Self Care Tips: আগে নিজের খেয়াল রাখুন, তবেই বাকিদের ভাল রাখবেন! in Bengali | POPxo

Self Care Tips: আগে নিজের খেয়াল রাখুন, তবেই না পরিবারের বাকিদের ভাল রাখতে পারবেন!

Self Care Tips: আগে নিজের খেয়াল রাখুন, তবেই না পরিবারের বাকিদের ভাল রাখতে পারবেন!

একটু ভেবে বলুন তো, নিজেকে আপনি ঠিক কতটা ভালবাসেন? হ্যাঁ জানি, করিনা কপূর খানের মতো সকলেই বলবেন, ম্যায়ঁ অপনি ফেভারিট হুঁ! কিন্তু শুধু মুখে বললেই তো হল না, কাজেও করে দেখান কি? নাকি পরিবার-সংসার-কেরিয়ারের জাঁতাকলেই মাথা কুটে মরতে থাকেন? দেখুন, বাংলাতেও কিন্তু বলে, আপনি বাঁচলে বাপের নাম! মানে, আপনি নিজে ঠিক থাকলে, সুস্থ থাকলে, খুশি থাকলে, তবেই আপনার আশেপাশের বাকিদের ভাল রাখতে পারবেন। তাই সবচেয়ে আগে নিজের খেয়াল রাখা, নিজের ভাল থাকাটা জরুরি। আর ঠিক এখানেই বাঙালি, তথা বেশিরভাগ ভারতীয় মহিলারাই সমস্যা তৈরি করে ফেলেন। সমস্যা মানে, তাঁরা মাদার টেরিজার ছোট বোন হয়ে গিয়ে আগে দেশের-দশের ভাল করতে যান, তারপর নিজের দিকটা দেখেন। আমরা বলছি, এই অভ্যেসটি এবার থেকে পাল্টে ফেলুন। আগে নিজের দিকে নজর দিন, নিজেকে ভাল (self care) রাখুন। আর এই আপাতকঠিন, কিন্তু আদতে সরল কাজটি করবেন কী করে, সেটির সম্বন্ধেই আমরা কয়েকটি টিপস (tips) দিচ্ছি আজ। টিপস দেওয়াটা জরুরি, কারণ, নিজেকে ভালবাসা কিংবা নিজের খেয়াল রাখাটাও একটা আর্ট, সেটি আমাদের সকলেরই মন দিয়ে শেখা উচিত।

আরও পড়ুন: বয়স বাড়ার সঙ্গে-সঙ্গে মাথাও কিন্তু শরীরের মতো 'মোটা' হয়! তাকে আবার ক্ষুরধার করবেন কী করে?  

১. ডায়েরি লিখতে শুরু করুন

ডায়েরি লিখতে শুরু করুন
Pixabay

ডায়েরি লেখা সাহিত্য নয়, বরং মনোবিদদের ভাষায়, এটি আসলে জার্নালিং, যা এক রকমের থেরাপিও বটে। আর ডায়েরি মানে, মোটেও সারা দিনের পর রাতে বসে দুই পাতা খসখস করে লিখে ফেলা নয়। আপনি ডায়েরি লেখা শুরু করুন একটু অন্য রকমভাবে। প্রথমে সকালে উঠে নিজের সারা দিনের কাজ লিপিবদ্ধ করে ফেলুন। দুটো ভাগ করবেন। একটায় লিখবেন, স্রেফ নিজের জন্য আজ কী-কী করবেন, অন্যটায় বাকি কাজ। এবার দিনের শেষে শুতে যাওয়ার আগে সেটি খুলে বসুন এবং টিক মারুন যেগুলো করে ফেলেছেন সেগুলোতে এবং যেগুলো করতে পারেননি, সেগুলো পরের দিনের জন্য রেখে দিন। তালিকার বাইরে যদি কিছু করে থাকেন, তা হলে সেই পাতাতেই নীচে স্টার মার্ক দিয়ে লিখে রাখুন। মাসখানেক পর জার্নালটি খুলে বসুন, দেখতে পাবেন, স্রেফ নিজের কথা ভেবে, নিজের ভাল থাকার, খুশি থাকার কথা ভেবে কতটুকু কাজ করেছেন আর বাকিদের জন্য কতটুকু। দুটো ভাগের কাজ যেদিন সমান-সমান হয়ে যাবে, মনোবিদদের ভাষায়, সেদিন আপনি নিজের জন্য নিজেও ফিট, বাকিদের খুশি রাখার জন্যও ফিট!

২. এক্সারসাইজ করুন এবং ধ্যানে বসুন

এক্সারসাইজ করুন এবং ধ্যানে বসুন
Pixabay

রোগা হবেন বলে নয়, সাইজ জিরো ফিগার পাওয়ার আশায় নয়, নিজেকে ভাল রাখার জন্য। এক্সারসাইজ যে-কোনও ফরম্যাটের হতে পারে, বাড়িতে ফ্রি-হ্যান্ড, হাঁটাহাঁটি, জিমে যাওয়া, যোগব্যায়াম...যেটি আপনার পছন্দ ও সুবিধে। কিন্তু রোজ অন্তত আধ ঘণ্টা করুন। এর পিছনে শরীরকে ঝরঝরে রাখা ছাড়াও আরও একটি গুরুত্বপূর্ণ কারণ আছে, সেটি হল, এই সময়টুকু আসলে আপনি নিজের জন্য ব্যয় করছেন। তখন চাইলেও সংসার-কেরিয়ার আপনার নিজেকে ভালবাসার পথে বাধা হয়ে দাঁড়াতে পারবে না। মেডিটেশন, মানে, ধ্যানে বসাটাও ওই একই কারণে জরুরি। এই সময়টুকু একান্তভাবেই আপনার, অন্য কেউ এখানে ভাগ বসাতে পারবে না। আর এক্সারসাইজ-মেডিটেশনের ফলে যে শারীরিক-মানসিক জোর বাড়বে, সেটা তো উপরি পাওনা।  

৩. বেশিক্ষণ ধরে স্নান করুন

বেশিক্ষণ ধরে স্নান করুন
Pixabay

বিশেষজ্ঞরা বলছেন, সময় নিয়ে স্নান করাটা যে কতটা মানসিক চাপ, অবসাদ, ক্লান্তি কাটাতে পারে, তা আমরা এমনিতে আন্দাজও করতে পারব না! স্নানের সময়ও কেউ আপনাকে বিরক্ত করছে না, কেউ আপনার নিজের খেয়াল রাখায় বাধ সাধতে আসছে না। শাওয়ারের তলায় অনেকক্ষণ ধরে দাঁড়িয়ে থাকুন কিংবা গায়ে মগ দিয়ে জল ঢালুন। জলই আপনার জন্য আপনার খেয়াল রাখবে। স্নানের জলে একটু ওডিকোলন, এসেনশিয়াল অয়েল মিশিয়ে নিজেকে আরও তরতাজা করে ফেলতে পারেন। 

আরও পড়ুন: চাপ-ধকল কমাতে আয়ুর্বেদিক স্নানের জুড়ি মেলা ভার

৪. মাঝে-মাঝে একটা দিন নিজেকে বিশ্রাম নিন

মাঝে-মাঝে একটা দিন নিজেকে বিশ্রাম নিন
Pixabay

লোকে রেগে যাক, দুনিয়া রসাতলে যাক, মাঝে-সাঝে একটা দিন কিচ্ছুটি না করে স্রেফ শুয়ে-ঘুমিয়ে কাটিয়ে দিন। এই একটি করে ল্যাদ দিবস আমাদের সকলের জন্য যে কতটা জরুরি, সেকথা আমরা বুঝতেও পারি না। ওই একটি দিনের কিচ্ছু না করা আপনাকে আগামী অনেকগুলো দিন সকলের জন্য বাঁচতে, সকলকে সুস্থ (healthy life) রাখতে সাহায্য করবে। তাই অন্যরা রেগে গেলেও, এই কাজটি নিজের জন্য করুন, দেখবেন, আখেরে লাভই হবে।

৫. নিজেকে প্যাম্পার করুন

নিজেকে প্যাম্পার করুন
Shutterstock

আজকাল কেউ আর আপনার জন্য ভাববে না, আপনিই নিজেই নিজের জন্য ভাবুন। মাঝে-সাঝে নিজেকে প্যাম্পার করুন। বিউটি পার্লারে যান, ফেসিয়াল-পেডিকিওর-ম্যানিকিওর করান, বডি মাসাজ করান, অয়েল মাসাজ করান, ডি-স্ট্রেসড হোন। পার্লারের ওই মানুষগুলোর কাছে তখন আপনিই সবচেয়ে বেশি গুরুত্বপূর্ণ। তাই তারা মন দিয়ে আপনার সেবা করবে! রানির মতো ট্রিটমেন্ট পেতে কার না ভাল লাগে? আপনারও লাগবে। মনটা খুশি-খুশি হয়ে যাবে এবং সেই খুশির ডানায় ভর করে অন্যদেরও ভাল রাখতে পারবেন।

POPxo এখন ৬টা ভাষায়! ইংরেজি, হিন্দি, তামিল, তেলুগু, মারাঠি আর বাংলাতেও!

আমাদের এক্কেবারে নতুন POPxo Zodiac Collection মিস করবেন না যেন! এতে আছে নতুন সব নোটবুক, ফোন কভার এবং কফি মাগ, যেগুলো দারুণ ঝকঝকে তো বটেই, আর একেবারে আপনার কথা ভেবেই তৈরি করা হয়েছে। হুমম...আরও একটা এক্সাইটিং ব্যাপার হল, এখন আপনি পাবেন ২০% বাড়তি ছাড়ও। দেরি কীসের, এখনই POPxo.com/shopzodiac-এ যান আর আপনার এই বছরটা POPup করে ফেলুন!