logo
Logo
User
home / Care
চুলের যত্নে মেথির পরশ (fenugreek  for healthy and shiny hair)

চুলের যত্নে মেথির পরশ (fenugreek for healthy and shiny hair)

চুল (hair)  নিয়ে কত না চুলোচুলি করি আমরা সারাদিন। বাসে ট্রামে, রাস্তা ঘাটে, রান্নাঘর (kitchen) থেকে শুরু করে ছাদে আচার শুকোনোর সময় সব মেয়েরাই চুল নিয়ে আলোচনা করে।কারও চুল পড়ার সমস্যা, কারও খুশকি (dandruff), কারও চুল পাতলা হয়ে যাচ্ছে, আবার কারও চুলে কোনও জেল্লা (shine) নেই। মোদ্দা কথা সমস্যার শেষ নেই।এখন উপায়? চলো পার্লারে। করো গাদা গুচ্ছের স্পা। তার জন্য পকেট খালি হয়তো হোক। কিন্তু দিনের শেষে নিট ফল যদি শুন্য হয় তখন? একেই বলে প্রদীপের নীচে অন্ধকার। চুলের (hair) নানা সমস্যার সমাধান আপনার হাতের মুঠোয় রয়েছে, বা বলা চলে চৌকাঠের ওপারে আপনার হেঁশেলে আছে। আর আপনি এখানে ওখানে দৌড়ে মরছেন। কী বলছি বুঝতে পারছেন না তো? বলছি মেথির কথা। হ্যাঁ, হ্যাঁ ঠিক শুনেছেন। মেথি (fenugreek) ।সেদিন এক বান্ধবীর (friend) সঙ্গে এই চুল নিয়েই কথা হচ্ছিল। ওর নাম মেঘা। আর সত্যিই একসময় মেঘের মতোই এক ঢাল চুল ছিল ওর। বাড়ি পাল্টেছে ও সম্প্রতি।তার সঙ্গে পাল্টেছে জলও। এই নতুন জায়গার জলই নাকি নষ্ট করে দিচ্ছে মেঘার চুল। চুল পড়ছে খুব। কমে যাচ্ছে ভলিউম। হ্যাঁ, তো যা বলছিলাম আর কী। আমরা দুই পুরনো বন্ধু (friend) তো হারানো চুলের (hair) দুঃখে হা হুতাশ করছি। সত্যি বলতে কী মেথির কথা মাথায় আসেনি। আমাদের কথা শুনতে পেয়ে কফি শপের পাশের টেবিলে এক মহিলা নিজেই এগিয়ে এসে এই মেথির কথা বললেন। প্রথমে আমরা বিশ্বাস করছিলাম উনি যা বলছেন। উনি তারপর শেয়ার করলেন নিজের কাহিনি। দেখলাম ওর চুল খুব সুন্দর। এই মধ্য বয়সেও বেশ ঘন এবং উজ্জ্বল। আর এই সুন্দর চুল যেন ওর মধ্যে এক আলগা শ্রী যোগ করেছে। খুব সাধারণ শাড়ি আর অল্প সাজগোজেও খুব মিষ্টি লাগছে ওকে। উনি ক্ষমা চেয়ে বললেন যে উনি অনেকক্ষণ ধরে আমাদের কথা শুনছেন। তাই নিজে যেচে কথা বলতে এসেছেন। আমরা যেন কিছু মনে না করি। কারণ চুলের সব রকম সমস্যার সমাধান ওর কাছে আছে। আমরা প্রথমে ভেবেছিলাম উনি বোধহয় কোনও রূপ বিশেষজ্ঞ বা বিউটিশিয়ান। বা নিদেনপক্ষে কোনও পার্লারে কাজ করেন। কিন্তু না। উনি এসব কিছুই না। উনি নিতান্তই সাধারণ এক গৃহবধূ(housewife)। উনি বললেন উনি এবং ওর মেয়ে (daughter) দুজনেরই এই সমস্যা ছিল। আর মেথির কথা তাঁকে বলেছেন তার শাশুড়িমা। ভদ্রমহিলা এও বললেন আমাদের মতো তিনিও প্রথমে সেই বৃদ্ধা মানুষটির কথা বিশ্বাস করতে চাননি। কিন্তু পরে মেথি ব্যবহার করে হাতে নাতে ফল পেয়েছেন। সত্যি বলছি, এই মেথির যে কত গুণ আপনি ভাবতেও পারবেন না। রান্নাঘরে মেথি থাকলে আপনার চুলের সমস্যা সব উধাও হয়ে যাবে এক নিমেষে। দেখবেন চুলের যত্নে মেথির পরশ (fenugreek for shiny and healthy hair)  লাগলেই সব সমস্যা উড়ন ছু! 

কী আছে মেথিতে?

fenugreek

মেথিতে (fenugreek) আছে কপার (copper), আয়রন (iron), ক্যালশিয়াম(calcium) ও অন্যান্য মিনারেলস (minarels), যা নতুন কোষ (cell) তৈরি করতে এবং সুন্দর চুলের বৃদ্ধিতে সাহায্য করে। মেথির দানা ছোট (small)  হলে কী হবে, এর মধ্যে লুকিয়ে আছে আস্ত একটা পাওয়ার হাউস (power house) । যে কোনও রান্নায় মেথি (fenugreek)  দিলে পাওয়া যায় বাড়তি স্বাদ।ঠিক সেরকমই চুলের যে কোনও সমস্যাতে মেথি যে কত উপকারী সেটা বলে বোঝানো যাবে না। ভিটামিন (vitamin) আর মিনারেলস এ পরিপূর্ণ এই মেথি। ভিটামিন আর মিনারেলস এ আবার আছে ফাইটো নিউট্রিয়েন্টস যা আমাদের শরীরকে (body) ভিতর ও বাইরে থেকে শক্তি ও পুষ্টি যোগায়। সুতরাং বুঝতেই পারছেন এই মেথির পেস্ট বা মেথি বাটা যখন আপনি চুলে লাগাবেন এই ফাইটো নিউট্রিয়েন্টসের পুরোটা আপনার চুল পাবে।    

আমাদের চুল থাকে হেয়ার ফলিকলসের মধ্যে। মেথির মধ্যে লেসিথিন থাকে। এটি একটি মিনারেলস। এর কাজ হল চুলের ফলিকলকে পুষ্টি সরবরাহ করা। এতে চুল পড়া অনেকটাই বন্ধ হয়। অনেকের স্ক্যাল্প খুব অনুভূতিপ্রবণ হয়। ফলে অনেক শ্যাম্পু বা তেল তারা মাথায় দিতে পারেন না। এইসব বস্তু মাথায় দিলেই তাদের চুলকানি শুরু হয়ে যায়। লেসিথিন এই অ্যালার্জিও নিয়ন্ত্রন করে।

মেথির মধ্যে থাকে নিকোটিনিক অ্যাসিড, যা চুলের বৃদ্ধিতে সাহায্য করে।

অনেকেই বলেন তাদের চুল বয়সের আগেই পেকে যাচ্ছে। শুনলে অবাক হবেন মেথিতে উপস্থিত পটাশিয়াম এই অকালপক্বতা অনেকটাই রোধ করতে সক্ষম।

মেথিতে ভিটামিন বিসিক্স, ফোলিক অ্যাসিড, ভিটামিন এ আছে। চুলের স্বাস্থ্য ভালো রাখে এই পদার্থগুলো।

মেথিতে আছে ভিটামিন-ই, যা বডি ইমিউনিটি ভালো রাখতে সাহায্য করে।  এতে এক প্রকার অ্যান্টিসিডেন্ট হরমোন আছে যা চুলের গ্রোথে সাহায্য করে। মেথিতে প্রোটিন থাকায় আমাদের টাক পড়া বন্ধ হয়।

কীভাবে চুলের পরিচর্যায় ব্যবহার করব মেথি?

চুলের বৃদ্ধি এবং পুষ্টির জন্য

bad hair

মেথির দানা আগের দিন রাতে ভিজিয়ে রাখুন। নরম হয়ে গেলে সেটা বেটে পেস্ট তৈরি করুন।তার সঙ্গে নারকেল তেল বা অলিভ অয়েল মিশিয়ে পেস্ট তৈরি করুন। এই পেস্ট চুলের গোড়ায় ভালো করে লাগান। তিরিশ মিনিট মতো রেখে ধুয়ে নিন। তারপর শ্যাম্পু করে নিন। এতে চুল পুষ্টি পাবে এবং চুলের বৃদ্ধি অনেক তাড়াতাড়ি হবে। 

অকালপক্কতার জন্য

grey hair

এ এক এমন সমস্যা যার কথা প্রায়ই শোনা যায়। আপনার মনে হতেই পারে সোজাসাপটা রঙ করে নিলেই তো এই সমস্যা মিটে যায়। কিন্তু মনে রাখবেন হেয়ারকালার কিন্তু চুল একদম নষ্ট করে দেয়। এতে চুল অনেক বেশি ড্রাই হয়ে পড়ে। চুলের ডগা ফেটে যায়। তার চেয়ে এই পদ্ধতি অবলম্বন করে দেখুন। আগের দিন রাতে মেথি ভিজিয়ে রাখুন। পরের দিন পেস্ট তৈরি করুন। এর সঙ্গে কারিপাতার পেস্ট মেশান। এবার এই দুটির প্রলেপ মাথায় লাগিয়ে আধঘণ্টা রাখার পর অল্প গরম জলে ধুয়ে ফেলুন।

এটা ছাড়াও আরেকটা কাজ করতে পারেন। আমলা পেস্ট, মানে কাঁচা আমলকী বেটে পেস্ট তৈরি করুন। তার সঙ্গে মেথি বেটে তার পেস্ট তৈরি করে দুটো মেশান। এই পেস্টও আধঘণ্টা রেখে ধুয়ে ফেলবেন। সবচেয়ে ভালো হয় পরের দিন শ্যাম্পু করলে।   

খুশকির সমস্যা

long hair

বেশিরভাগ সময়ই দেখা যায় শীতকাল এলেই খুশকির প্রকোপ বাড়ছে। এটা হয়, কারণ শীতে আমাদের ত্বকের আর্দ্রতা এমনিই কমে যায়। ফলে স্ক্যাল্পে মৃত কোষ অনেক বেড়ে যায়। খুশকি থেকে মুক্তি পেটে এই উপায়টি একবার ট্রাই করে দেখুন।সারা রাত মেথি ভিজিয়ে রাখুন। পরের দিন মেথি বেটে পেস্ট করুন। এর সঙ্গে মেশান পাতিলেবুর খোসার পেস্ট। পুরো চুলে এই পেস্ট লাগান। আধ ঘণ্টা রেখে শ্যাম্পু করে নিন। খুশকির জন্য আর একটি অব্যর্থ দাওয়াই হল টক দই। মেথি বাটার সঙ্গে ঘরে পাতা টক দই মিশিয়ে চুলে লাগান। আধ ঘণ্টা রেখে অল্প গরম জলে ধুয়ে নিন। তারপর শ্যাম্পু করে নিন। আবার মেথি পেস্টের সঙ্গে নিমপাতা বাটা মিশিয়ে সেটা চুলের গোড়ায় লাগালেও খুশকি ধীরে ধীরে কমে যায়।     

চুল পড়ার সমস্যা

hairfall

চুল নিয়ে আমাদের যত সমস্যা আছে, তার মধ্যে এক নম্বরে থাকবে চুল পড়ার সমস্যা। কলেজ পড়ুয়া তরুণী হোক বা আজকের স্মার্ট চাকরি করা মহিলা। সবার এক কাঁদুনি এত কিছু করছি কিন্তু চুল পড়ে যাচ্ছে। অনেকে তো চুল পড়ার ভয়ে রোজ চুলে চিরুনি চালানোই বন্ধ করে দেন। মেথির ব্যবহার কিন্তু আপনাকে এই সমস্যা থেকে অনেকটাই মুক্তি দিতে পারে। অ্যালোভেরা পেস্টের সঙ্গে মেথির পেস্ট মিশিয়ে চুলের গোড়ায় লাগান। আধ ঘণ্টা রেখে শ্যাম্পু করে নিন। মাসে চারবার অর্থাৎ সপ্তাহে অন্তত একবার এই টোটকা ট্রাই করে দেখতে পারেন। দু তিন মাস পর দেখবেন চুল পড়া অনেকটাই কমে এসেছে। তবে যারা চুল পড়ার ভয়ে চুল আঁচড়ানো বন্ধ করে দিয়েছেন, তাদের জন্য বলি। এমনটা একদম করবেন না। চিরুনি চালালে চুলের গোড়ায় রক্ত সঞ্চালন হয়।এটা স্ক্যাল্প আর চুল দুটোর জন্যই খুব ভালো। তাছাড়া দীর্ঘদিন চুল না আঁচড়ালে চুলে জট পড়ে যেতে পারে। আর এরকম অবস্থায় আপনাকে মোটেও ভালো দেখাবে না।    

রুক্ষ ও শুষ্ক চুলের জন্য

good hair

রুক্ষ এবং শুষ্ক চুল মানে আপনার চুল আর্দ্রতার অভাবে ভুগছে। তাই আপনার চুলে আর্দ্রতার জোগান দেওয়ার প্রয়োজন আছে। নারকেলের দুধ নিন। এতে আছে স্বাভাবিক বা প্রাকৃতিক আর্দ্রতা। এর সঙ্গে মেথি পেস্ট করে একটা প্রলেপ তৈরি করুন। চুলের গোড়ায় লাগিয়ে আধ ঘণ্টা রেখে ধুয়ে ফেলুন অল্প গরম জল দিয়ে।এটা আপনি নিয়মিত করতে পারেন। তবে যাদের চুল রুক্ষ এবং শুষ্ক তারা শ্যাম্পু ব্যবহারের ক্ষেত্রে একটু বাড়তি সাবধানতা অবলম্বন করবেন। যে শ্যাম্পুতে ময়েশ্চারাইজার আছে সেটাই ব্যবহার করবেন। চুল শুষ্ক এবং রুক্ষ হলে তাদের চুলে রঙ না করানোই ভালো। এতে চুলের যেটুকু আর্দ্রতা বাকি আছে সেটাও চলে যাবে।রুক্ষ ও শুষ্ক চুলের একটা বড় সমস্যা হল এই জাতীয় চুলে কোনও জেল্লা থাকে না। চুলে যদি জেল্লা আনতে চান তাহলে মেথির পেস্টের সঙ্গে জোজোবা তেল ও দু এক ফোঁটা ল্যাভেন্ডার এসেনশিয়াল তেল মিশিয়ে আধঘণ্টা রেখে ধুয়ে ফেলুন। চুলে শাইন বা জেল্লা আনতে যে বস্তুটি সবচেয়ে বেশি কাজ দেয় তা হল ডিম। দেখবেন মেথি পেস্টের সঙ্গে যদি ডিম মিশিয়ে মাখতে পারেন তাহলে আপনার চুল একদম ঝলমল করবে।    

স্বাস্থজ্জ্বল চুলের জন্য

hair

চুল নিয়ে আমাদের যাই সমস্যা থাক না কেন, আমাদের প্রত্যেকের একটাই আকাঙ্খা থাকে। তা হল চুলের স্বাস্থ্য যেন বজায় থাকে। চুল যেন হয় হেলদি এবং সুন্দর। হেলদি চুল পেতে গেলেও আপনাকে এই সর্বগুণ সম্পন্ন মেথিরই সাহায্য নিতে হবে। মেথি ভালো করে ধুয়ে সারা রাত জলে ভিজিয়ে রাখুন। পরের দিন সেই মেথি ভেজা জল দিয়ে চুল ধুয়ে নিন। এবার এই ভেজা চুল নিয়ে ঘণ্টা তিনেক থাকুন। যতক্ষণ না এই মেথির জল পুরোটা স্বাভাবিক ভাবে শুকিয়ে যাচ্ছে অর্থাৎ চুল পুরো মেথির জল শুষে নিচ্ছে ততক্ষণ ভেজা চুলে থাকুন। চুল পুরোপুরি শুকিয়ে গেলে আবার উষ্ণ জল দিয়ে চুল ধুয়ে নিন। এটা টানা একমাস করতে পারেন।  যাদের চুল খুব দুর্বল তাদের এটা করলে চুলের গোড়া মজবুত হবে। সহজে চুল ভাঙে না বা পড়বে না। যাদের চুল খুব পাতলা তাদের চুলে ভলিউম আসবে। চুল ঘন হবে।  

চুলের তেলতেলে ভাব কাটাতে

essential oil

রুক্ষ এবং শুষ্ক চুল যেমন একটা সমস্যা, তার বিপরীত সমস্যা হল চুলে সব সময় তেলতেলে ভাব থাকা। অনেকের চুলে এই তেলতেলে ভাব শ্যাম্পু করলেও যায়না। তেলতেলে চিটচিটে চুলের অনেক সমস্যা আছে। যাদের এরকম চুল হয় তাদের চুলে চট করে ধুলো তেল ময়লা আটকে যায়। ফলে চুল দেখতে নির্জীব আর প্রাণহীন লাগে। সম্ভবত এদের স্ক্যাল্প থেকেই অতিরিক্ত তেল ক্ষরণ হয় যা চুলকে তেলতেলে করে তোলে। এরকম সমস্যা থাকলে সারা রাত মেথি ভিজিয়ে তার পেস্ট তৈরি করুন পরের দিন সকালে। এই মেথি পেস্টের সঙ্গে অ্যাপল সাইডার ভিনিগার (দু চামচ) মিশিয়ে পুরো চুলে লাগাবেন। তারপর অল্প গরম জলে শ্যাম্পু করে ধুয়ে ফেলবেন। যদি বাড়িতে অ্যাপল সাইডার ভিনিগার না থাকে তাহলে তার পরিবর্তে চায়ের লিকারও ব্যবহার করতে পারেন।    

 ছবি সৌজন্যঃ পেক্সেলস ডট কম 

 POPxo এখন ৬টা ভাষায়! ইংরেজি, হিন্দি, তামিল, তেলুগু, মারাঠি আর বাংলাতেও! 

08 Jan 2019

Read More

read more articles like this
good points logo

good points text