Advertisement

বিউটি প্রোডাক্টস নিয়ে নানা তথ্য

ফেস ওয়াশ ত্বকের জন্য কতটা জরুরি?

Swaralipi BhattacharyyaSwaralipi Bhattacharyya  |  Sep 14, 2020
ফেস ওয়াশ ত্বকের জন্য কতটা জরুরি?

Advertisement

আপনি বাড়িতেই থাকুন বা বাইরে বেরন, দিনভর পরিবেশের কারণেই ময়লা জমে ত্বকে। যা মারাত্মক ক্ষতি করতে পারে। বিভিন্ন ব্যাকটেরিয়া ত্বকের গভীরে গিয়ে ক্ষত তৈরি করতে পারে। তা থেকে রেহাই পেতে ফেস ওয়াশ (face wash) বিউটি রুটিনের অপরিহার্য অঙ্গ। 

মনে করে দেখুন, ছোটবেলায় হয়তো সাবান দিয়ে মুখ ধুয়ে দিতেন মা। তারপর ময়শ্চারাইজার লাগানো হত। সাধারণ পরিবারে এটাই রেওয়াজ ছিল। তখনও সৌন্দর্য নিয়ে তেমন সচেতনতা ছিল না মধ্যবিত্ত পরিবারে। কিন্তু মুখ পরিষ্কারের চল ছিলই। এখন সেই রুটিন বদলে গিয়েছে। এসেছে বাজারচলতি বিভিন্ন ফেস ওয়াশ।

Myglamm তাদের নতুন সম্ভারে বেশ কিছু পকেটফ্রেন্ডলি ফেশ ওয়াশ নিয়ে এসেছে। সব ধরনের ত্বকের কথা ভেবেই বিশেষজ্ঞরা এই প্রোডাক্টগুলি তৈরি করেছেন। আমাদের পছন্দের তিনটে ফেশ ওয়াশের কথা এখানে উল্লেখ করলাম। ব্যবহার করে আমাদের রিভিউ দিতে পারেন। তবে অবশ্যই ব্যবহারের আগে ব্যবহারবিধি ভাল করে জেনে নিন। আর আপনার ত্বকের (skin) জন্য কোনটা সঠিক প্রোডাক্ট সেটা জেনে নিয়ে তবেই কিনবেন।

বাজারচলতি প্রোডাক্টের পাশাপাশি অনেকেই ঘরে তৈরি ফেশ ওয়াশ ব্যবহার করতে ভালবাসেন। সেক্ষেত্রে কীভাবে কোন উপকরণের সাহায্যে বাড়িতে ফেশ ওয়াশ তৈরি করতে পারেন, তার কিছু সাজেশন দেওয়ার চেষ্টা করলাম আমরা।

১) নারকেল তেল মুখে-গলায় ভাল করে মালিশ করে নিন। কিছুক্ষণ পরে ভেজা তুলো বা নরম কাপড়ে আলতো করে মুখ মুছে বাড়তি তেল তুলে নিন। এবার জল দিয়ে মুখ ধুয়ে নিন। এরপর টোনার এবং ময়শ্চারাইজার লাগাতে ভুলবেন না।

২) ঠান্ডা দুধে তুলোর ভিজিয়ে ত্বক পরিষ্কার করতে পারেন। প্রাকৃতিক ক্লিনজারের কাজ করবে। আরও একটু ভাল ফল পেতে চাইলে দুধের সঙ্গে মধু মিশিয়ে নিয়ে ক্লিনজার তৈরি করতে পারেন।

 

৩) শসা গ্রেট করে তার মধ্যে মিশিয়ে নিন পরিমাণমতো দই। এটি খুব ভাল প্রাকৃতিক ক্লিনজার। ভাল ফল পেতে সপ্তাহে তিনদিন ব্যবহার করুন। এরপর টোনার এবং ময়শ্চারাইজার লাগিয়ে নিন।

৪) দইয়ের ল্যাকটিক অ্যাসিড ত্বক পরিষ্কার করে, সেই সঙ্গে রাখে নরম। সেই সঙ্গে মধু আর লেবুর রস মিশিয়ে ফেস ওয়াশ হিসেবে ব্যবহার করতে পারেন। এর সঙ্গে মধু মিশিয়ে নিলে প্রাকৃতিক ময়শ্চারাইজারের কাজ করবে।

 

৫) ওটমিল, দই আর মধু একসঙ্গে মিশিয়ে ক্লিনজার তৈরি করুন। সেটিও প্রাকৃতিক ফেশ ওয়াশ হিসেবে কাজ করবে।

ফেস ওয়াশ আর সাবানের মধ্যে কিছু পার্থক্য রয়েছে। সেটা নিয়ে আর একদিন আলোচনা নিশ্চয়ই করব। তবে এটুকু জেনে রাখা ভাল, সাবানের তুলনায় ফেস ওয়াশ ব্যবহার করাটাই আপনার ত্বকের জন্য ভাল। যদি এখনও সে অভ্যেস তৈরি না হয়, তাহলে আর দেরি করবেন না। আজ থেকেই শুরু করুন। 

POPxo এখন ৬টা ভাষায়! ইংরেজি, হিন্দি, মারাঠি আর বাংলাতেও!

বাড়িতে থেকেই অনায়াসে নতুন নতুন বিষয় শিখে ফেলুন। শেখার জন্য জয়েন করুন #POPxoLive, যেখানে আপনি সরাসরি আমাদের অনেক ট্যালেন্ডেট হোস্টের থেকে নতুন নতুন বিষয় চট করে শিখে ফেলতে পারবেন। POPxo App আজই ডাউনলোড করুন আর জীবনকে আরও একটু পপ আপ করে ফেলুন!