Advertisement

Weight Loss

রান্না ঘরে থাকা এই খাবার ও মশলাগুলি ‘খেয়ে’ ওজন কমান তরতরিয়ে (Simple Diet To Lose Weight)

popadminpopadmin  |  Jul 25, 2019
রান্না ঘরে থাকা এই খাবার ও মশলাগুলি ‘খেয়ে’ ওজন কমান তরতরিয়ে (Simple Diet To Lose Weight)

জিমে গিয়ে বা বাড়িতে এক্সারসাইজ করার সময় নেই। এদিকে ছুটির দিনে আলসেমির চক্করে হাত-পা ছুড়তে মন চায় না। তা হলে ওজন কমবে কীভাবে, তাই ভাবছেন? না, না, তাই বলে খাওয়া-দাওয়া ছেড়ে ডায়েটিং করতে হবে না। বরং একটা কাজ করুন। কী কাজ? আপনার রান্না ঘরে মজুত থাকা কিছু খাবার আর মশলাকে রোজের ডায়েটে জায়গা করে দিন। দেখবেন, ওজন কমবে তরতরিয়ে। আর যদি এই সব খাবার খাওয়ার পাশাপাশি সপ্তাহে দিনচারেক মিনিটকুড়ি হাঁটতে পারেন অথবা লিফ্টে না উঠে যদি সিঁড়ি ব্যবহার করেন, তা হলে তো কথাই নেই। সেক্ষেত্রে ওজন কমবে আরও দ্রুত। এত দূর পড়ার পর নিশ্চয়ই সেই সব খাবারগুলি সম্পর্কে জানতে ইচ্ছা করছে যেগুলি ওজন কমাতে সক্ষম? চলুন তা হলে সেই সব খাবারগুলি (Simple Diet To Lose Weight) সম্পর্কে জেনে নেওয়া যাক।

দ্রুত ওজন কমানোর সহজ উপায় (Simple Foods To Lose Weight)

আমাদের প্রায় প্রত্যেকের রান্নাঘরেই পাওয়া যায় এই জিনিস গুলো। কিন্তু কখন ভেবে দেখেছেন কি এগুলো দিয়েও ওজন কমে দ্রুত। রইল সেরকমই কয়েকটি ওজন কমানোর খাবারের তালিকা

১| মুগ ডাল (Moong Dal)

বিশ্বাস হচ্ছে না তো যে মুগ ডাল খেলেও ওজন কমে? একাধিক স্টাডিতে ইতিমধ্যেই একথা প্রমাণিত হয়ে গেছে যে, অতিরিক্ত ওজন কমিয়ে ফেলতে (Simple Diet To Lose Weight) মুগ ডালের জুড়ি মেলা ভার। কারণ, এই ডালে মজুত রয়েছে ভিটামিন এ, সি,বি এবং ই। সেই সঙ্গে রয়েছে পটাশিয়াম, ক্যালসিয়াম এবং আয়রনের মতো খনিজ, যা শরীরকে চাঙ্গা রাখতে নানা ভাবে সাহায্য করে থাকে। অন্যদিকে মুগ ডালে উপস্থিত প্রোটিন এবং ফাইবার বহুক্ষণ পেট ভরিয়ে রাখে। ফলে স্বাভাবিকভাবেই শরীরে প্রয়োজন অতিরিক্ত ক্যালরি প্রবেশ করতে পারে না, যে কারণে ওজন নিয়ন্ত্রণে চলে আসতে সময় লাগে না। তাই তো অতিরিক্ত ওজন কমিয়ে ফেলার ইচ্ছে যদি থাকে, তা হলে প্রতিদিন এক বাটি করে মুগ ডাল খেতে ভুলবেন না যেন!

Lactose Intolerance-এর শিকার হলে কোন কোন খাবারগুলি খেতেই হবে

২| পালং শাক (Spinach)

Pixabay

বর্ষাকালে সুস্থ থাকতে শাক খাওয়া উচিত নয় ঠিকই। কিন্তু কলকতায় যেহেতু এখনও সেভাবে বৃষ্টি শুরু হয়নি, তাই সপ্তাহে দিনতিনেক পালং শাক খেতেই পারেন। তাতে উচ্চ রক্তচাপ এবং পেটের রোগের মতো সমস্যা যেমন দূরে থাকবে, তেমনই দৃষ্টিশক্তির উন্নতি ঘটবে, ব্রেন পাওয়ার বাড়বে, হার্টের কোনও ধরনের ক্ষতি হওয়ার আশঙ্কা কমবে এবং অবশ্যই ওজন কমবে তরতরিয়ে। কিন্তু পালং শাক খেলে কীভাবে ওজন কমবে? এই শাকটিতে মজুত রয়েছে প্রচুর পরিমাণে ফাইবার, যা মেটাবলিজম রেটের উন্নতি ঘটায়, যে কারণে শরীরের ইতি-উতি মেদ জমার আশঙ্কা আর থাকে না। তাছাড়া পালং শাকে উপস্থিত ফাইবার অনেকক্ষণ পেট ভরিয়ে রাখে। ফলে বারে বারে মুখ চালানোর ইচ্ছা কমে যায়। আর কম পরিমাণে খাওয়ার কারণে ওজন বেড়ে যাওয়ার আশঙ্কাও দূর হয়। প্রসঙ্গত উল্লেখ্য, এতসব উপকার পেতে নিয়মিত এক বাটি সেদ্ধ পালং শাক যেমন খেতে পারেন, তেমনই ডালে দিয়ে খেলে অথবা পালং শাকের রস পান করলেও সমান উপকার পাওয়া যায়।

৩| বিট (Beet Root)

দুটো মাঝারি মাপের বিট এবং দুটো গাজর ব্লেন্ডারে ফেলে রস তৈরি করে নিন। এবার তাতে চামচ তিনেক লেবুর রস মিশিয়ে পান করুন। নিয়মিত এই পানীয়টি খেলে ক্লান্তি দূর হবে। সেই সঙ্গে ভিটামিন এবং মিনারেলের ঘাটতি যেমন মিটবে, তেমনই অতিরিক্ত ওজন কমে যেতেও দেখবেন সময় লাগবে না। শুধু তই নয়, বিট-গাজরে উপস্থিত একাধিক অ্যান্টিঅক্সিডেন্টের কারণে রক্তে মিশে থাকা টক্সিক উপাদানগুলি নিমেষে ধ্বংস হয়ে যাবে, যে কারণে ছোট-বড় নানা রোগের খপ্পরে পড়ার আশঙ্কা আর থাকবে না।

৪| আমন্ড (Almond)

রক্তে শর্করার মাত্রা হঠাৎ করে বেড়ে গেলে খুব খিদে পায়। বেশি মাত্রায় খাওয়ার কারণে স্বাভাবিকভাবেই শরীর ফুলে যেতে সময় লাগে না। তাই তো ওজন নিয়ন্ত্রণে রাখতে চাইলে রক্তে সুগারের পরিমাণ যাতে মাত্রা না ছাড়ায়, সেদিকে নজর রাখতে হবে। আর ঠিক সেই কারণেই নিয়মিত এক মুঠো করে আমন্ড খাওয়া একান্ত প্রয়োজন। কারণ, এতে উপস্থিত একধিক উপকারী উপাদান শরীরে শর্করার মাত্রাকে বেঁধে রাখতে বিশেষ ভূমিকা নেয়। ফলে ওজন বেড়ে যাওয়ার আশঙ্ক আর থাকে না। আমন্ডে মজুত ফাইবারও ওজন কমাতে বিশেষ ভূমিকা পালন করে থাকে। প্রসঙ্গত উল্লেখ্য, এই প্রাকৃতিক উপাদানে রয়েছে প্রচুর মাত্রায় ওমেগা থ্রি এবং ওমেগা সিক্স ফ্যাটি অ্যাসিড, যা ব্রেন এবং হার্টের ক্ষমতা বাড়ায়। তাই বুঝতেই পারছেন শরীরকে সুস্থ রাখতে এবং ওজনকে কমাতে হলে নিয়মিত এক মুঠো করে আমন্ড খাওয়া মাস্ট!

৫| দারচিনি (Cinnamon)

Pixabay

বাড়িতে দারচিনি আছে নিশ্চয়ই? তা হলে একটা কাজ করুন। খানচারেক দারচিনি স্টিক নিয়ে তা গুঁড়ো করে সেই পাউডার, লিকার চায়ে মিশিয়ে খাওয়া শুরু করুন। দেখবেন, ওজন নিয়ে আর কোনও চিন্তাই থাকবে না। সেই সঙ্গে আরও অনেক শারীরিক উপকারও পাবেন।

৬| হলুদ (Turmeric)

এক্কেবারে ঠিক শুনেছেন! সত্যিই কিন্তু ওজন কমাতে হলুদের কোনও বিকল্প হয় না বললেই চলে। কারণ, এতে রয়েছে curcumin নামক একটি উপাদান, যা শরীরে জমে অতিরিক্তি ফ্যাট ঝরিয়ে ফেলতে বিশেষ ভূমিকা পালন করে থাকে। এমনকী, ক্যান্সারের মতো মারণ রোগকে দূরে রাখতেও curcumin-এর জুরি মেলা ভার। তাই তো বলি, অতিরিক্ত ওজন কমিয়ে ফেলে যদি সুস্থ থাকতে চান, তাহলে রান্নায় একটু বেশি করে হলুদ মেশাতে ভুলবেন না যেন! এক গ্লাস দুধে চামচ দুয়ের হলুদ মিশিয়েও খেতে পারেন। 

POPxo এখন ৬টা ভাষায়! ইংরেজি, হিন্দি, তামিল, তেলুগু, মারাঠি আর বাংলাতেও!

আপনি যদি রংচঙে, মিষ্টি জিনিস কিনতে পছন্দ করেন, তা হলে POPxo Shop-এর কালেকশনে ঢুঁ মারুন। এখানে পাবেন মজার-মজার সব কফি মগ, মোবাইল কভার, কুশন, ল্যাপটপ স্লিভ ও আরও অনেক কিছু!