম্পর্কে? কে বললে সম্ভব নয়! তবে তার জন্য এই লেখাটিতে একবার নজর ফেরাতে হবে। কারণ পোপেক্সো বাংলার পাঠক বন্ধুরা যাতে আর কখনও খারাপ সময়ের মুখ না দেখে, তা সুনিশ্চিত করতে এই প্রবন্ধে নানাবিধ লাকি চার্ম (lucky charm)সম্পর্কে বিস্তারিত আলোচনা করা হয়েছে। তবে তার আগে আরেকটি ধোঁয়াশা কাটানো একান্ত প্রয়োজন।


কী ধোঁয়াশা? আমাদের দেশে জ্যোতিষ শাস্ত্র নিয়ে আগ্রহের শেষ নেয়। তবু সিংহভাগেরই জানা নেই যে "সান সাইন" এবং "মুন সাইন" (moon sign)এর মধ্যেকার পার্থক্য সম্পর্কে। তাই তো এ সম্পর্কে ধরণাটা পরিষ্কার করে নেওয়াটা একান্ত প্রয়োজন। প্রসঙ্গত, ইংরেজি সংবাদ পত্রে জন্ম তারিখ অনুসারে যে রাশির উল্লেখ পাওয়া যায়, তাকে সান সাইন বলা হয়ে থাকে। আর জন্মের সময়কার গ্রহ-নক্ষত্রের অবস্থান দেখে নির্ধারিত রাশিকে বলা হয় মুন সাইন। প্রসঙ্গত, আমাদের দেশে কিন্তু মুন সাইনের উপর নির্ভর করেই জ্যোতিষ শাস্ত্রের চর্চা হয়ে থাকে।


এবার সময় এসেছে জেনে নেওয়ার মুন সাইন অনুসারে কোন রাশির ক্ষেত্রে কোন জিনিসটি লাকি, সে সম্পর্কে...


১. মেষরাশি (Aries):


zod1


১২ টি রাশির মধ্যে সবথেকে কর্মঠ হলো এই রাশির জাতক-জাতিকারা। শুধু তাই নয়, এরা একবার যদি লক্ষ্য স্থির করে নেয়, তাহলে যে কোনও ভাবেই হোক না কেন, সেই লক্ষ্যে তারা পৌঁছানই। তাই এমন পরিশ্রমী, কর্মঠ মানুষদের লাকি চার্মের (lucky charm)কোনও প্রয়োজন আছে বলে তো মনে হয় না। তবু যদি প্রশ্ন করো, তাহলে বলতে হয়, পঞ্চম সেঞ্চরি এডি-তে লেখা একাধির বই অনুসারে এই রাশির-জাতিক-জাতিকাদের ক্ষেত্রে লাকি চার্ম হল চাবি। শুনতে আজব লাগলেও একথা ঠিক যে ভাগ্যের তালা খুলতে মেষরাশির অধিকারীদের সঙ্গে সব সময় একটা চাবি রাখা মাস্ট! প্রসঙ্গত, এমনটাও বিশ্বাস করা হয় যে এই লাকি চার্মটি সঙ্গে রাখলে এই রাশির জাতক-জাতিকাদের কোনও ধরনের শারীরিক ক্ষতি হওয়ার আশঙ্কা যেমন থাকে না, তেমনি উন্নতির পথে কোনও ধরনের বাঁধা আসার সম্ভাবনাও দূর হয়।


২. বৃষরাশি (Taurus):


জ্যোতিষ বিশেষজ্ঞদের মতে এই রাশির জাতক-জাতিকাদের ক্ষেত্রে লাকি চার্ম হল (lucky charm)হল ৭ নম্বরটি। এই সংখ্যাটি লেখা কোনও রুমাল বা যে কোনও কিছু প্রতি সময় সঙ্গে রাখলে দেখবে উপকার পাবেই পাবে। প্রসঙ্গত, শুধু বৈদিক অ্যাস্ট্রোলজিতে নয়, গ্রিক শাস্ত্রেও ৭ সংখ্যাটির ক্ষমতা সম্পর্কে বেশ কিছু লেখার সন্ধান পাওয়া যায়। তাই তো বলি বন্ধু, গুড লাককে যদি রোজের সঙ্গী করে তুলতে হয়, তাহলে এই সংখ্যাটির সঙ্গে বন্ধুত্ব পাতাতে দেরি করো না যেন!


৩. মিথুনরাশি (Gemini):


zod2


যদি এমনটা বিশ্বাস করো যে ভাগ্য সঙ্গে থাকলে সফলতার শৃঙ্গ জয় করা সম্ভব হয়, তাহলে সঙ্গে একটা "ডাইস" রাখতে ভুলো না যেন! এমনটা বিশ্বাস করা হয় যে ছোট এই জিনিসটির সঙ্গে বন্ধুত্ব পাতালে খারাপ সময় কেটে যেতে সময় লাগে না। আর এমনটা হলে সৌভাগ্য হয়ে ওঠে রেজের সঙ্গী। তাই তো বলি বন্ধু, মধ্য় তিরিশেই যদি একের পর এক স্বপ্ন পূরণ করতে হয়, তাহলে ডাইস বা লুডোর ছক্কাকে সঙ্গে রাখতে ভুলো না যেন!


৪. কর্কটরাশি (Cancer):


আশেপাশের মানুষদের আনন্দে রাখাই এদের মূল লক্ষ্য। শুধু তাই নয়, কীভাবে ভালোবাসার মানুষদের পাশে দাঁড়ানো যায়, সেই চিন্তার এরা সদা মশগুল থাকে। তাই এমন ভালো মানুষদের ভাগ্য সহায় না হলে চলে বলো! তবে যে জিনিসটি কর্করাশির জাতক-জাতিকাদের ভাগ্য ফেরাতে পারে, সেটি একটা আজব বস্তু! কী সেটা? গোদা বাংলায় যাকে গুবড়ে পোকা বলে, সেই পোকার একটি ছবি যদি সঙ্গে রাখা যায়, তাহলে নাকি বেজায় সুফল মেলে। সেঅ সঙ্গে কোনও ধরনের ক্ষতি হওয়ার আশঙ্কাও নাকি কমে যায়।


৫. সিংহরাশি (Leo):


zod3


বৈদিক অ্যাস্ট্রোলজি (astrology)অনুসারে সিংহরাশির অধিকারীদের লাকি চার্ম হল নীলকান্তমণি বা নীলা। এই পাথরটি ধরণা করলে নাকি এই রাশির জাতক-জাতিকাদের ভাগ্য ফিরে যেতে সময় লাগে না। কিন্তু এক্ষেত্রে একটি বিষয় মাথায় রাখা একান্ত প্রয়োজন, তা হল কোনও ধরনের জেমস্টোন বা পাথর ধারণ করার আগে জ্যোতিষ বিশেষজ্ঞদের সঙ্গে একবার আলাপ আলোচনা করে নেওয়াটা একান্ত প্রয়োজন।


৬. কন্যারাশি (Virgo):


বিশেষজ্ঞদের মতে আমাদের আশেপাশে উপস্থিত পজেটিভ এবং নেগেটিভ শক্তির দ্বারা এই রাশির জাতক-জাতিকারা বেজেয় প্রভাবিত হয়ে থাকে। তাই তো খারাপ শক্তির কারণে যাতে কন্যারাশিদের কোনও ক্ষতি না হয়, তা সুনিশ্চিত করতে এদের চোখের সামনে থাকা যায় "ইভিল আই" নামক শো-পিসটি বা লকেট হিসেবেও এটি ধারণ করতে পারো। আসলে এটি সঙ্গে থাকলে ভাগ্য তো সহায় হয়ই, সেই সঙ্গে নেগেটিভ বা খারাপ শক্তির প্রভাবে কোনও ধরনের ক্ষতি হওয়ার আশঙ্কাও যায় কমে।


৭. তুলারাশি (Libra):


zod4


খারাপ শক্তির প্রভাব কমে গিয়ে জীবনের হারিয়ে যাওয়া ভারসাম্য ফিরে আসুক, সেই সঙ্গে লেজুড় হোক অফুরন্ত আনন্দ এবং সফলতা, এমনটা যারা চাইছো, তারা দয়া করে একটা ত্রিভুজ কিনে আনতে ভুলে না যেন! অথবা ত্রিভুজের ট্যাটুও করাতে পারো। আসলে অ্যাস্ট্রোলজি (strology) এবং বাস্তুশাস্ত্রে ত্রিভুজের গুরুত্ব অনেক। কারণ এমনটা বিশ্বাস করা হয় যে এই সোপিসটি বাড়িতে রাখলে নাকি গৃহস্থের অন্দরে খারাপ শক্তির প্রভাব কমে যেতে শুরু করে। ফলে খারাপ সময় তো কেটে যায়ই। সেই সঙ্গে অর্থনৈতিক উন্নতি ঘটার সম্ভাবনাও যায় বেড়ে।


৮. বৃশ্চিকরাশি (Scorpio):


ঘোড়ার খুরের নাল (horseshoe) হল এই রাশির জাতক-জাতিকাদের ক্ষেত্রে লাকি চার্ম। এমনটা বিশ্বাস করা হয় যে এই জিনিসটি সঙ্গে রাখলে বা বাড়ির সদর দরজায় লাগিয়ে রাখলে বাড়িতে খারাপ শক্তি প্রবেশ করতে পারে মনা। সেই সঙ্গে গৃহস্থে উপস্থিত নেগেটিভ শক্তির প্রভাবও কমতে শুরু করে। ফলে স্বাভাবিকভাবেই কোনও বিপদ ঘটার আশঙ্কা যেমন কমে, তেমনি নানাবিধ টাকা-পয়সা সংক্রান্ত ঝামেলা মিটে যেতেও সময় লাগে না।


৯. ধনুরাশি (Sagittarius):


zod5


ফেংশুই (feng shui)সম্পর্কিত সোপিস যেসব দোকানে বিক্রি হয়, সেখানে খরগোশের পায়ের মতো দেখতে এক ধরনের সোপিস পাওয়া যায়, যাকে "র‍্যাবিট ফুট" (rabbit foot)নামও অনেকে চিনে থাকে। এই বিশেষ সোপিসটি ধনুরাশিদের ক্ষেত্রে বেজায় লাকি। তাই তো এই শোপিসটি যদি বাড়িতে এনে রাখা যায়, তাহলে ভাগ্য ফিরে যেতে সময়ই লাগে না। আর খারাপ সময় কেটে গেলে সফলতা রোজের সঙ্গী হয়ে ওঠার সম্ভাবনা যে বাড়ে, তা কি আর বলার অপেক্ষা রাখে! তাই তো বলি বন্ধু, বাকি জীবনটা যদি সুখে-শান্তিতে এবং আনন্দে কাটাতে হয়, তাহলে এই টোটকাটিকে কাজে লাগাতে ভুলবেন না যেন!


১০. মকররাশি (Capricorn):


চারটি পাতা এক সঙ্গে জুড়ে রয়েছে, এমন একটা পত্রগুচ্ছ যদি জোগাড় করতে পারো, তাহলে ভাগ্য ফিরে যেতে দেখবে সময়ই লাগবে না। সেই সঙ্গে রোগ-ব্যাধি তো দূরে পালাবেই, মিলবে আরও অনেক উপকতার। যেমন ধরো অর্থনৈতিক উন্নতি ঘটেবে চোখে পরার মতো, সেই সঙ্গে কর্মক্ষেত্রে একের পর এক উন্নতি লাভের সুযোগ আসতেও শুরু করবে। ফলে জীবনের ক্যানভাসটা আরও রঙিয়ে উঠবে। তবে একথা জেনে রাখা ভালো যে এমন পাতা পাওয়াটা কিন্তু এক কথায় অসম্ভব। কারণ প্রায় ১০,০০০ গাছের মধ্যে হয়তো একটি গাছে এমন চারটি পাতা একসঙ্গে লেগে থাকতে দেখা যায়।


কথাটা শোনার পর নিশ্চয় মন খারাপ লাগছে? ফিকার নট বন্ধু, এমন পাতা না পেলেও মকর রাশির জাতক-জাতিকাদের ভাগ্য ফিরিয়ে দেওয়া সম্ভব। কীভাবে তাই ভাবছো তো? আসলে বেশ কিছু বইয়ে এমনটা উল্লেখ পাওয়া যায় যে এই রাশির অধিকারীরা যদি বাড়িতে ড্রাগনের একটা মূর্তি বা ছবি এনে রাখে, তাহলে নাকি এক্ষেত্রে দারুন উপকার পাওয়া যায়।


১১. কুম্ভরাশি (Aquarius):


zod6


জ্যোতিষশাস্ত্রের উপর লেখা একাধিক বই অনুসারে এই রাশির জাতক-জাতিকারা যদি সঙ্গে ঝিঁঝিঁ পোকার ছবি রাখতে পারে, তাহলে নাকি দারুন সব উপকার মেলে। কারণ কুম্ভরাশির জন্য এটি দারুন লাকি, এমনটাই বিশ্বাস বিশেষজ্ঞদের।


১২. মীনরাশি (Pisces):


এই রাশির জাতক-জাতিকাদের ক্ষেত্রে লাকি চার্ম হল "ড্রিম ক্যাচার"। কারণ এই জিনিসটি বেড রুমে রাখলে খারাপ শক্তি ধারে কাছে ঘেঁষতে পারে না। ফলে খারাপ সময়ের খপ্পরে পরার আশঙ্কা হ্রাস পায়, সেই সঙ্গে গুড লাক রোজের সঙ্গী হয়ে ওঠে। শুধু তাই নয়, এমনটাও বিশ্বাস করা হয় যে এই শাপিসটি শোয়ার ঘরে রাখলে নাকি খারাপ স্বপ্ন আসার আশঙ্কা যেমন কমে, তেমনি অনিদ্রার মতো সমস্যাও দূর হয়। ফলে শরীর এবং মন চাঙ্গা হয়ে উঠতে সময় লাগে না।


POPxo এখন ৬টা ভাষায়! ইংরেজি, হিন্দি, তামিল, তেলুগু, মারাঠি আর বাংলাতেও!