Self Help

মাঝে মধ্যেই একটু উপোস করুন, তাতে metabolic switching হওয়ার কারণে ওজন কমবে তরতরিয়ে!

popadminpopadmin  |  Jan 14, 2020
মাঝে মধ্যেই একটু উপোস করুন, তাতে metabolic switching হওয়ার কারণে ওজন কমবে তরতরিয়ে!

আজকাল কত ধরনের ডায়েট প্ল্যানের ছড়াছড়ি। এই খেলে ওই ভাবে ওজন কমবে, এই না খেলে সেই হবে। সারাক্ষণ এই নিয়ে চিৎকার-হল্লাহাটি লেগেই রয়েছে। ফলস্বরূপ, আমাদের মধ্যে অনেকেই ওজন কমানোর স্বপ্ন নিয়ে কিছু না বুঝেই এই সব ডায়েট প্ল্যানের পিছনে ছুটছেন। এদিকে ওজন কমাতে যে হাতের কাছেই একটা সহজ উপায় রয়েছে, সেই নিয়ে কারও মাথা ব্যথাই নেই। বলুন তো, জানতেন কি মাঝে মধ্যে উপোস করেও ওজন কমানো সম্ভব? The New England Journal of Medicine পত্রিকায় প্রকাশিত এক রিপোর্ট অনুসারে মাঝেমধ্যে কিছু সময়ের জন্য উপোস করলে নাকি ওজন কমতে সময় লাগে না। আসলে উপোস করার সময় metabolic switching হয়, যে কারণে শরীরের ভিতরে এমন কিছু পরিবর্তন হতে শুরু করে যে তার প্রভাবেই ওজন তো কমে। কিন্তু এই উপোস করারও একটা কায়দা আছে, সেটাই জেনে নিন এখানে…

কী এই metabolic switching?

উপোস করলেও নানা উপকার মেলে

গোদা বাংলায় যাকে উপোস বলে, তাকেই এই নামে ডেকে থাকেন অনেকে। বিশেষজ্ঞদের মতে, নির্দিষ্ট সময় না খেয়ে থাকলে শরীর এবং ব্রেন ফাংশনে কিছু ইতিবাচক পরিবর্তন আসতে শুরু করে। আসলে শরীর অনেকক্ষণ খাবার না পেলে দেহের মেটাবলিজম বদলে যায়, যাকে metabolic switching বলা হয়। এমন পরিস্থিতিতে শরীর, glucose এবং চর্বি গলিয়ে দেহের প্রয়োজনীয় জ্বালানির সরবরাহ বজায় রেখে গুরুত্বপূর্ণ কাজগুলিকে সচল রাখে। তাই বুঝতেই পারছেন, মাত্রাতিরিক্ত হারে ফ্যাট বার্ন হওয়ার কারণে ওজন (weight loss) নিয়ন্ত্রণে চলে আসে চট করে। আর যদি উপোস করার সময় অল্পবিস্তর এক্সারসাইজ করা যায়, তা হলে তো কথাই নেই! তাতে লিভারে মজুত glycogen এবং অ্যাডিপোস সেলে জমে থাকা ফ্যাটি অ্যাসিডের খরচও বেড়ে যায়। সেই সঙ্গে শরীরে মজুত থাকা ক্ষতিগ্রস্ত কোষগুলি বেরিয়ে গিয়ে সেই জায়গায় নতুন কোষ জন্ম নিতে শুরু করে, যে কারণে শরীর রোগমুক্ত থাকে। তবে এত সব উপকার পেতে নির্দিষ্ট সময় উপোস করার পরে পর্যাপ্ত পরিমাণে খাওয়াদাওয়া যেমন করতে হবে, তেমনই নিয়ম করে আট ঘণ্টার ঘুমও জরুরি। তাতে কী উপকার মিলবে, তাই ভাবছেন? আসলে উপোসের পরে শরীর ঠিকমতো খাবার এবং আরাম পেলে তার recovery mode অ্যাকটিভ হয়। আর তখনই শরীরের ভিতরের ক্ষমতা বাড়তে শুরু করে। সেই কারণেই তো উপোস, এক্সারসাইজ এবং বিশ্রাম, এই তিনটি জিনিস যাতে হাত ধরাধরি করে চলে, সেদিকে নজর ফেরানোর পরামর্শ দেন বিশেষজ্ঞরা।

উপোস করলে আর কী কী উপকার মিলবে?

সুস্থ থাকতে উপোস মাস্ট!

প্রথমেই জেনে রাখা ভাল যে, উপোস চলাকালীন অল্পবিস্তর এক্সারসাইজ বা হাঁটাহাঁটি না করলে কিন্তু কোনও উপকারই মিলবে না। কারণ, ফাস্টিংয়ের সঙ্গে শরীরচর্চা করলে তবেই কিন্তু শরীরে জমে থাকা ফ্যাট ঝরতে শুরু করে। ফলে ওজন কমার সম্ভাবনা বাড়ে। তবে এখানেই শেষ নয়, metabolic switching-এর কারণে ওজন কমার পাশাপাশি আরও কিছু উপকার পাওয়া যায়। এর ফলে ব্লাড সুগার যেমন নিয়ন্ত্রণে থাকে, তেমনই খারাপ কোলেস্টেরলের মাত্রা কমতেও সময় লাগে না। সেই সঙ্গে ব্লাড প্রেশারও বিপদসীমার মধ্যে থাকতে বাধ্য হয়। উপোস বা intermittent fasting করার সময় শরীরের ভিতরে প্রদাহের মাত্রাও কমতে শুরু করে, যে কারণে হার্টের কোনও ধরনের ক্ষতি হওয়ার আশঙ্কা আর থাকে না। সেই সঙ্গে ব্রেনের ক্ষমতাও বাড়ে। বিশেষ করে স্মৃতিশক্তি এবং cognitive function-এর উন্নতি ঘটতে সময় লাগে না।

মাথায় রাখুন এই টিপসগুলি

নিয়ম মেনে চলতে হবে

দুটো নিয়ম মেনে উপোস করতে পারেন। এক, প্রতিদিন একটা নির্দিষ্ট সময় না খেয়ে থাকার চেষ্টা করতে পারেন। এক্ষেত্রে দিনে ছ’ থেকে আট ঘণ্টা খেতে হবে, বাকি সময় উপোস। অন্য নিয়মটিকে ৫:২ রুল বলা হয়। অর্থাৎ সপ্তাহে পাঁচ দিন কব্জি ডুবিয়ে খেলেন, আর বাকি দু’দিন খুব কম খেলেন। এই পদ্ধতিতেও মেটাবলিক সুইচিং হয়। তবে মাথায় রাখবেন, দু’টি পদ্ধতিই কিন্তু সহজ নয়, তাই উপোস শুরু করার আগে কতগুলি বিষয় খেয়াল রাখা একান্ত প্রয়োজন। যেমন ধরুন,

১. হঠাৎ করে খাওয়াদাওয়া বন্ধ করে দেবেন না। তাতে শরীরের তো কোনও উপকার হবেই না, উল্টে কষ্ট সহ্য করতে না পেরে উপোস করার ইচ্ছেটাই চলে যাবে। তাই ধীরেসুস্থে শুরু করুন। অল্প-অল্প করে খাওয়া কমান। সঙ্গে এক্সারসাইজ শুরু করুন। সময় যত এগোবে, তত খাওয়ার পরিমাণ কমাতে থাকুন। তবে এক্ষেত্রে একবার ডায়েটিশিয়ানের সঙ্গে আলোচনা করে নিতে ভুলবেন না যেন!

২. উপোস শুরু করার প্রথম কয়েকটা দিন খুব খিদে পাবে। তা বলে চিন্তা করবেন না যেন! বরং একটু সহ্য করুন। তাতে করে শরীর এবং ব্রেন এই নতুন পরিস্থিতির সঙ্গে মানিয়ে ওঠার সুযোগ পাবে। ফলে ধীরে-ধীরে উপকার পেতে শুরু মিলবে। প্রসঙ্গত উল্লেখ্য, intermittent fasting করে উপকার পেতে সপ্তাহদু’য়েক লেগেই যায়। কারও-কারও তো এক মাস লেগে যায় ওজন কমতে। তাই ধৈর্য ধরে এই ডায়েট প্ল্যান মানতে থাকুন। দেখবেন, উপকার পাবেনই পাবেন!

POPxo এখন ৬টা ভাষায়! ইংরেজি, হিন্দি, তামিল, তেলুগু, মারাঠি আর বাংলাতেও!

আমাদের এক্কেবারে নতুন POPxo Zodiac Collection মিস করবেন না যেন! এতে আছে নতুন সব নোটবুক, ফোন কভার এবং কফি মাগ, যেগুলো দারুণ ঝকঝকে তো বটেই, আর একেবারে আপনার কথা ভেবেই তৈরি করা হয়েছে। হুমম…আরও একটা এক্সাইটিং ব্যাপার হল, এখন আপনি পাবেন ২০% বাড়তি ছাড়ও। দেরি কীসের, এখনই POPxo.com/shopzodiac-এ যান আর আপনার এই বছরটা POPup করে ফেলুন!