সুস্থ শারীরিক সম্পর্কের জন্য Sexual hygiene-এর দিকে নজর দিন

সুস্থ শারীরিক সম্পর্কের জন্য Sexual hygiene-এর দিকে নজর দিন

শারীরিক মিলনের পরে নিজেকে পরিষ্কার-পরিচ্ছন্ন রাখার প্রয়োজনীয়তা আমাদের অনেকেরই অজানা! জানেন কি, শারীরিক মিলন বা sexual intercourse-এর পরে ভাল করে যোনিপথ (Vagina) পরিষ্কার করার পরামর্শ দেন চিকিৎসকেরা? কারণ, এমনটা না করলে সংক্রমণের ভয় তো থাকেই, লেজুড় হতে পারে আরও নানা সমস্যা। তাই Sexual hygiene-এর দিকে নজর ফেরানোটা একান্ত প্রয়োজন। কিন্তু প্রশ্ন হল, আপনি জানেন কি যোনিপথ কীভাবে পরিষ্কার করতে হয়? না জানলে তা বলে দিচ্ছি আমরা।


আরো পড়ুনঃ সাদাস্রাবের কারণ ও সমাধান


যোনিপথ (Vagina) পরিষ্কারের নিয়ম


১. জলের স্প্রে বা হ্যান্ড শাওয়ার ব্যবহার করবেন না


যোনিপথ পরিষ্কার করার সময় ভুলেও ওয়াটার স্প্রে বা হ্যান্ড শাওয়ার ব্যবহার করবেন না। কারণ, চিকিৎসকদের মতে, এমনটা করলে জলের প্রবল চাপে সেখানে উপস্থিত ব্যাকটেরিয়াগুলি জরায়ু পর্যন্ত পৌঁছে যায়। ফলে সংক্রমণে আক্রান্ত হওয়ার আশঙ্কা যায় বেড়ে। তাই স্প্রে নয়, বরং শারীরিক মিলনের পর এক মগ জল নিয়ে ধীরে-ধীরে ধুয়ে নিন আপনার যোনিপথ।


২. সাবান আর জল, ব্যস!


যোনিপথ পরিষ্কার রাখতে আজকাল অনেকেই নানা ধরনের ক্লেনজার এবং জেল ব্যবহার করে থাকেন। জেনে রাখা ভাল যে, শরীরে এই অংশে যে-কোনও জেল বা ক্লেনজার লাগানো উচিত নয়। তাতে অ্যালার্জি হওয়ার আশঙ্কা যেমন থাকে, তেমনই PH ব্যালেন্স বিগড়ে গিয়ে মাথা চাড়া দিয়ে উঠতে পারে আরও নানা সমস্যা। তাই কোনও ধরনের জেল বা ক্রিম নয়, বরং উষ্ণ গরম জল আর সুগন্ধিমুক্ত সাবান দিয়ে পরিষ্কার করতে হবে শরীরের এই স্পর্শকাতর জায়গাটি। তাতেই মিলবে উপকার। আজকাল যোনিপথ পরিষ্কারর জন্য বিশেষ ধরনের সাবান পাওয়া যায় বাজারে। ব্যবহার করে দেখতে পারেন সেগুলিও। 


আরও পড়ুন: আপনার স্তন কেন আকর্ষণ করে আপনার বয়ফ্রেন্ডকে!


৩. যোনিদেশের আশেপাশের অংশও পরিষ্কার রাখুন


বিকিনি ওয়্যাক্স (Bikini wax), এই শব্দটির সঙ্গে আমরা অনেকেই এখনও পরিচিত নই। আমাদের যোনিদেশের  চারপাশে যে লোম থাকে তা নির্মূল করার জন্যই করা হয় এই ওয়্য়াক্সিং। অনেকেই এটি করতে ভয় পান। তা হলে ব্যবহার করে দেখতে পারেন হেয়ার রিমুভিং ক্রিম বা ফিমেল রেজার। তবে যোনিপথের লোম বাড়তে দেওয়া একেবারেই বাঞ্ছিত নয়। এই অংশে ঘামও বেশি হয় আর তার ফলে হাজার রকমের ব্যাকটেরিয়া এসে বাসা বাঁধে। তাতে সংক্রমণের আশঙ্কা তো বাড়বেই, লেজুড় হবে দুর্গন্ধও। 


৪. প্রস্রাব চেপে রাখবেন না


শারীরিক মিলনের পরে অতি অবশ্যই একবার মূত্র ত্যাগ করবেন। বিশেষজ্ঞদের মতে, এই সময় তা করলে ইউরিনারি ব্লাডারে উপস্থিত জীবাণুগুলি শরীর থেকে বেরিয়ে যায়। এমনকী, ইউরিনারি ট্রাক্টেও ব্যাকটেরিয়া জমে থাকার আশঙ্কা কমে। ফলে সংক্রমণের ভয় আর থাকে না। বিশেষত, ইউরিনারি ট্রাক্ট ইনফেকশন এ (UTI) আক্রান্ত হওয়ার আশঙ্কা দূর হয়।


৫. পরিষ্কার রাখুন সব দিকই


প্রতিবার শারীরিক মিলনের পরে যোনিপথ থেকে পায়ু পর্যন্ত অংশ ভাল করে ধুয়ে নিন। তাতে জীবাণু মুক্ত হবে যোনিদেশ। কমবে সংক্রমণের আশঙ্কাও।


৬. শারীরিক মিলনের আগে ও পরে


অনেকেই ভুরু কুঁচকাবেন, কিন্তু শারীরিক মিলনের আগে ও পরে, দু'বারই আপনি এবং আপনার পার্টনার ভাল করে sexual organs পরিষ্কার করে নেবেন। একজনের সংক্রমণ অন্যজনেও সংক্রমিত হওয়া মোটেও বুদ্ধিমানের কাজ নয়!


POPxo এখন ৬টা ভাষায়! ইংরেজি, হিন্দি, তামিল, তেলুগু, মারাঠি আর বাংলাতেও!


এগুলোও আপনি পড়তে পারেন


HIV এর লক্ষণ


আপনি যদি রংচঙে, মিষ্টি জিনিস কিনতে পছন্দ করেন, তা হলে POPxo Shop-এর কালেকশনে ঢুঁ মারুন। এখানে পাবেন মজার-মজার সব কফি মগ, মোবাইল কভার, কুশন, ল্যাপটপ স্লিভ ও আরও অনেক কিছু!